ব্রেকিং নিউজঃ
Home / স্বাস্থ্য / শাহমাহমুদপুরে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ২০ নারী ও শিশু গুরুত্বর অসুস্থ্য
শাহমাহমুদপুরের দাসেরগাঁও কমিউনিটি ক্লিনিকে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত ও সাধারন রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সহকারী মমতাজ বেগম।

শাহমাহমুদপুরে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ২০ নারী ও শিশু গুরুত্বর অসুস্থ্য

মাসুদ হোসেন : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নে শীত ও পানি দূষণের ফলে ব্যাপক হারে বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকাপ। এতে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ১০ জন হাসপাতালে ভর্তি ও আরো ১০ জনের মত বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকর্মীদের দেয়া তথ্যে জানা যায় এমন ঘটনা। চিকিৎসকদের মতে, এখানে আবহাওয়া পরিবর্তন ও পানি দূষণের ফলে ডায়রিয়ায় আক্রান্তের হার বেড়ে গেছে। শীতের কারণে, রাস্তার পাশে খোলা-বাসি খাবার খাওয়ায় ডায়রিয়ায় মানুষজন বেশি আক্রান্ত হচ্ছে।

এছাড়াও পানি ফুটিয়ে বা বিশুদ্ধ করে খাওয়া এবং হাতসহ খাবার গ্রহণের পাত্র অর্থাৎ প্লেট, হাড়ি চামচ সবকিছু ওই বিশুদ্ধ পানি দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। এসব বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার পরেও না নেনে চলায় তারা ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন।

জানা যায়, গত ৩ ডিসেম্বর ইউনিয়নের পূর্ব লোধেরগাঁও শতরুপা গুচ্ছগ্রামে মো. নুরুল ইসলামের ছেলে মো. লিমন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হলে তাকে মতলব আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র (আইসিডিডিআরবি) হাসপাতালে ভর্তি করান। লিমনের চিকিৎসা চলাকালীন তার মাও একই রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। ছেলেকে সুস্থ্য করতে গিয়ে নিজেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। লিমন সুস্থ্য হয়ে বাড়িতে গেলেও মা রয়েছেন হাসপাতালে।

এ থেকেই শুরু হয়েছে এ বাড়িতে ডায়রিয়ার প্রকোপ। গত ১ সপ্তাহে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে এই পর্যন্ত এ বাড়িতে প্রায় ২০ জন আক্রান্ত হওয়ায় খবর পাওয়া গেছে। তবে আক্রান্তদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশী এমনটাই জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এদিকে লোকবল সংকটে পুরো ইউনিয়নে স্বাস্থ্য সহকারী একজন হওয়ায় সোম ও মঙ্গলবার স্বাস্থ্যসেবার পর্যবেক্ষণে কিছুটা ঘাটতি থাকলেও এমন খবর শুনে গত ৪ ডিসেম্বর ওই বাড়িতে ছুটে যান ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সহকারী মমতাজ বেগম।

তিনি ওখানে গিয়ে অবস্থার বেগতিক দেখে তার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শককে খবর দিলে তারা সহ আক্রান্তদের প্রাথমিক চিকিৎসা ও বাড়ির সবাইকে স্বাস্থ্য শিক্ষা প্রদান করেন। প্রতি নিয়ত এ বাড়ির লোকজনের খবরাখবর রেখে চলেছেন স্বাস্থ্য কর্মীরা। সেই সাথে স্থানীয় কমিউনিটি ক্লিনিক থেকেও চিকিৎসা সেবা নিয়ে যাচ্ছেন রোগীরা।

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরে স্থানীয় দাসেরগাঁও কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে আসা শতরুপা গুচ্ছগ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী রঞ্জন বেগম জানান, তিনি গত কয়েকদিন ধরে ঘন ঘন পাতলা পায়খানা হওয়ায় স্যালাইন ও সেবা নিতে আসি ক্লিনিকে। এ বাড়ির আরেকজন নারী রিনা বেগম জানান, সে ডায়রিয়া থেকে সুস্থ্য হয়েছেন মাত্র একদিন হলো। কিন্তু তার ভাবির এ সমস্যা চলমান থাকায় স্যালাইন ও অন্যান্য ঔষধ নিতে আসেন এখানে। সেবাদানকারী স্বাস্থ্য সহকারী মমতাজ বেগম জানান, আমি প্রথমে খবর পেয়ে ঔখানে যাই এবং তাদেরকে প্রাথমিক সকল স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার চেষ্টা করেছি। এখনও প্রতিদিন আক্রান্ত রোগীদের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা দেয়া হচ্ছে।

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য পরিদর্শক দিলীপ কুমার লোধ জানান, আমরা এ বাড়ির সকল লোকজনকে ডেকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দিয়েছি। কিন্তু সচেতনতার অভাবে এর প্রভাব বাড়ির কয়েজনের উপর ছড়িয়ে পড়লে আক্রান্তদের ঔষধসহ সকল প্রাথমিক চিকিৎসা আমরা দিয়েছি। গুরুতর আক্রান্ত রোগীদের আমরা হাসপাতালে রেপার করি।

এ বিষয়ে চাঁদপুর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সাজেদা বেগম পলিন বলেন, শাহমাহমুদপুরে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীদের খবর পাওয়ায় সাথে সাথেই স্বাস্থ্যকর্মীদের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

মতলব আইসিডিডিআরবি হাসপাতালে চিকিৎসাধীনদের মধ্যে একজনকে ২৫০ শয্যা চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে ঘনবশতি ও সচেতনতার অভাবে এর প্রভাব বৃদ্ধি পেয়েছে। ওখানে এখন কিছুটা আসংখ্যা মুক্ত রয়েছে।

Facebook Comments

Check Also

করোনায় মেডিকেল টেকনোলজিষ্টদের কর্মবিরতিতে চাঁদপুর জেলা বিএমটিপির তীব্র নিন্দা

মোঃ রাছেল, কচুয়া : মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের কর্মবিরতির ঘোষণায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট …

vv