ব্রেকিং নিউজঃ
Home / টকশো / ৪নং ওয়ার্ডকে আধুনিক ও মডেলে রুপান্তরিত করাই আমার লক্ষ্য : জামাল প্রধান

৪নং ওয়ার্ডকে আধুনিক ও মডেলে রুপান্তরিত করাই আমার লক্ষ্য : জামাল প্রধান

মোঃ রাছেল, কচুয়া : আসন্ন পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে কচুয়া পৌরসভার ০৪নং ওয়ার্ডের  কাউন্সিল’র প্রার্থী জামাল হোসেন প্রধান  বলেছেন, আমার ওয়ার্ডটি হবে এ পৌরসভার মধ্যে আধুনিক ও মডেল ওয়ার্ড। এ উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য নিয়ে ওয়ার্ডবাসীর অনুরোধে আমি কাউন্সিলর পদে প্রার্থী। ওয়ার্ডবাসীর প্রতিনিধি হবেন, এমন প্রত্যাশা নিয়ে কয়েক বছর পূর্ব থেকে এলাকাবাসীর সুখ দুঃখে পাশে থেকে তাদের ব্যক্তিগত, সমষ্টিগত বা সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ধমীয়, শিক্ষা ও ক্রীড়া সহ বিভিন্ন কর্মকান্ডে উপস্থিতি এমনকি কোনো কোনো ক্ষেত্রে নিজের পকেট থেকে টাকা খরচ করেও তাদের পাশে ছিলাম। তাই এ ওয়ার্ডবাসী তাদের আগামীর সেবক হিসেবে তারুণ্যের প্রার্থী হিসেবে আমাকে বেছে নিয়েছেন।
তাদের অনুরোধে ৪নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছি।
যুবলীগ নেতা মোঃ জামাল হোসেন প্রধান, এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন ওয়ার্ড বাসীর সাথে। সকলের সাথে  শুভেচ্ছা ও  মতবিনিময় করে চলছেন। প্রতিদিনই ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লায় গিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন এবং তাদের সাথে কুশল বিনিময়ের মাধ্যমে তার প্রার্থিতার বিষয়ে চূড়ান্তভাবে ঘোষণা করে মাঠে নেমে পড়েছেন।
তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক হিসেবে জনগণের সেবার ব্রত নিয়ে রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়েছি। আমার এলাকা বাসীর সেবায় যুক্ত হয়েছি। সে থেকে আজো এলাকা বাসীর সুখ দুঃখের একজন সাথী হিসেবে পাশে ছিলাম এবং আমৃত্যু থাকবো। আমার জন্ম এই ৪নং ওয়ার্ডে  আমি জন্মের পর থেকে এ পর্যন্ত  কেউ বলতে পারবেনা কোন অন্যায় ও অপরাধের সাথে জড়িত রয়েছি। ছোটবেলা থেকেই সকল অপরাধের বিরুদ্ধে আছি। এলাকাবাসী চাচ্ছে তরুণ বয়সের একজন প্রতিনিধি যার মাধ্যমে তাদের প্রত্যাশা পুরনে কাজ করতে পারবে। সে হিসেবে তারা আমাকে পছন্দ করে মাঠে নামিয়েছেন।
কারণ বিগত দিনে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তাদের কাছে এলাকার মানুষজন গিয়ে কাঙ্ক্ষিত সেবা না পাওয়ায় আমি আসন্ন নির্বাচনে এলাকা বাসীর স্বাথে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হচ্ছি। আমি বয়সে তরুণ হলেও কোনো অন্যায় অপরাধদের সাথে জড়িত ছিলাম না। কোনো অপরাধীর পক্ষে ও কাজ করিনি। দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকার অসহায় গরীব মানুষকে বিভিন্ন উৎসবে আমার সামর্থ্য অনুযায়ী সহযোগিতা দিয়ে আসছি।
তিনি আরো বলেন, নির্বাচিত হলে ৪নং ওয়ার্ডকে গ্যাংগ্রুপ মুক্ত, মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত আধুনিক ওয়ার্ড গড়ে তুলবো। কচুয়া পৌর এলাকার মধ্যে ৪নং ওয়ার্ড হবে একটি মডেল। আমার কার্যক্রমের গুরুত্ব পাবে শিক্ষার উন্নয়নে। তাই  মহান সৃষ্টি কর্তা যতদিন বেঁচে রাখবে ততদিন চেষ্টা করবো যেনো আমার দ্বারা কোনো অন্যায় বা অপরাধ না হয়।
তিনি আরো বলেন, বয়সে তরুণ হয়েও আপনাদের সন্তান হিসেবে আমি সবসময়েই পাশে ছিলাম আমৃত্যু থাকবো।
প্রিয় ওয়ার্ডবাসী, আপনাদের  সকল শ্রেনী পেশার কাছে আমার বিগত দিনের কমকান্ডের জন্য আপনারা আমাকে স্নেহ আদর ও সোহাগ দিয়ে কাছে নিয়েছেন। তাদের অনুরোধে এবারের পৌর নিবাচনে প্রার্থী  হচ্ছি। আমার মুল লক্ষ্য হচ্ছে- এ পৌরসভা দেশের প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা। অথচ বিগত দিনের ওয়াডের জনগণের রায়ে নিবাচিত জনপ্রতিনিধিগন নাগরিকদের কে পৌর পরিষদের সঠিক সেবা দিতে ব্যর্থ হয়েছেন। তাই যাদের ভোটে আমি কাউন্সিলর হবো, তাদের কে সেবা দেওয়া আমার নৈতিক দায়িত্ব। তাই এ ওয়ার্ডবাসীর একজন সেবক হিসেবে তাদের পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে প্রার্থী হবো।
তিনি  বলেন, আমি এলাকার ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, সন্ত্রাস বিরোধী কাজগুলো বিষয়ে সব সময় প্রতিবাদী ছিলাম এবং এলাকার তরুণ ও যুব সমাজ কে ঐক্যবদ্ধ করে এ কাজ গুলোর বিষয়ে সব সময় প্রতিবাদ করে আসছি। কেউ বলতে পারবে না, কোনো দিন কোথায় সন্ত্রাসী চাঁদাবাজি এবং টেন্ডার বাজি করেছি । আমি এলাকার শিক্ষা, ক্রীড়া, ধমীয়,সামাজিক, সাংস্কৃতিক এক কথায় অপরাধ মুলক কাজ ব্যতীত সমাজের কল্যাণ কর কাজে জড়িত। আমি সর্বোপরি আমার ওয়ার্ডবাসীর কাছে অনুরোধ জানিয়ে বলতে চাই, বিগত দিনে আমার আচার আচরণ ও সকল কিছু বিবেচনায় নিয়ে আমাকে আপনাদের সেবক হয়ে কাজ করার জন্য আপনাদের সন্তান হিসেবে আপনাদের দোয়া ও সহযোগিতা চাই।
Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুর পৌর ১১নং ওয়ার্ডে আশার আলো পাঞ্জাবী প্রতীকের ইকবাল

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুর পৌর ১১ নং ওয়ার্ডবাসীর কাছে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী মো. ইকবাল হোসেন …

vv