ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় শহরাস্তি / শাহরাস্তিতে হয়রানিমুলক মামলার শিকার অাবুল কালাম
প্রতীকী ছবি

শাহরাস্তিতে হয়রানিমুলক মামলার শিকার অাবুল কালাম

নিজস্ব প্রতিবেদক : শাহরাস্তিতে অাদমবেপারীর নামে টাকা অাত্মসাতের মিথ্যা অভিযোগের শিকার হয়ে শোরসাক গ্রামের পূর্বপাড়ার অাবুল কালাম (৫৯) হয়রানি হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
ভুক্তভোগি কালাম জানান, অামার মৃত চাচা অালী এরশাদের স্ত্রী খোরশেদা বেগমের সঙ্গে সম্পত্তিগত বিরোধ চলাবস্থায় চাচি খোরশেদা অামাকে ও ওয়ার্ড সদস্য হাতিম অালীকে বিবাদী করে গত ২০১৩সালে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্টেট অাদালত -১, চাঁদপুরে একটি চুরি মামলা দায়ের করে। বিজ্ঞ অাদালতের বিচারক যার তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য শাহরাস্তি উপজেলা সমাজসেবা অফিসে পাঠায়।
তৎকালিন সময় সমাজসেবা কর্মকর্তা রাসেদুজ্জামান চৌধুরী বর্তমানে চাঁদপুর জেলা সমাজসেবা উপ -পরিচালক উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে তদন্ত কাজ শেষে মামলাটি বিবাদীর বিরুদ্ধে উদ্দেশ্য প্রণোদিত করা হয়েছে মর্মে অাদালতে প্রতিবেদন পাঠান।  ওই মামলায় বাদির পক্ষে ৮নং সাক্ষি ছিলো মো : দেলোয়ার হোসেন,পিতা মৃত অাফজাল হোসেন সাং বিষ্ণুদী, থানা ও জেলা চাঁদপুর। ওই মামলায় বিজ্ঞ অাদালত অামাদের মামলা হতে অব্যহতি দেয়। ওই মামলায় তাদের পরাজয় হওয়ায় খোরশেদার মামলার ৮নং স্বাক্ষী মো:দেলোয়ার হোসেন (৫২), পিতা মৃত অাফজাল হোসেন,সাং তরপুরচন্ডি, থানা ও জেলা চাঁদপুর দেখিয়ে বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট চাঁদপুর অাদালতে অামাকে ও অামার প্রবাসী পুত্রের বিরুদ্ধে অাদম বেপারীর টাকা অাত্মসাতের মামলা দায়ের করেন। অামি বা অামার পরিবারের কেউই কখনো অাদম ব্যাবসা করি নেই ।
দেলায়ার অথবা কাহারো সঙ্গে কখনো কাউকে প্রবাসে পাঠানোর ব্যাপারে কথা বলিনি। কাউকে কখনো লেন -দেন, প্রবাসে পাঠানোর জন্য অঙ্গীকার নামা দেইনি। দেলোয়ার যে অঙ্গীকার নামা দেখাচ্ছে তা ভুয়া। অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষরটি অামার নয়। প্রয়োজনে বিজ্ঞ অাদালতের মাধ্যমে অামি স্বাক্ষর প্রমাণে এক্সর্পাটের অাবেদন করবো।  অামার চার পুত্র ও দুই কণ্যা সন্তান। দুই পুত্র সন্তান বাকপ্রতিবন্ধি,এক পুত্র মসজিদে ইমামতি করেন, বড় ছেলেকে অনেক কষ্ট করে প্রবাসে পাঠাই। খবর নিয়ে জানতে পারি খোরশেদার র্দু-সর্ম্পকের খালতো ভাই  দেলোয়ার হোসেন পূর্ব পরিকল্পিতভাবে বাদি সেজে অামার ও অামার ছেলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এবং মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।
তিনি অারো জানান, দেলোয়ার হোসেন নিজেই প্রতারক। তিনি অামার বিরুদ্ধে মামলা করে এখন মামলা তুলে নিতে খরচের টাকা দাবি করছে।
এ ব্যাপারে তার কয়েক জন পরিচিত লোক দিয়ে অামাকে মামলা মিমাংসার প্রস্তাব দেয়। এতে অামি বিজ্ঞ অাদালতের প্রতি সম্মান জানিয়ে তার প্রস্তাব প্রত্যাক্ষান করি। দেলোয়ার ক্ষিপ্ত হয়ে বে -নামিয় মুঠোফোনের মাধ্যমে অামাকে গুম করার হুমকী দেয়। এই দেলোয়ার হোসেন বাদী সেজে ২০১৩ইং ফরিদগঞ্জ উপজেলার ধনুয়া সমাজকল্যাণ বহুমুখী সমবায়সমিতির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অাদালত ফরিদগঞ্জ, টাকা অাত্মসাতের মামলা দায়ের করেন। যার নং ১৮৫/২০১৩ইং, সি,অার -১৯৫/১৪।
তিনি অারো জানান, সাধারণ মানুষকে প্রতারণার চক্করে ফেলে মামলা দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেওয়াই দেলোয়ার হোসেনের দৈনন্দিনের কাজ। বিভিন্ন এলাকায় তাঁর চক্রের সদস্য রয়েছে। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ অধিকতর তদন্ত করলে দেলোয়ারের অরো প্রতারণার তথ্য বেরিয়ে অাসবে বলে কেউ কেউ ধারণা করছে।
Facebook Comments

Check Also

মতলব উত্তরের জহিরাবাদ ও সুলতানাবাদ চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রার্থী নির্বাচিত

মনিরুল ইসলাম মনির : মতলব উত্তর উপজেলা জহিরাবাদ ও সুলতানাবাদ ইউনিয়নে চেয়ারম্যার, মোহনপুর ইউনিয়নে ১নং …

vv