ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় শহরাস্তি / শাহরাস্তিতে একদিনেই ১৬ করোনা রোগী শনাক্ত, আক্রান্ত বেড়ে ১১৮

শাহরাস্তিতে একদিনেই ১৬ করোনা রোগী শনাক্ত, আক্রান্ত বেড়ে ১১৮

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে করোনার দাপটে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফার্মাসিস্ট, স্বাস্থ্যকর্মী, বহিঃবিভাগের সেবাদান কর্মী ও ইউপি সচিবসহ নতুন করে ১৬ করোনা রোগী শনাক্ত শেষে আক্রান্ত বেড়ে ১১৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

এ উপজেলায় আক্রান্তের পরিসংখ্যানে মোট রোগী ১১৮ জনে বৃদ্ধি পেয়ে জেলায় সর্বোচ্চ দ্বিতীয় অবস্থানে পৌঁছেছে। হঠাৎ করে লাফিয়ে লাফিয়ে এ ভাইরাসের রোগীর ঊর্ধ্বমুখী প্রবনতায় স্থানীয়দের মাঝে চরম উৎকণ্ঠা ও আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

সম্প্রতি লকডাউন শিথিল,গণমানুষের অবাধ বিচরণ, নমুনা দিতে আসা রোগীর অসতর্কতায় এই বিস্ফোরণ মুখি অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে স্থানীয়রা মনে করেন।

মঙ্গলবার (০৭ জুলাই) চাঁদপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় হতে প্রেরিত রিপোর্টে আক্রান্তের বিষয়টি শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ প্রতীক সেন ইউএইচএফপিও এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি আরো বলেন, এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ শনাক্তকরণে ৫৪৯ জনের নমুনা পাঠানো হয়। তার মধ্যে প্রাপ্ত ৪৮৭ জনের নমুনা রিপোর্টে ৩৬৯জনের নেগেটিভ এবং আজ আসা নতুন করে ১৯টি রিপোর্টে ১৬টি পজিটিভসহ মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ১১৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত প্রেরিত নমুনা রিপোর্টের মধ্যে ৬২টি এখনও অপেক্ষমান রয়েছে।

এছাড়া আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ৫ জনের মৃত্যু এবং ৬২জন সুস্থ্য হয়েছেন।

আক্রান্তদের পরিবার ও করোনা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ সূত্র জানায়,আক্রান্তরা হলো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফার্মাসিস্ট (৫৮), স্বাস্থ্যকর্মী ৫২ বছর বয়সী মহিলা, বহিঃবিভাগের টিকেট কাউন্টারে সেবাদান কর্মী (৪৬), মেহের দক্ষিণ ইউপি সচিব (৪১), পৌরসভার ঘুঘুশাল গ্রামের পুরুষ (৪৮), সুয়াপাড়া গ্রামের পুরুষ (৩৫), কাজিরনগর গ্রামের পুরুষ (৩৮) ও মহিলা (২৪), পল্লী বিদ্যুৎ অফিস সংলগ্ন এলাকার পুরুষ (৪৮), টামটা উত্তর ইউপির ইছাপুরা গ্রামের মহিলা (৩৩) ও পুরুষ (৪৭), বলশীদ গ্রামের পুরুষ (৩৫), সুরসই গ্রামের পুরুষ (৫৮) রায়শ্রী উত্তর ইউপির উনকিলা গ্রামের পুরুষ (৩৫), হাটপাড় গ্রামের পুরুষ (২৯), চিতোষী পশ্চিম ইউপির উঘারিয়া গ্রামের পুরুষ (৪২)।

করোনা আক্রান্ত রোগীদের বিষয়ে ডাঃ প্রতিক সেন বলেন, রোগীরা সময়মত বিভিন্ন কারণে দ্বিতীয় নমুনা দিতে দেরি হলে “বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’র গাইডলাইন”অনুসারে ২১ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরে আক্রান্ত ব্যাক্তি প্রাথমিকভাবে ঝুঁকি মুক্ত রয়েছেন বলে বিবেচিত হয়।

পরবর্তীতে সুযোগ করে ওই কোভিড রোগী নমুনা দিয়ে তার রিপোর্ট নেগেটিভ নিশ্চিত হতে পারেন । তার চেয়ে অধিক সময় অতিবাহিত হলে তিনি নিরাপদ রয়েছেন বলে বিবেচিত হবেন।এর মধ্যে অবশ্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোম কোয়ারেন্টিন ও হোম আইসোলেশন নিশ্চিত করতে হবে, সঙ্গে স্বাস্থ্যকর খাবার ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তি চিতোষী সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয় স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাপ্তরিক সেবা প্রদান

শাহরাস্তি প্রতিনিধি : শাহরাস্তির চিতোষী সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয় সামাজিক দুরুত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাপ্তরিক কার্যক্রম …

vv