ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় শহরাস্তি / শাহরাস্তিতে স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে স্বামী আটক

শাহরাস্তিতে স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে স্বামী আটক

শাহরাস্তি প্রতিনিধি : শাহরাস্তিতে স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে স্বামীকে আটক করেছে শাহরাস্তি থানা পুলিশ। স্বামী শাহ আলমকে চাঁদপুর কোটে প্রেরণ করা হয়েছে।

অভিযোগের আলোকে জানা যায়, শাহরাস্তি উপজেলার খেড়িহর গ্রামের বাবুপুর ভুইয়া বাড়ির শাহ আলম প্রায় ২০ বছর পূর্বে এলাকার পরান বেগম কে বিবাহ করেন। বিবাহের পর শাহ আলম বিদেশে চলে যায়। এরপর প্রতি বছরই শাহ আলম ২ মাসের ছুটিতে বাড়িতে আসেন।

গত ৫ বছর পূর্বে শাহ আলম চট্রগ্রামে তার সৎমায়ের কাছে বেড়াতে গিয়ে জান্নাত বেগমের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলেন এক প্রর্যায়ে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। শাহ আলম বিবাহের কথা কাউকে না জানিয়ে আবার বিদেশে চলে যায়। গত ৩ বছর পূর্বে সে বাড়িতে এসে দ্বীতিয় স্ত্রী জান্নাত বেগম কে শাহরাস্তিতে নিয়ে আসেন, প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ব্যাতিত দ্বীতিয় বিবাহ করায় স্থানিয় ভাবে বিষয়টি সমাধান করা হয়। শাহ আলম তার দ্বীতিয় স্ত্রীকে তার বাসার দ্বীতিয় তলায় থাকার ব্যবস্থা করে দেয়। বর্তমানে শাহ আলম তার দ্বীতিয় স্ত্রীকে নিয়ে বাসার দ্বীতিয় তলায় বসবাস করছে।

ঘটনার দিন গত ২ জুন রাতে তার প্রথম স্ত্রীর সন্তান খাবারের জন্য তার বাবার কাছে গেলে তার বাবা শাহ আলম মেয়েকে চলে যেতে বলে এক প্রর্যায়ে শাহ আলম ক্ষিপ্ত হয়ে বাসার নিচে এসে তার প্রথম স্ত্রীকে মারধর শুরু করে। এতে প্রথম স্ত্রী পরান বেগম আহত হয়ে পড়েন। সকালে পরান বেগম চিকিৎসার জন্য শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে হাসপাতালে ভর্তি করান।

কোন প্রকার সু-বিচার না পাওয়ার সম্ভাবনা থাকায় পরান বেগম স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর(অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম মহোদয়কে ফোন করেন। এমপি মহোদয় এবিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য থানাকে নির্দেশ প্রধান করেন বলে পরান বেগম জানান।
এরপরই শাহ আলম ও তার দ্বীতিয় স্ত্রী জান্নাত বেগমের বিরুদ্ধে শাহরাস্তি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করা হয়। মামলা হওয়ার পর শাহরাস্তি থানা পুলিশ প্রধান আসামী শাহ আলমকে আটক করে।

পরান বেগম জানান, তার স্বামী দ্বিতীয় বিবাহ করার পর তাদের উপড় নির্যাতন করে আসছে। তার তিন সন্তানকে ঠিক মতো ভরন পোষন না দিয়ে ২য় স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করছে।

তিনি আরো জানান, প্রায়ই তার স্বামী তাকে মারধর করে, এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের কাছে ধর্ণা দিয়েও কোন সু-বিচার পাননি। স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী লোকের ক্ষমতা দেখিয়ে তার উপড় নির্যাতন চালিয়ে থাকেন। পরান বেগম জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য মোতাহের হোসেন, সবুজ, দুলাল মেম্বার, সোয়েব দেওয়ান, তারেক মেম্বার ও আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ার হোসেনের দাপট দেখিয়ে তার স্বামী তাকে মারধর করে ।

শাহ আলমের দ্বীতিয় স্ত্রী জানান, তার স্বামী পরান বেগম কে বাজার খরচের টাকা দিয়ে থাকেন। পরানের বিরুদ্ধে তিনি চারিত্রিক অভিযোগ তুলেন।

বর্তমানে পরান বেগম তার তিন সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছেন। ঘটনার পর পরান বেগম কে খাদ্য সহায়তা দিতে এগিয়ে এসেছেন ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম ও ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতি সোহেল রানা।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তি চিতোষী সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয় স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাপ্তরিক সেবা প্রদান

শাহরাস্তি প্রতিনিধি : শাহরাস্তির চিতোষী সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয় সামাজিক দুরুত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাপ্তরিক কার্যক্রম …

vv