ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / শাহরাস্তিতে জমে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ, কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ

শাহরাস্তিতে জমে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ, কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ

স্বপন কর্মকার মিঠুন : কোভিড-১৯ (করোনা মহামারি) উপেক্ষা করে জমে উঠছে নির্বাচনী মাঠ। আর মাত্র ৭দিন বাকি অর্থাৎ ২৮ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্রথম শ্রেণী শাহরাস্তি পৌরসভার নির্বাচন। নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই ভোটাদের মাঝে উৎসাহর পাশা পাশি উৎকন্ঠার কমতি নেই। মেয়র ও কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলররা র্নিঘুম থেকে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট চাইছে। কর্মীরা স্ব-স্ব প্রার্থীর পক্ষে তাদের পরিচিতি ও যোগ্যতাসহ নানাহ ফিরিস্তি তুলে ধরে নিজের প্রার্থীকে বিজয় করতে আদা-জল খেয়ে মাঠে নেমেছে।

শাহরাস্তি পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী। বিএনপির দুই প্রার্থী। বিএনপির ঘরের আগুনে নিজেরাই অত্মহত্যার পথে চললেও আওয়ামীলীগ সেই ভুল না করে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকা প্রতীককে বিজয় করতে কোমর বেধেঁ মাঠে নেমেছেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডে সরজমিন গেলে সাধারণ ভোটাররা জানান, এবার মেয়র পদে ত্রিমুখী লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এবার পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী শাহরাস্তি উপজেলা আওয়ামীলীগের উন্নয়ন সমস্বয় কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ও পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক এবং বর্তমান মেয়র হাজী আব্দুল লতিফ (নৌকা), বিএনপির মনোনীত প্রার্থী পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মো. ফারুক হোসেন মিয়াজী (ধানের শীর্ষ) ও পৌরসভার সাবেক মেয়র এবং উপজেলা বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব মো. মোস্তফা কামাল (মোবাইল) বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

৩জন মেয়র, ৫১জন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ১৩ জনসহ মোট ৬৭ জন প্রার্থী পৌর নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। এই পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ২৮হাজার ৬শত ২৩ জন। এর মধ্য পুরুষ ১৪ হাজার ১শত ২৯ জন ও মহিলা ১৪ হাজার ৪শত ৯৪ জন ভোটার। এবার ভোটাররা প্রথম বারের মতো ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিবে। দিন যত ঘনিয়ে আসছে প্রার্থীরা ততই তাদের কৌশল পদ্ধতি পরিবর্তন করে সামনে এগুচ্ছে। আওয়ামীলীগের মনোনীত একক প্রার্থী বর্তমান মেয়র উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রধান উন্নয়ন সমন্বয়ক ও পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক হাজী আব্দুল লতিফ নৌকা প্রতীক নিয়ে নিবার্চনী মাঠ চষে ভেড়াচ্ছেন। তার সাথে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমীকলীগ, আওয়ামী মহিলা লীগসহ বিশাল কর্মী বাহীনি। এছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহম্মদ ভূইয়া ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা যুবলীগ সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ সকল নেতার আর্শীবাদ রয়েছে।

আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতীক মেয়র প্রার্থী হাজী আব্দুল লতিফ ভোট ও দোয়া নিচ্ছেন। পাশে বিএনপির মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব মো. ফারুক হোসেন মিয়াজী ভোটারদের কাছে ভোট চাচ্ছেন।

অপর দিকে পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ ফারুক হোসেন মিয়াজী ধানের শীর্ষ প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচনী মাঠে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট চাচ্ছেন। তার সাথে রয়েছেন উপজেলা বিএনপি, যুবদলের ও ছাত্রদলের এবং শ্রমীকদলের একাংশ। এছাড়া তার পক্ষে জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও হাজিগঞ্জ-শাহরাস্তি উপজেলা বিএনপির প্রধান সমন্বয়ক লায়ন ইঞ্জিরিয়ার মমিনুল হকসহ জেলার একাদিক নেতা। অপর দিকে উপজেলা বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব এবং সাবেক মেয়র মো. মোস্তফা কামাল ঘরে বসে সেই তিনি মাঠ চষে ভেড়াচ্ছে। তার পক্ষে রয়েছেন বিএনপির একাংশ, যবদল,ছাত্রদল ও শ্রমীকদলের একাংশ।

পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ১২টি ওয়ার্ডে পোস্টারে পোস্টারে ডেকে গেছে এলাকা। নৌকা প্রতীক প্রার্থীর সমর্থক ও নেতা-কর্মীরা বলছেন, নৌকার গণজোয়ার বহিছে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে পৌরবাসী এবারো নৌকা প্রতীক প্রার্থীকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন বলে তারা আশাবাদী। ধানের শীর্ষ প্রতীক প্রার্থী ফারুক মিয়াজীর সমর্থকরা জানান, ভোটাররা যদি ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে তা হলে ধানের র্শীষের বিজয় ঠেকাতে পারবে না। বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মোস্তফা কামালের সমর্থকরা বলছেন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু ভাবে নির্বাচন হলে পৌরবাসী মোবাইল প্রতীকে বিপুল ভোট দিয়ে জয়লাভ করাবে।

Facebook Comments

Check Also

হাজীগঞ্জে বহু মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি জামায়াত নেতা আতাউল করিম গ্রেপ্তার

বিশেষ প্রতিনিধি : জামায়াত নেতা আতাউল করিম দীর্ঘদিন হাজীগঞ্জ উপজেলা থেকে গা-ঢাকা ছিলেন। তার বিরুদ্ধে …

Shares
vv