ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় অনুসন্ধান / শাহরাস্তি খিলাবাজার কসাইখানার টিন ব্যবহার হচ্ছে চেয়ারম্যানের রসাইখানায়!

শাহরাস্তি খিলাবাজার কসাইখানার টিন ব্যবহার হচ্ছে চেয়ারম্যানের রসাইখানায়!

বিশেষ প্রতিনিধি : চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের ঐতি্হ্যবাহী খিলাবাজার ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিগত ২৪ আগস্ট ‘নব নির্বাচিত খিলাবাজার ব্যবসায়ী কমিটির পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় এমন অনিয়মের কথা কমিটির সদস্যগনের বক্তব্যে উঠে আসে। উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শাহরাস্তি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ আবদুল মান্নান। অনিয়মের অভিযোগ সমূহ হচ্ছেঃ-
১। বাজারের কসাইখানার টিন নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তথা বাজার কমিটির সভাপতি তার নিজ বাড়ির রসাইখানায় ব্যবহার করছেন।
২। বাজারের পূর্ব-দক্ষিণে ইউনিয়ন পরিষদের থোক বরাদ্দের ১,৬০,০০০ টাকায় সদ্য সম্পাদিত ড্রেনের নির্মাণ কাজ বাজার কমিটিকে না জানিয়ে নামমাত্র টাকায় কাজ দেখিয়ে চেয়ারম্যান কর্তৃক হাতিয়ে নেয়া এবং ১ বছর পূর্বে ৩,৮০,০০০/- টাকা থোক বরাদ্দে নির্মিত টয়লেটটি ব্যবহারের অনুপোযোগী।
৩। বাজারে থাকা মহিলা ব্যবসায়ীদের জন্য নির্ধারিত ২টি দোকান এবং সমিতির অফিস ঘর ভাড়া দিয়ে ইজারাদার নিয়ে যাচ্ছেন।
কসাইখানার টিনের বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নব-নির্বাচিত বাজার কমিটির কোন কোন সদস্য জানান কসাই খানার প্রায় ৮ ব্যান্ডেল টিন খুলে নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হানিফ তার রসাই ঘরে ব্যবহার করছেন। যা অনৈতিক ও বির্বজিত কাজ। টিনগুলো উদ্বার ও এই অনিয়মের বিষয়ে সত্বর ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নব-নির্বাচিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো মাহবুব আলম কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।
এদিকে, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে থোক ১,৬০,০০০/-টাকার বরাদ্দে সদ্য নির্মিত ড্রেনের কাজটি যথাযথভাবে সম্পাদিত না করে বিল তুলে নিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আবু হানিফ। তিনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবার পদবী বলে বাজার কমিটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। তিনি নিজেই নিজেকে থোক বরাদ্দে দেয়া প্রজেক্ট কমিটির চেয়ারম্যান করেছেন। বাজার কমিটির কাউকে কিছু না জানিয়ে তিনি উক্ত ড্রেন নির্মাণে নিন্মমানের ও নামমাত্র কাজ সম্পাদন করে বিল তুলে নিয়েছেন। এবিষয়ে বাজার কমিটির সদস্যদের কেউ কেউ বিস্বময় প্রকাশ করে বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান থোক বরাদ্দের এই কাজের প্রজেক্ট কমিটির সভাপতি তিনি নিজে হতে পারেন না। তাদের অভিযোগ বাজার কমিটির কোন সদস্যকে না জানিয়ে চেয়ারম্যান নামমাত্র ও নিম্নমানের কাজ করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।
চেয়াম্যান আবু হানিফের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়ে জানতে চেয়ে তার মোবাইলে (০১৭১৬২৩৬৬০৩) বারবার ফোন করলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।
উল্লেখ্য, বিগত ২৪ আগস্ট অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, নব-নির্বাচিত খিলাবাজার কমিটির সহ-সভাপতি ও ইজারাদারদের একজন জনাব আবু নাসের মোগল। খিলাবাজার ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন অনিয়মের বিষয়ে ফোনে তার নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,  ড্রেন ও টয়লেট নির্মাণ কাজে কোন অনিয়ম হয়েছে কি-না তা আমার জানা নাই। আনিত অনিয়মের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তদন্ত করে দেখতে পারেন।
উল্লেখ্য, খিলাবাজারের বর্তমান ইজারাদার ৩ জন। তারা হলেন ১). আবু নেছার মোগল, ২). সালাউদ্দিন এবং ৩). জনসেবা ফার্মেসির মালিক ড়াঃ নিরঞ্জন রায়। বাজার ব্যবস্থাপনার অনিয়ম বিষয়ে ড়াঃ নিরঞ্জন রায়ের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোন অনিয়মের বিষয় আমার জানা নাই। তিনি বলেন, আমার জানামতে বাজারে মহিলা উদ্যোক্তাদের বা ব্যবসায়ীর একটি দোকান ঘর পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। ইজারাদার হিসাবে অফিসের কাজে আমরা একটি ঘর ব্যবহার করছি। ড্রেন ও টয়লেট নির্মাণে কোন অনিয়মের বিষয়ে আমার কিছু জানা নাই।
বিগত ২৪ আগস্ট বাজারের নব-নির্বাচিত কমিটির পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শাহরাস্তি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ আবদুল মান্নান। ওই সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে, শাহরাস্তি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ আবদুল মান্নান বলেন, ঐতিহাসিক খিলাবাজারের একটি ঐতিহ্য রয়েছে। পদবী বলে এই বাজার কমিটির চেয়ারম্যান রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু হানিফ। আজকের বাজার কমিটির নব-নির্বাচিত সদস্যদের পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে আমি উপস্থিত থাকবো এটাতো চেয়ারম্যান সাহেব জানতেন। কিন্তু তিনি বিষয়টি জানার পরও কেন এই সভায় অনুপস্থিত রয়েছেন? প্রধান অতিথি বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব উপস্থিত থাকলে অনেক ভালো হতো।
ওই সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেছিলেন, ইদানিং খিলাবাজারে অনিয়ম সহ চুরি, চাঁদাবাজির বিভিন্ন অভিযোগের কথা শুনা যায়। আমরা আর এই অনিয়ম চুরি এবং চাঁদাবাজি কথা শুনতে চাই না। বাজার কমিটির নব নির্বাচিত সদস্যদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা এই এলাকায় যে বা যারা অনিয়ম, মাদক ব্যবসা, চুরি এবং চাঁদাবাজির সাথে যুক্ত তাদের তথ্য দিয়ে আমাদেরকে সহায়তা করুন আমরা তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে আসবো।
এবিষয়ে বাজারের একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী নাম গোপন রাখার সত্বে বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বাজারে ব্যবসা করতে চাই। বাজারের সুন্দর পরিবেশ আমরা দাবি করছি। কোন অনিয়ম হোক এটা আমরা চাই না। আমরা আশা করি বাজার ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রনকারীগন আমাদের এই কথা শুনবেন।
Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুরে শুক্রবার নতুন করে ১০ জনের করোনা পজেটিভ

মাসুদ হোসেন : চাঁদপুরে নতুন করে ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সনাক্তের হার ৮.৭০%। শুক্রবার …

Shares
vv