ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বাংলাদেশ / শাহরাস্তিতে পুত্রবধূকে বাঁচাতে গিয়ে শাশুড়ি হামলার শিকার

শাহরাস্তিতে পুত্রবধূকে বাঁচাতে গিয়ে শাশুড়ি হামলার শিকার

শাহরাস্তিতে পুত্রবধূকে বাঁচাতে গিয়ে সত্তরোর্ধ্ব শাশুড়ি মারধরের শিকার হয়েছেন। উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের শিবপুর তালুকদার বাড়িতে গত ১০ মে দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহতদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও আহতদের পরিবার সূত্র জানা যায়, ওই বাড়ির প্রবাসী রুহুল আমিনের পুত্র শাখাওয়াত (২২) মানছুরা বেগমের (৭২) পুত্রবধূ ফাতেমা আক্তার সীমার ওপর হামলা চালায়। ফাতেমার ডাক চিৎকারে শাশুড়ি ছুটে আসলে শাখাওয়াত তাকেও মারধর করে।

হামলার শিকার ফাতেমা আক্তার সীমা (২০) জানান, আমি কাজ করছিলাম হঠাৎ করে শাখাওয়াত আমার চুলের মুঠি ধরে মারধর করে। আমার চিৎকার শুনে আমার শাশুড়ি আমাকে বাঁচাতে আসলে সে তাকে মারধর করে। ওই বাড়ির জামালের স্ত্রী সেলিনা বেগম (৩০) জানান, হঠাৎ করে আমার ঘরের পাশে কান্নার শব্দ পেয়ে আমি ঘর থেকে বের হয়ে দেখি শাখাওয়াত ফাতেমাকে মারধর ও গালমন্দ করছে। কামালের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৩২) জানান, কয়েক দিন পূর্বে আমাদের ওপরও হামলা করছে। সঠিক বিচার না হওয়ায় আজকে বৃদ্ধা মহিলার গায়ে হাত দেয়ার সাহস পায়। আমরা তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। ইউসুফের স্ত্রী রুবি আক্তার (২০) জানান, আমরা মহিলা, আমরা কি পুরুষের সাথে মারামারি করতে পারি, আমাদের পরিবারের পুরুষ লোক বাড়িতে নেই। আমরা আজ অসহায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমাদের ঘর-দরজা ভাংচুর করে। আমরা হামলাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। যাতে করে কোন অসহায় নারী বৃদ্ধার প্রতি হামলার সাহস না পায়। আমরা আতঙ্কে আছি, জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমরা পুলিশ সুপারের দৃষ্টি কামনা করি। ইয়াছিনের স্ত্রী সালেহা (৩০) জানান, মহিলা দেখে আজ আমরা মারধরের শিকার হচ্ছি, আমার স্বামী প্রবাসে থাকে পরিবারে পুরুষ সবাই প্রবাসে, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সে বিগত দিনে আমাকে হত্যার জন্য দা নিয়ে দৌঁড়ায়, অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যাই। আমার শাশুড়িকে মারধর করে। সামাজিকভাবে বিচার না হওয়ায় আজ তার সাহস বেড়ে গেছে। আমাদের হুমকি দিচ্ছে আমাদের মেরে ফেলবে। আমরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করি।

শাখাওয়াতের পিতা প্রবাসী রুহুল আমিন মুঠোফোনে জানান, আমার ছেলে অন্যায় করেছে। বৃদ্ধাকে মারধর করা এটা সে ঠিক করে নি। শাখাওয়াতের মা পারভীন বেগম (৫০) জানান, আমি খুবই অসুস্থ, ছেলেকে নিষেধ করছি ঝগড়া না করার জন্য।

সূত্র: দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠ

Facebook Comments

Check Also

ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরন দাবিদারদের ৬২ লক্ষাধিক টাকার চেক হস্তান্তর

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুর জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান উপজেলা ও ইউনিয়ন সড়কে দীর্ঘ …

vv