ব্রেকিং নিউজঃ
Home / সম্পাদকীয় / শাহরাস্তিতে পুত্রের হাতে পিতা খুন! ঘাঁতকের দুই এনআইডির রহস্য কী?

শাহরাস্তিতে পুত্রের হাতে পিতা খুন! ঘাঁতকের দুই এনআইডির রহস্য কী?

শাহরাস্তিতে পুত্রের হাতে খুন হলো পিতা আর আহত হলো মা। এতো দ্রুত সময়ের মধ্য ঘাঁতক পুত্রকে গ্রেফতার করলো পুলিশ। পুলিশকে অসংখ্য ধন্যবাদ। ঘাঁতকের বাড়ির লোকজন বলছে ঘাতক পুত্র মানষিক রোগী।
শাহরাস্তি পুলিশ অফিসার ইনচার্জ শাহ্ আলমের বরাত দিয়ে স্থানীয় পত্রিকায় লিখেছেন, এমরান হোসেন একজন মানষিক রোগী বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছেন।
শাহরাস্তি থানায় ঘটনাকারী এমরান হোসেন প্রকাশ আকবর আলির (৪০) বিরুদ্ধে তাঁর ছোট ভাই সোলেমান বাদি হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করছে। বাদিরও কথা, বড় ভাই এমরান মানষিক রোগী।
জানাযায়, প্রায় ১৩ বছর আগে বড় ভাইকে বিয়ে করানো হয়। তাঁর সংসারে এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তান রয়েছে। তাঁর পাগলামীতে সন্তান রেখে স্ত্রী পিত্রালয়ে চলে যায়। এমরানের বৌ পাগলামী বেপরোয়া হয়ে উঠার ফল পিতা হত্যা আর মা আহতের বহিঃপ্রকাশ হতে পারে বলে কেউ কেউ ধারণা করছে।
ঘাঁতক মোঃ এমরান হোসেন ও মোঃ আকবর হোসেন নামে দুইটি জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) তৈরি করা হয়। এই দুই এনআইডির রহস্য কী? এলাকায় গুঞ্জন উঠছে নিহত চেরাগ আলীর বাড়ি ও নালে প্রায় ২/৩একর সম্পতি রয়েছে, এ সম্পত্তি কুক্ষিগত করতে তৃতীয় কোন সূত্র কাজ করছে কি না বলে মন্তব্য করছে।
আমাদের প্রত্যাশা সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ঘাঁতক এমরানের চিকিৎসা করে নিখুঁত তদন্তের মাধ্যমে দ্রুত রহস্য উদঘাটনের মাধ্যমে আইনের সু-শাসন প্রতিষ্ঠা করা হউক।
Facebook Comments

Check Also

এমপি’র মহানুভাবতায় দৃষ্টিহীন পেলো বাসস্থান ও নগদ অর্থ

চোখ থেকেও এই সমাজের অধিকাংশ লোক অন্ধ। আমরা নিজে বিশিষ্ট্য সমাজ সেবক, দানবীর, বড় বড় …

vv