ব্রেকিং নিউজঃ
Home / অপরাধ / শাহরাস্তিতে সম্পত্তি দখল নিতে দু’পক্ষের ঠান্ডা লড়াই

শাহরাস্তিতে সম্পত্তি দখল নিতে দু’পক্ষের ঠান্ডা লড়াই

স্টাফ রিপোটার : আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা, আর দুই পক্ষের মধ্য মামলা পাল্টা মামলাসহ নানাহ জটিলতার বেড়াজালে জড়িয়ে পড়েছে দুই পক্ষ। ঘটনাটি ঘটেছে শাহরাস্তি উপজেলার সুচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের শোরসাক দক্ষিন বাজার চেড়িয়ারা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায়।

এক পক্ষের মালিক সোহরাব হোসেন দুলাল, জানান, বির্তকীত সম্পত্তি শোরসাক ১০৫ নং মৌজার বি.এস ৪২৭ নং খতিয়ানের বি.এস দাগ ৫১১৯ নালে ৬শতক এবং ৪১২ খতিয়ানের ৫১১৮ দাগে নাল ১৫শতক একুনে মোট ২১শতক সম্পত্তি স্ত্রী মোসাম্মৎ পারভীন আক্তার (বেবী)(৫৭) নামে গত ৬ জুলাই ১৯৯৪ তারিখে ক্রয় করে।

পারভীন আক্তার বেবী শাহরাস্তি সাব রেজিস্ট্রি মোকামের ২৬৭৯/৯৪ ইং সাবকবলা দলিল মূলে মালিক ও দখলকার নিয়োজিত হন এবং ওই সম্পত্তির উপর গাছ গাছালি রোপন করে তা রক্ষনা বেক্ষন করতে সম্পত্তির উপর একচালা টিন সেটের একটি ঘর উত্তোলন করেন।

গত ৩০ আগস্ট ২০২০ রবিবার সকাল ৮টায় আমার স্ত্রী পারভীন আক্তার ওই সম্পত্তিতে উন্নয়নমূলক কাজ করার সময় শোরসাক গ্রামের মৃত মো.সেকান্দর আলী তালুকদারের পুত্র মো. তৈয়ব আলী তালুকদার, মৃত নুরুল ইসলাম পাটওয়ারীর পুত্র মো. জসীম উদ্দিন পাটওয়ারী, জ্যাঁ শাহিনুর আক্তার, দেবর মো.সেলিম হোসেন খান, আজাদ হোসেন খান, জাকির হোসেন খান, আমির হোসেন খান, মাসুদ হোসেন খান, ননদ পারভীন আহম্মদ, সালমা আক্তার নালিশি সম্পত্তিতে জোরপূর্বক অনধিকার প্রবেশ করে কাজে বাঁধা দেয় এবং আমাকে ও কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের হুমকী ধমকি দেয়। এতে আমি ও আমার স্ত্রী তাদের বাধা দিলে প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত ও রাগাম্ভিত হয়ে আমাদের মারার জন্য উদ্যত হয়। তারা নালিশি সম্পত্তি যে কোন মূল্যে দখলে নিবে বলেও হৃমকী দেয়। তখন আশ পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে প্রতিপক্ষরা চলে যায়।

এই সম্পত্তি নিয়ে যে কোন সময় খুনসহ সম্পত্তিতে অনধিকার প্রবেশ করতে না পারে ও আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটাতে না পারে মর্মে পারভিন আক্তার বেবী বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চাঁদপুরে ফৌঃকাঃবিঃ আইনের ১৫৪ধারার বিধান মতে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে প্রসেডিং স্থাপন করতে নালিশী সম্পত্তিতে নিষেধাজ্ঞার আদেশ দিতে আবেদন করে। বিজ্ঞ আদালত নালিশী সম্পত্তির মালিকানা ও দখল সম্পর্কে সরজমিন পরিমাপ, স্কেচম্যাপসহ তদন্তক্রমে আগামী ২ ডিসেম্বর/২০২০ তারিখের পূর্বে প্রতিবেদন প্রেরনের জন্য শাহরাস্তি উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মহোদয়কে নির্দেশ দেন। সোহরব হোসেন দুলাল আরো জানান, বিজ্ঞ আদালতে আবেদনের পরে রাতের বেলায় লোকচক্ষুর আড়ালে নালিশী সম্পত্তিতে তাদের দখল দেখাতে বালি ফেলে বির্তকের সৃষ্টি করে।

অপর দিকে মো. তৈয়ব আলী তালুকদার জানান, নালিশী এই সম্পত্তির মালিক মৃত রুস্তম আলী খানের ৫পুত্র ২ কন্যা। ভাই বোনদের সবাইর বড় সোহরাব হোসেন দুলাল। নালিশী সম্পতি ৫ভাই ও ২বোনের নামে খারিজ হয়। সোহরাব হোসেনের ভাই সেলিম হোসেন খান হিস্যানুযায়ী স্ব স্ব নামে খারিজ অনুযায়ী নিজ দুই ভাই ও এক বোনের অংশ সাড়ে সাত শতক সম্পত্তি পাওয়ার অব এ্যার্টনি নেয়। পাওয়ার বলে সাড় সাত শতক সম্পত্তি সেলিম খান মালিক হয়ে তার স্ত্রী শাহিনুর বেগমের নামে সাবকাবলা করে দলিল দেয়।

পরবর্তীতে স্ত্রী শাহিনুর বেগম সাড়ে সাত শতকের মালিক হয়ে ওই সাড়ে সাত শতক সম্পত্তি স্বামী সেলিম খানকে হেবা দলিল মুলে দিয়ে দেয়। এতে সেলিম খান তার হিস্যা প্রাপ্ত ৩ শতক আর স্ত্রীর দেয়া সাড়ে সাত শতক সর্ব মোট সাড়ে দশ শতক সম্পত্তির মালিক ও দখলকার হয়। সেলিম খান সুস্থ্য মস্তিষ্কে ও স্বজ্ঞানে আমাকে তার মালিকিয় সাড়ে দশ শতক সম্পত্তি পাওয়ার অব এ্যার্টনি দলিল দেয়। এতে আমি তৈয়ব আলী তালুকদার পাওয়ার দলিল মুলে মালিক ও দখলকার হই এবং রয়েছি। যে একচালা টিন সেটের কথা বলা হয়েছে ওই টিন সেট ঘরটি সোহরাব হোসেন দুলাল হতে আমি ক্রয় করি। যাহার প্রমানপত্র রয়েছে।

অপরদিকে স্থানীয়রা বলছে এই সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘ দিন সোহরাব হোসেন দুলালের মা ও অপরাপর ভাই বোনদের সঙ্গে পারিবারিক সমস্যা রয়েছে। সমস্যা সমাধান না করে নালিশী সম্পত্তির উপর তিনি মাকেটে পাকা ভবন নির্মণ করে আসায় এই বির্তকের সৃষ্টি। দ্রুত সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ব্যাবস্থা না নিলে এলাকায় রক্তপাতের মত জগন্যতম ঘটনা ঘটতে পারে এবং আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতি ঘটতে পারে।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে দিনশেষে সিএনজি চালক ইমরানের বাড়ি ফেরা হলোনা

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দিনভর সিএনজি থ্রি হুইলার চালিয়ে চালক ইমরানের আর বাড়ি …

Shares
vv