ব্রেকিং নিউজঃ
Home / অপরাধ / শাহমাহমুদপুরে ব্যক্তি স্বার্থে দেড়শত বছরের সরকারি রাস্তা কেটে ফেলার অভিযোগ

শাহমাহমুদপুরে ব্যক্তি স্বার্থে দেড়শত বছরের সরকারি রাস্তা কেটে ফেলার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের দক্ষিন ভড়ঙ্গারচর মল্লিক বাড়ি সংলগ্ন দেড়শত বছরের পূরনো রাস্তা মাত্র একজন ব্যাক্তির স্বার্থের জন্য কেটেছে। সরকারি বরাদ্ধে নির্মিত রাস্তাটি কেটে বাড়ির নির্মানের জন্য মালামাল পাড়াপাড়ের নৌকার পথ তৈরি করেছে। গায়ের জোরে সরকারি বরাদ্ধের রাস্তাটি কাটে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় কয়েক শত শত লোকের প্রতিনিয়ত যাতায়েতের চরম দুর্ভোগের কবলে পড়তে হচ্ছে। এ নিয়ে দেখার যেন কেই নেই। রাস্তাটি কেটে নৌকা যাতায়েতের পর তৈরি করায় এলাকার সর্বস্তরের মানুষের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, দক্ষিন ভড়ঙ্গারচর গ্রামের কুদ্দুছ বেপারী তার বাড়ি নির্মানের ইট বালু সরবরাহ করার জন্য গত ৩ আগস্ট সরকারি রাস্তাটি কেটে পেলে। স্থানীয়রা রাস্তাটি কাটার সময় বাঁধা দিলে সে তাদের সাথে উত্তেজিত হয়ে খারাপ ব্যবহার করতে থাকে। এবং বলতে থাকে, রাস্তা কাটবো, আমার মালামাল পাড়াপাড় করবো, তোদের কিছু করার থাকলে করিস, আমি কাউকে পরোয়া করিনা।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, চাঁদপুর হাইমচর-৩ নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নের রুপকার শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপির বিশেষ বরাদ্ধসহ সরকারি একাধিক প্রকল্পে বরাদ্ধে নির্মিত রাস্তাটি কোন অদুশ্য খুঁটির জোরে কুদ্দুছ বেপারী কেটেছে, এ নিয়ে জনমনে নানাহ প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে।

এখানেই শেষ নয়, রাস্তাটি কেটে ও তারা থেকে নেই, তাদের বাড়ির সীমানায় কাটা দিয়ে বেড়া দিয়ে সম্পূন্ন ভাবে যাতায়েত বন্ধ করে দিয়েছে। দেড়শত বছরের পূরনো রাস্তা দিয়ে দক্ষিন ভড়ঙ্গারচরের কয়েকটি বাড়ি লোক দক্ষিন ভড়ঙ্গাচর গাজী বাড়ি জামে মসজিদ, মাদ্রাসায় যাতায়েত করতো। এখন রাস্তাটি কেটে এবং পথে বেড়া দেওয়ার করনে তাদের পানি দিয়ে যাতায়েত করতে হচ্ছে।

সম্প্রতি দেশের বণ্যা পরিস্থিতি অবনতি হওয়ার কারনে দক্ষিন ভড়ঙ্গারচর গ্রামের কয়েকটি বাড়ির লোকদের এখন রাস্তাটি কাটার ফলে মরন ফাঁধে পরিনত হয়েছে। প্রতিনিয়ত দিন মজুর থেকে শুরু করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাররিরত ব্যাক্তিরা পানি দিয়ে যাতায়েত করতে হচ্ছে। দ্রুুত যদি রাস্তাটি দুপাশ দিয়ে বাধ দিয়ে রাস্তাটি বালু দিয়ে নির্মান করা না হয়, তাহলে আস্তা আস্তে পুরো রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকা করছে এলাকাবাসী। এর ফল সরকারের উন্নয়ন কাজে ব্যাপক ভাবে ব্যাঘাত ঘটবে। সরকার যেখানে গ্রামীণ জনপদের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প দিয়ে রাস্তা ব্রিজ নির্মান করছে, সেখানে কুদ্দুছ বেপারী সরকারের উন্নয়য়কে বাঁধাগ্রস্ত করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে।

বিষয়টি স্থানীয়রা ইউপি চেয়ারম্যানকে অবগত করলে, ইউপি চেয়ারম্যান সাথে সাথে গ্রাম পুলিশদের পাটিয়ে বিষয়টি সরজমিনে দেখার জন্য নির্দেশ দেয়। এবং অভিযুক্ত কুদ্দুছ বেপারীকে পরিষদে ডেকে নিয়ে যাওয়ার জন্য নির্দেষ দেন। স্থানীয়সহ ভুক্তভোগীরা রাস্তাটি বাঁধ দেওয়াসহ বাড়ির সীমানার বেড়া উঠিয়ে দেওয়ার জন্য উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার দৃষ্টি কামনা করেছেন। অভিযুক্ত কুদ্দুছ বেপারীর শাস্ত্রির দাবি করেছেন।

Facebook Comments

Check Also

কচুয়ায় মুসলিম বিয়ে ও তালাক নিবন্ধক কাজীর সিল ও স্বাক্ষর জালিয়তির অভিযোগ

কচুয়া প্রতিনিধি : কচুয়ায় দীর্ঘদিন ধরে নকল কাবিনের ছড়াছড়ি চলছে। এক শ্রেণির দালাল কাজীদের সিল …

vv