ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় শহরাস্তি / শাহরাস্তিতে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতীয় দিবস উদযাপন

শাহরাস্তিতে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতীয় দিবস উদযাপন

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে।

২৬ শে মার্চ শুক্রবার উপজেলা কমপ্লেক্স এলাকার মাঠে (প্রত্যুষে) ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে পরিষদ চত্বরে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে স্থাপিত স্মৃতিস্তম্ভে (কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে) প্রথম প্রহরে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে দিবসের সূচনা হয়।

এদিকে দিনের প্রথম প্রহরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের উপজেলা পরিষদ থেকে নির্বাহি অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার এবং স্থানীয় সাংসদ মেজর অবঃ রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের পক্ষে উপজেলা নির্বাহি অফিসার ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) উম্মে হাবিবা মীরা, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কচুয়া সার্কেল আবুল কালাম চৌধুরী, শাহরাস্তি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুল মান্নান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কামরুন্নাহার কাজল, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল মজুমদার, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ কামরুজ্জামান মিন্টু, প্রেসক্লাব সভাপতি কাজী হুমায়ুন কবির, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুদ রানা শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এছাড়াও রাজনৈতিক দলের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি, মুক্তিযুদ্ধা সংসদ, শাহরাস্তি মডেল থানা,পৌরসভা, জাতীয় পার্টি, পল্লী বিদ্যুৎ, ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স, শাহরাস্তি প্রেসক্লাব ও রিপোর্টার্স ইউনিটি, অপরূপা নাট্যগোষ্ঠী, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ, শাহরাস্তি উপজেলা হোমিওপ্যাথিক কলেজ শিক্ষক নেতৃবৃন্দ, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ, আনসার ভিডিপির কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এবারের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান,বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনগুলো দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। যার মধ্যে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সীমিত সংখ্যক সদস্যদের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশ শাহরাস্তি মডেল থানা, আনসার ভিডিপি, ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স, একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্কাউটের সদস্যদের অংশগ্রহণে কুচকাওয়াজ ও প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ জহিরুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্যারেড কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, শাহরাস্তি থানার সাব-ইন্সপেক্টর মোঃ কামাল হোসেন।

ওইদিন উপলক্ষে সকাল ১১ টায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যগণের সংবর্ধনা ও এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় । এতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরিন আক্তারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, নৌ-পরিবহন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেজর অবঃ রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি।

তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্য করে তার বক্তব্যে বলেন, ১৯৭১ সালে আজ থেকে ৫০ বছর পূর্বে যারা স্বদেশকে মুক্ত করতে জীবন বিসর্জন দিয়েছিলেন আজকের এই দিনে তাদেরকে বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করছি। তাদের আত্মার বিনিময়ে আমরা পরাধীনতার শৃংখল থেকে মুক্ত হয়েছি। তাই আগামী দিনে তথা নতুন প্রজন্মকে একটি বাসযোগ্য এবং সমৃদ্ধশালি রাষ্ট্র বিনির্মানে আমাদেরকে কাজ করতে হবে। তাহলে স্বাধীনতার এই সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন সার্থক ও সফল হবে। আসুন আমরা আগামী দিনে ‘‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার’’ যে উন্নয়ন রোডম্যাপ হাতে নিয়েছেন তা সফল করি।

এরপরেই উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা শিরিন আক্তার মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে নিজ হাতে ফুল দিয়ে তাদের (মুক্তিযোদ্ধাদেরকে) সিক্ত করেন। পরে প্রত্যেকটি মুক্তিযোদ্ধাকে ভালোবাসার ফল স্বরূপ একটি করে ছাতা উপহার দেন তিনি।

এদিকে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সভাপতির ভাষণে মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধে যাদেরকে হারিয়েছি আজ তাদের আত্মার জন্য শান্তি কামনা করি,নতুন প্রজন্মকে একটি সন্দুর রাষ্ট্র দেওয়া হবে আমাদের অঙ্গীকার। ওই সময় মুক্তিযুদ্ধাদের পক্ষে শাহরাস্তি মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মোঃ শাহজাহান পাটোয়ারী, মুক্তিযুদ্ধা মহসিন মজুমদার, মুক্তিযুদ্ধা আহসান হাবীব বক্তব্য রাখেন। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কামরুন্নাহার কাজল, শাহরাস্তি থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি আবদুল মান্নান,উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা কামাল মজুমদার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মমিম, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ চৌধুরী, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ লুৎফুর রহমান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ সবুজ, কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আহসান হাবীব, সমাজসেবা কর্মকর্তা আবু ইসহাক, আইসিটি কর্মকর্তা মোঃ শাহজাহান,প্রানি সম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মাকসুদুল আলম, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আব্দুল আউয়াল,উপজেলা নির্বাহি অফিসারের কার্যালয় সিএ শাহাবুদ্দিন, মাসুদ আলম।

অন্যান্য অতিথির মধ্যে,মেহার ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মিজানুর রহমান, সুচিপাড়া ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির, ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের মধ্যে জোবায়েদুল কবির বাহাদুর, মোঃ রুহুল আমিন, মোঃ মনির হোসেন।

পরে আগতদের আপ্যায়নের মধ্যে কর্মসূচি শেষ হয়। এদিকে দিনব্যাপী কর্মসূচিতে উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল নেতাকর্মী, গণমাধ্যমকর্মী সামাজের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

Facebook Comments

Check Also

কচুয়া সড়কে বোনের নাতির ঈদের কাপড় দিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন দাদি

মোঃ রাছেল, কচুয়া : বোনের নাতির জন্যে ঈদ উপহার দিয়ে বাড়ি অন্য বোনের বাড়িতে যেতে রওনা …

Shares
vv