ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / শাহরাস্তিতে ১০ করোণা রোগী শনাক্ত, ১জনের সন্ধান মিলছেনা !

শাহরাস্তিতে ১০ করোণা রোগী শনাক্ত, ১জনের সন্ধান মিলছেনা !

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে নতুন দু’জন করোনা পজিটিভ রোগী শনাক্ত শেষে আক্রান্ত বেড়ে দাঁড়াল ১০ জনে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে (২৮মে) চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিস থেকে প্রেরিত রিপোর্টের ভিত্তিতে শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের (আরএমও) ডাঃ অচিন্ত্য কুমার চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, শাহরাস্তি উপজেলা থেকে এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ সন্দেহে ১৬৫ জনের দেহের নমুনা (স্যাম্পল) পাঠানো হয়। তার মধ্যে এই পর্যন্ত ১৪২ জনের দেহের করোনা ভাইরাসের নমুনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। অর্থাৎ নতুন করে আসা ২ জনের নমুনা পজিটিভ রিপোর্টসহ মোট করোণা ভাইরাসে সংক্রমনে আক্রান্ত রোগী সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০ জনে।

এছাড়া গত শনিবার (৯মে) করোনা সনাক্ত হওয়া পৌরশহরে ঠাকুর বাজারের সঞ্জয় শীলের মেয়ে জয়া রানী শীল (১৩) এর ২য় নমুনা রিপোর্ট শুক্রবার(২২মে) নেগেটিভ আসে।

বুধবার (২০মে) উপজেলার টামটা উত্তর ইউপি’র ঢুশুয়া গ্রামের মুন্সিবাড়ির মৃত হাবিবুল্লার পুত্র শামসুল আলম মৃতু জনিত কারণে অত্র উপজেলায় শনাক্তকৃত রোগীর মধ্যে চিকিৎসধীন রোগীর সংখ্যা হবে ৮ জন।

এদিকে কোভিড-১৯ নতুন নমুনা রিপোর্টে উপজেলার চিতোষী ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীতে পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও চিতোষী পূর্ব ইউপি’র বড়তুলা গ্রামের হাফেজ বাড়ির শফিকুর রহমানের পুত্র মোজাম্মেল হোসেন (২০)এর রিপোর্ট পজিটিভ আসে।একই দিন উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউপি’র শিবপুর গ্রামের জনৈক আঃ লতিফের পুত্র জীবনের (২১) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার বিষয়টি অবহিত হয়ে আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করতে শাহরাস্তি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শাহ আলমকে পরামর্শ প্রদান করেন। এদিকে সনাক্তকৃত ১রোগীর বাড়ি পুলিশ লকডাউন করলেও টামটা ইউপির জনৈক জীবনকে স্থানীয় চেয়ারম্যান জহিরুল আলম মানিক এই পর্যন্ত তার বাড়ির শনাক্ত করতে পারেননি বলে নিশ্চিত করেন।

স্থানীয়রা বলছে, ওই রোগী করোনা শনাক্ত যেনে বুঝে বাড়ির ঠিকানা ও মুঠোফোন নাম্বার ভুল দিয়ে গা ঢাকা দিয়েছে অথবা অন্য স্থান থেকে এসে এ উপজেলায় রিপোর্ট করিয়ে এ কান্ড ঘটিয়েছে। এতে এলাকায় স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

অন্যদিকে শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ শাহ আলম এ রিপোর্ট লিখা পর্যায় বিষয়টি নিয়ে মাঠে কাজ করছেন বলে জানান।

উল্লেখ্য, গত শনিবার (৯মে) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সএর স্বাস্থ্যকর্মী নুরুল ইসলামের পুত্র চাঁদপুর একটি বেসরকারি হাসপাতালের প্যাথলজি টেকনিশিয়ান গোলাম মোস্তফা (৩২) ও পৌরশহরে ঠাকুর বাজারের সঞ্জয় শীলের মেয়ে জয়া রানী শীল (১৩) রিপোর্ট পজিটিভ আসে । তার পর গত রোববার (১৭মে) চিতোষী পশ্চিম ইউপি’র কাদরা গ্রামের আবুল কালাম পাটোয়ারীর পুত্র ঢাকা ফেরৎ শাহরিয়ার সুমন (২৩) করোণা পজিটিভ শনাক্ত হয় ।

বুধবার (২০মে) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেএ ইউএইচএফপিও ডাঃ প্রতীক সেন ৪২), উপজেলা রায়শ্রী দক্ষিণ ইউপি’র বেরনাইয়া গ্রামের (বাহারাইন) প্রবাসী আব্দুস সাত্তার (৩৫) এর স্ত্রী শাহনাজ (৩০) ও তাদের কিশোরী মেয়ে পূর্ণিমা আক্তার (১১), উপজেলার টামটা উত্তর ইউপি’র ঢুশুয়া গ্রামের মুন্সিবাড়ির মৃত হাবিবুল্লার পুত্র শামসুল আলম (৫৭) এর (মৃত্যুর পরে) করোণা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

শুক্রবার (২২মে) মেহের উত্তর ইউপি’র বানিয়াচৌঁ গ্রামের নতুন বাড়ির আব্দুর রশিদের পুত্র রাসেল (৩৩) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তিনি আক্রান্তের পূর্বে নারায়ণগঞ্জ জেলায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আক্রান্তরা উপজেলায় বিভিন্ন স্থানে হোম কোয়ারেন্টিনে ও আইসোলেশন রয়েছে।

এ উপজেলায় প্রথম শনাক্তকৃত রোগী রামগঞ্জ উপজেলার অধিবাসী প্রাণ কৃষ্ণ নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়ে বর্তমানে হোম কোয়ারান্টিনে নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন।

উপজেলায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে বয়স ভেদে একজন নারী ৩০, দুইজন কিশোরী ১১-১৩,বেশী সংখ্যক ৫ জন যুবক ২০-২১-২৩-৩০-৩৩ এবং ১জন ডাক্তার ৪২ বাকি ১জন পঞ্চাশোর্ধসহ ১০জন আক্রান্ত হন।

Facebook Comments

Check Also

হাজীগঞ্জ-কচুয়া-গৌরিপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক যেন মৃত্যু ফাঁদ!

স্টাফ রির্পোটার : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ-কচুয়া-গৌরিপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের ঠিকাদারের অবহেলায় ৫-৬ মাস পূর্বে সংস্কার হওয়া সড়কের …

vv