ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় অনুসন্ধান / শাহরাস্তিতে প্রেমিকের সাথে উধাও ৩ সন্তানের জননী
প্রতীকী ছবি

শাহরাস্তিতে প্রেমিকের সাথে উধাও ৩ সন্তানের জননী

স্টাফ রিপোর্টার : দীর্ঘ ২২ বৎসরের সংসার জীবনের ইতি টেনে পরকীয়া প্রেমিক সিএনজি চালক জামাল হোসেন (৪৫) সাথে ঘর ছেড়েছেন বাহার বেগম জেসমিন(৩৫) নামে ৩ সন্তানের জননী। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় এলাকা জুড়ে চরম সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, শাহরাস্তি পৌরসভাধীন ৭ নং ওয়ার্ডের নিজমহার মাউদ আলী বাড়ির মৃতঃ আবদুল মমিনের পুত্র ২ সন্তানের জনক সিএনজি চালক জামাল হোসেন( ৪৫) সাথে একই ওয়ার্ডের নিজমেহার গ্রামের সিকদার বাড়ীর মৃতঃ ওবায়দুল হকের পুত্র প্রবাসী মিজানুর রহমানের স্ত্রী ৩ সন্তানের জননী বাহার বেগম জেসমিন (৩৫) সাথে পরকীয়া প্রেমিকের সাথে ঘর ছেড়েছন।

পরকীয়া প্রেমিক জামাল হোসেনের ১৯ বছরের একটি পুত্র ও ১ ১৪ বছরের ১ কন্যা রয়েছে। অপরদিকে গৃহবধূ বাহার বেগম জেসমিনের ২১ ও ১৫ বছরের দু’টি ছেলে এবং ৩ বছরের একটি শিশু কন্যা রয়েছে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর বাহার বেগম ৩ বৎসরের শিশু কন্যাকে নিয়ে পরকীয়া প্রেমিক জামাল হোসেনের হাত ধরে উপযুক্ত সন্তান ও ২২ বৎসরের সংসার জীবনের মায়া ত্যাগ করে উধাও হন।

জানা যায়, ১৯৯৮ সালে পৌরসভাধীন ৭ নং ওয়ার্ডের সিকদার বাড়ীর মৃতঃ ওবায়দুল হকের পুত্র মিজানুর রহমানের সাথে রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের ফটিকখিরা গ্রামের আবদুল মতিনের কন্যা বাহার বেগম জেসমিনের সাথে পারিবারিক ভাবে বিবাহ সম্পন্ন হয়। দীর্ঘ ২২ বৎসর যাবৎ সংসার জীবনে তাদের ঘর আলো করে আসে ১ পুুত্র ও ১ কন্যা সন্তান। কিন্তুু বাধ সাধে পাশ্ববর্তী বাড়ীর সিএনজি চালক ২ সন্তানের জনক জামাল হোসেনের সাথে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক।

এ বিষয়ে সিএনজি চালক জামাল হোসেনের পুত্র রাজু (১৯) জানান, পিতার এহেন কর্মকান্ডে আমরা লজ্জিত। আমার ছোট বোন ও মা কে নিয়ে বহু কষ্টে অনাহারে অর্ধঃহারে দিনযাপন করছি।

এ বিষয়ে বাহার বেগম জেসমিনের ভাই হারুনুর রশীদ জানান, আমাদের সাথে এ বোনের কোন পারিবারিক সম্পর্ক নেই। তিনি সম্পর্ক ছিন্ন করে তার হিস্যার সম্পওি নিয়ে বিক্রি করে ফেলেছেন। তার বিষয়ে আমরা কিছুই জানিনা।

এ বিষয়ে মিজানুর রহমানের ভাই মোঃ হাসান জানান, বাহার বেগম জেসমিন ও জামাল হোসেন এ নিয়ে ৩ বার পালিয়েছেন। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার বৈঠকের সিদ্ধান্ত হলেও সিএনজি চালক জামাল বৈঠকে উপস্থিত না হয়ে হুমকী দুমকী দিয়েছেন। বাহার বেগম তার বাবার বাড়ী থেকে যে সম্পওি বিক্রি করে এনেছেন তার সমুদয় টাকা জামাল আত্মসাৎ করার জন্য এ কর্মকান্ড করছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, বাহার বেগমের ভাই হারুনুর রশীদ ও অপর ভাইয়েরা তার প্রকৃত সম্পওির হিস্যা ও বিক্রয়কৃত সম্পওির ন্যাযমূল্য পরিশোধ না করায় বাহার বেগম রাগে ক্ষোভে অভিমানে এহেন কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়েছেন। স্থানীয় সচেতন মহল সামাজিক অবক্ষয় রোধ ও সমাজের আইন শৃংখলা রক্ষায় স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক কঠিন শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুরে অনুমোদনহীন অবৈধ শিপইয়ার্ডে পরিবেশ দূষণ, কর্তৃপক্ষ উদাসীন

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরে অনুমোদনহীন ভাবে ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে গড়ে উঠেছে অবৈধ শিপইয়ার্ড ও ডকইয়ার্ড। এতে …

vv