ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বাংলাদেশ / জাতীয় / মানবদেহে ক্যান্সারের উপস্থিতি নির্নয়ের পদ্ধতি আবিস্কার করেছেন চাঁদপুরের সন্তান ড. আবু সিনা

মানবদেহে ক্যান্সারের উপস্থিতি নির্নয়ের পদ্ধতি আবিস্কার করেছেন চাঁদপুরের সন্তান ড. আবু সিনা

গাজী মোঃ মহসিন : ক্যান্সার গবেষণায় সাফল্য দেখিয়েছেন চাঁদপুরের কৃতি সন্তান ড. আবু সিনা। তিনি মানবদেহে ক্যান্সারের উপস্থিতি নির্ণয়ের জন্যে ইন্টারফেসিয়াল বায়োসেনসিং নামে একটি সহজ পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন। তিনি বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থিত কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিখ্যাত বায়োইঞ্জিনিয়ারিং ও ন্যানোটেকনোলজি ইনস্টিটিউটে ক্যান্সার নিয়ে গবেষণা করছেন। তার গবেষণার মূল বিষয় হলো ক্যান্সারের নতুন বায়োমার্কার সন্ধান করা এবং এর মাধ্যমে শরীরে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়ার আগে প্রথম স্টেজেই এর উপস্থিতি নির্ণয়ের সহজ পদ্ধতি আবিষ্কার করা। এই বিষয়ে তিনি ইতিমধ্যেই অনেক সাফল্য দেখিয়েছেন এবং শরীরে ক্যান্সারের বায়োমার্কারের উপস্থিতি নির্ণয়ের একটি সহজ পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন, যেটি ইন্টারফ্যাসিয়াল বায়োসেনসিং নামে পরিচিত।

ড. আবু সিনার আবিষ্কৃত ইন্টারফেসিয়াল বায়োসেনসিং পদ্ধতি রয়্যাল সোসাইটি অফ কেমিস্ট্রি, ইংল্যান্ড এবং আমেরিকান ক্যামিক্যাল সোসাইটির বিখ্যাত জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। যা ইতিমধ্যেই সায়েন্টিস্টদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি চাঁদপুর প্রবাহকে জানান, ইন্টারফেসিয়াল বায়োসেনসিং হলো এমন একটি পদ্ধতি, যেটি মেটাল যেমন গোল্ডের সাথে নরমাল এবং ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর কিছু নির্দিষ্ট বায়োমলিকুল বা জৈব অণু যেমন ডিএনএ এবং প্রোটিনের মিথষ্ক্রিয়ার ধরণ বিবেচনা করে ক্যান্সার সংশ্লিষ্ট জৈব অণুগুলোকে আলাদা করতে পারে। আর এর মাধ্যমে সহজেই মানুষের রক্তে ক্যান্সারের উপস্থিতি নির্ণয় করা যায়। এই কাজের গুরুত্ব বিবেচনা করে সম্পৃতি রয়্যাল সোসাইটির বিখ্যাত ন্যানোস্কেল জার্নাল তাদের কাভার পাতায় এই কাজটির একটি প্রতীকী ছবি প্রকাশ করেছে।

ড. আবু সিনা আরও বলেন, বর্তমানে ক্যান্সারের উপস্থিতি নির্ণয়ের জন্যে বায়োপসি দরকার হয়। যেটি সময়সাপেক্ষ, ব্যয়বহুল এবং পীড়াদায়ক। এছাড়াও ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার সময় সঠিক ঔষধ ও থেরাপী দেয়া হচ্ছে কিনা, কিংবা থেরাপি কতটুকু কাজ করছে এটা নির্ণয় করাও কঠিন ও ব্যয়বহুল। কিন্তু ড. সিনার আবিষ্কৃত ইন্টারফেসিয়াল বায়োসেনসিং পদ্ধতি একবার স্যাম্পল তৈরি হয়ে গেলে মাত্র ৩ মিনিটেই ক্যান্সারের উপস্থিতি নির্ণয় করতে পারে। এছাড়াও এই পদ্ধতির মাধ্যমে চিকিৎসার ফলে রোগীর অবস্থার কতটুকু উন্নতি বা অবনতি হলো সেটাও নির্ণয় করা সম্ভব। এর ফলে ডাক্তার রোগীর সঠিক চিকিৎসা হচ্ছে কিনা সেটা বুঝতে পারবেন এবং পরবর্তীতে রোগীকে সুস্থ করে তুলতে সঠিক পদক্ষেপ নিতে পারবেন। তার এই কাজের নেতৃত্বে আরো ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত গবেষক প্রফেসর ম্যাট ট্রাউ, ড. লরা কারাসকোসা এবং ড. এলেইন। এই আবিষ্কারের সাথে আরো যুক্ত ছিলেন মোস্তাক আহমেদ।

ড. আবু আলী ইবনে সিনার জন্ম চাঁদপুর সদর উপজেলার পৌর ১৪নং ওয়ার্ডস্থ বাবুরহাট অঞ্চলের দাসদী গ্রামে। তাঁর বাবা চাঁদপুরের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এবং সমাজসেবক বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বাবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও বর্তমান গভর্নিং বডির সভাপতি শহীদ উল্লাহ মাস্টার। তাঁর মা বাবুরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষিকা, সমাজসেবিকা ও সুরাইয়া-শহীদ উল¬াহ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সুরাইয়া আকতার। তাঁরা এক ভাই ও এক বোন। তাঁর বোন বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার প্রিফিথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করছেন। তাঁর স্ত্রী সাবিহা সুলতানা ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন এবং অস্ট্রেলিয়াতে উচ্চতর ডিগ্রির প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তিনি বর্তমানে তাঁর স্ত্রী এবং একমাত্র পুত্র জাবির ইবনে হাইয়ান শৌর্য কে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে বসবাস করছেন। ড. সিনা বাবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক অত্যন্ত সফলভাবে সম্পন্ন করে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। তারপর কিছুদিন বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশে লিমিটেডে কেমিস্ট হিসেবে কাজ করেন এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগে শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। অতঃপর তিনি বিখ্যাত কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের উপর পিএইচডি সম্পন্ন করেন। তাঁর গবেষণাদলে বর্তমানে চার জন শিক্ষার্থী কাজ করছেন এবং অতি শীঘ্রই তিনি বাংলাদেশ থেকে আরো দুইজন পিএইচডি স্টুডেন্ট নিয়োগ করতে যাচ্ছেন। তাঁর ভবিষ্যৎ ইচ্ছা হলো বাংলাদেশের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে একটি বড় ল্যাব প্রতিষ্ঠা করা, যাতে তারা ক্যান্সার গবেষণার মাধ্যমে বাংলাদেশের জন্যে গৌরব বয়ে আনতে পারে।

Facebook Comments

Check Also

তরুনদের অহংকার চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিউদ্দিন রিপন

স্টাফ রিপোর্টার : আসছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা গাঁ ঝাড়া দিয়ে উঠছে। সম্ভাব্য …

vv