ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / শাহরাস্তিতে সুশ্রী গৃহবধূ রিয়া মনির মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল

শাহরাস্তিতে সুশ্রী গৃহবধূ রিয়া মনির মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল

মো. মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৫অক্টোবর) রাতে শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউপির ইছাপুরা গ্রামের নলুয়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে । ওই রাতে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে আসে। পরে শুক্রবার (১৬অক্টোবর) চাঁদপুর সরকারি মেডিকেল হাসপাতালে নিহত ওই গৃহবধূর মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে তার স্বজনদের নিকট বিকেলে মরদেহ বুঝিয়ে দেওয়া হয়।। এছাড়া অভিযুক্ত ৪ জন আসামির মধ্যে ৪জনকেই আটক করেছে পুলিশ।

নিহত গৃহবধূর পরিবার,পুলিশ ও স্থানীয় সুত্র জানায়, ২০১৭ সালে কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার জোয়াগ ইউপি’র কৈইলান গ্রামের পূর্ব গাজী বাড়ির আলী হাসান (৫০) একমাত্র কন্যা হাবিবা আক্তার রিয়া মনি (২০) বিয়ে দেওয়া হয়। চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউপি’র ইছাপুরা গ্রামের নলুয়া বাড়ির হারুনুর রশিদের (৫৫) পুত্র মহিউদ্দিন (২৬) সাথে।

রিয়া মনির একমাত্র ভাই রিয়াদ আহমেদ (২২) জানান, আমার বোন ‘‘সুন্দরী’’ দেখে তার শ্বশুরালয়ের লোকজন কোন কিছু দাবী ছাড়াই বিয়ে করে তাকে বউ হিসেবে স্বামীর বাড়িতে তুলে নেয়। তারপর আমরা তাকে প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র উপঢৌকন প্রদান করি। এভাবেই তাদের সংসার চলছিল বেশ। বিয়ের কিছুদিন যেতে তার স্বামী মহিউদ্দিন আমার বোন মনিকে নিয়ে ঢাকায় জিগাতলা এলাকায় তার কর্মস্থল (মুদি দোকান ব্যাবসার কাজে) বসবাসের জন্য নিয়ে যায় । ২০১৯ সালে ২৮জুলাই মাসে তাদের কোল জুড়ে নাফিসা তাবাসসুম মাহিরা নামের একটি কন্যা সন্তান আসে ।

সমপ্রতি কোভিড- ১৯ বিস্তারে মহিউদ্দিন তার পরিবারের নিরাপত্তায় স্ত্রী-সন্তানকে দেশের বাড়িতে রেখে যায়। সে থেকে রিয়া মনি শ্বশুরআলয়ে শ্বশুর-শাশুড়ি-ননদের সঙ্গে বসবাস করে আসছিল। স¤প্রতি শ্বশুরালয়ের লোকজন রিয়ার মনির পরিবারকে যৌতকের টাকার জন্য চাপ দেয়। ওই হিসেবে একমাত্র মেয়ের সুখের চিন্তা করে মসজিদের ইমাম পিতা আলী হাসান দেড় লক্ষ টাকা ওই পরিবারের লোকজনকে দিয়ে দেন। তারপরও গত কয়েক মাস ধরে রিয়া ফোন দিয়ে তার মায়ের সঙ্গে এখানে বিয়ে দেওয়া কারণ নিয়ে নানা প্রশ্ন তোলেন ? এছাড়া ওই পরিবারের ননদ হাসনা আক্তার এর অসংলগ্ন আচরণ হজম করতে কষ্ট হচ্ছিল বলেও জানায় সে। এভাবে রিয়া তার মায়ের সঙ্গে শেষ কথা টুকু বলেন। অবশেষে বৃহস্পতিবার রাতে শ্বশুরালয়ের শ্বশুর হারুনুর রশিদ ও তার স্ত্রী শ্বাশুড়ি আয়েশা বেগম (৪৫) ননদ হাসনা আক্তার কোন এক জায়গা হলুদ অনুষ্ঠানে যায় । সেখান থেকে ফিরে এসে গৃহবধূ রিয়া মনির ঘরের দরোজা বন্ধ দেখে তা খুলে তাকে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলতে দেখে। পরে বিষয়টি স্থানীয়দের মাধ্যমে শাহরাস্তি থানা পুলিশ অবগত হয়ে মনির মরদেহ থানা হেফাজতে নিয়ে আসে।

শুক্রবার ১৬ অক্টোবর পুলিশ চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য নিহত গৃহবধূর মরদেহ প্রেরণ করে। পরিবারের সদস্যরা মুঠোফোনে জানান,আজ রাতেই বাদ এশা চান্দিনায় নিজগ্রাম গাজী বাড়িতে রিয়া মনির দাফনের কথা রয়েছে। এদিকে ওই ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে এনে একটি মামলা দায়ের করেছেন নিহতের মা রেহেনা বেগম,যার মামলা নং ১৩/ তাং ১৬.১০.২০।

এদিকে শাহরাস্তি থানা পুলিশ ওই ঘটনায় নিহত গৃহবধূর স্বামী মহিউদ্দিন (২৬)শ্বশুর হারুনুর রশিদ (৫৫) শ্বাশুড়ি আয়েশা বেগম (৪৫) ননদ হাসনা আক্তার (১৭) আটক করে ।শাহরাস্তি থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ শাহআলম এলএলবি জানান, নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে আত্মহত্যার প্ররোচনার একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

ময়না তদন্ত রিপোর্টে এলে পরবর্তীতে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বিষয়টি অগ্রসর হবেএদিকে সুন্দরী সুশ্রী গৃহবধূ রিয়া মনি হঠাৎ করে তার ১৫ মাসের অবুঝ শিশু কন্যা নাফিসা কে রেখে কি কারনে আত্মহননের পথ বেছে নিল এ নিয়ে এলাকায় ধূম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে।

Facebook Comments

Check Also

সকল জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন শতভাগ করতে হবে : আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান

সজীব খান : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদের এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের মাস্ক, সাবান, ব্লিচিং, …

vv