ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় অনুসন্ধান / শাহরাস্তি মডেল মসজিদের জমি অধিগ্রহনে অর্থ লোপাটের অভিযোগ
প্রতীকী ছবি

শাহরাস্তি মডেল মসজিদের জমি অধিগ্রহনে অর্থ লোপাটের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : শাহরাস্তি উপজেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নিমানের জন্য ভূমি অধিগ্রহণে একশ্রেণির প্রভাবশালী ভূমি দালাল চক্র প্রশাসনের যোগসাজশে জমির শ্রেণী পরিবর্তন করে মোটা অংকের অথ লোপাট সহ নানা অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা।
স্থানীয়রা জানায়, শাহরাস্তি উপজেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের জমি অধিগ্রহণে একশ্রেণির ভূমি দালাল চক্র জমির শ্রেণী পরিবর্তন করে সরকারের কাছ থেকে উচ্চমুল্য আদায়ের জন্য উক্ত সম্পত্তি ক্রয়ের জন্য আবেদন জানায়। স্থানীয় প্রশাসনের গুটিকয়েক অথলোভী ব্যাক্তিকে হাত করে রাতারাতি নাল জমির শ্রেণী পরিবর্তন করে নাল সরেজমিনে ভিটি দেখিয়ে বাজার মুল্যর তিনগুন অথ ভূমি অধিগ্রহণের প্রস্তাব ও প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।
প্রতিবেদন মূলে উল্লেখ করা হয়, যার স্বারক নং ৩৪/ ২০১৮- ১২২, তাং ১৭/ ১১/ ২০১৯. উক্ত সম্পওির ৬০ নং নিজমেহার মৌজার ৮৭৪ নং খতিয়ান মূলে যার দাগ নং ৫১৬৬.শ্রেণী নাল, দাগের অন্দরে ভূমি ০.৫২০০ একর,এতে প্রস্তাবিত ভূমি ০. ৪৩ একর,যার আনুমানিক বাজার মুল্য প্রতি শতক ৬৭ হাজার ৫ শত ৯০ টাকা, বাজার মুল্যোর তিনগুণ ৮৭ লক্ষ ১৯ হাজার ১শত ১০ টাকা দেখানো হয়।
একই প্রতিবেদনের ২ নং ছকে ৮৭৪ নং খতিয়ানের ৫১৬৬ নং দাগকে নাল সরেজমিনে ভিটি দেখিয়ে জমির শ্রেণী পরিবর্তন করে ভূমি সিন্ডিকেট দালাল চক্র।  এতে প্রতি শতক ভূমির বাজার মূল্য ধরা হয় ১ লক্ষ ৯৮ হাজার ৯ শত ৫০ টাকা,বাজার মূল্যর তিনগুণ প্রস্তাবিত ৪৩ শতক সম্পওির বাজার মূল্য ধরা হয় ২ কোটি ৫৬ লক্ষ ৬৪ হাজার ৫ শত ৫০ টাকা নিধারন করে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।
যেখানে একই সম্পত্তি সরকার মাত্র ৮৭ লক্ষ ১৯ হাজার ১ শত ১০ টাকা মুল্য ক্রয় করতে পারতো। সেখানে নাল সম্পত্তির শ্রেণী পরিবর্তন করায় এতে সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে ১ কোটি ৬৯ লক্ষ ৪৫ হাজার ৪ শত ১০ টাকা। আর এ কারবারে ভূমি সিন্ডিকেট দালাল চক্র হাতিয়ে নিয়েছে প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা।
স্থানীয়রা অভিযোগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,উপজেলা পরিষদ থেকে প্রায় সিঁকি মাইল দূরে জনমানব  শুন্য বসতিহীন  অতীব গুরুত্বপূর্ন স্থান এটি। সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নিমিত মসজিদে প্রতিওয়াক্ত নামাজে ১০ জন মুসুল্লি পাওয়া যাবেনা। সে স্থানটিতে একজন চিন্হিত রাজাকারের বাড়ীর সম্মুক্ষে এমন কমজনগুরুত্বপূর্ণ ধমীয় প্রতিষ্ঠান স্থাপন বেমানান।  মসজিদটি এ স্থানে হলে
জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অতি জনগুরুত্বপূণ  প্রকল্প ৪৬০ টি মডেল মসজিদ নিমানের দূশ্যমান উন্নয়ন কমকান্ড এ এলাকার জনগণের দৃষ্টির অন্তরালে পড়ে থাকবে। তারা আরো জানান, মসজিদ নিমানের প্রস্তাবকৃত এ স্থানটি এ উপজেলার একমাএ পাকিস্তান পাড়া হিসেবে খ্যাত বিএনপি – জামাত অধ্যুষিত এলাকা হিসেবে পরিচিত। বতমান   মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সরকার আওয়ামীলীগ, একজন রাজাকারের বাড়ীর সামনে উপজেলার সববৃহৎ কেন্দ্রীয়  মসজিদ নিমান করতে পারেনা।
  তারা জানান, উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন ডাকবাংলো ও মুক্তিযুদ্ধা কমপ্লেক্স সামনে মডেল মসজিদের জন্য  পুবে যে স্থানটি ভূমি অধিগ্রহণের জন্য চাওয়া হয়েছিল তা ছিল জনবহুল ও অতীব জনগুরুত্বপূর্ণ।  এ স্থানে মসজিদটি নিমিত হলে প্রতি ওয়াক্ত নামাজে ৫ শত থেকে সহস্রাধিক মুসুল্লীর উপস্থিতি হতো।  এছাড়া সরকার মাত্র  ৮৭ লক্ষ ১৯ হাজার ১শত ১০ টাকা দিয়ে মসজিদের জমি অধিগ্রহনের কাজ শেষ হতো। অথচ এ ভূমি অধিগ্রহনে সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে ১ কোটি ৬৯ লক্ষ ৪৫ হাজার ৪ শত ১০ টাকা।  যাহা ভূমি দালাল সিন্ডিকেট চক্র তাদের ৪০ লক্ষ টাকা বানিজ্যের জন্য এ স্থানটির প্রতি আপওি জানিয়ে তাদের দালাল সিন্ডিকেটের সম্পওি ক্রয়ে আগ্রহ দেখান। উল্লেখ্য উক্ত  স্থানের  জমি অধিগ্রহন শেষে মসজিদ নিমানে ১৫ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। স্থানীয়রা তদন্ত সাপেক্ষে মসজিদের মত পবিএ স্থান নিয়ে অথ বানিজ্য, ভূমি সিন্ডিকেট দালালদের চিন্হিতকরে কঠিন শাস্তি, অতিজনগুরুত্বপূণ ও জনবহুল স্থানে মসজিদ স্থাপন  ও জমি অধিগ্রহণের জন্য  মাননীয় ধমমন্ত্রী মহোদয়,  মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয়,জেলা প্রশাসক, উপজেলা নিবাহী কমকতা ও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন
Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুরে অনুমোদনহীন অবৈধ শিপইয়ার্ডে পরিবেশ দূষণ, কর্তৃপক্ষ উদাসীন

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরে অনুমোদনহীন ভাবে ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে গড়ে উঠেছে অবৈধ শিপইয়ার্ড ও ডকইয়ার্ড। এতে …

vv