ব্রেকিং নিউজঃ
Home / সমস্যা-সম্ভাবনা / মহামায়া বাজারের মহাসড়কসহ অলিগলি ফুটপাতের দখলে
মহামায়া বাজারে ফুতপাতের কারনে পথচারীদের যাতাতের করতে মারাত্মক সমস্যার সমুখীন হতে হচ্ছে, দ্রুত উচ্ছেদের দাবি।

মহামায়া বাজারের মহাসড়কসহ অলিগলি ফুটপাতের দখলে

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার মাহামায়া বাজারের মহাসড়কসহ বাজারের প্রতিটি অলিগলি ফুটপাতের দখলে রয়েছে। এ জন্য পথচারীদের যাতায়েতের মারাত্মক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। মহামায়া বাজারে নিদিষ্ট সিএনজি ও অটরিক্সা স্ট্যান না থাকায় যানজট নিত্য সময় লেগে থাকছে। ফলে মহামায়া বাজারের আশপাশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কমলমতি শিক্ষার্থীদের যাতায়েতের চরম প্রতিবন্ধকতার কবলে পড়তে হচ্ছে। বিষয়টি দেখার যেন কেউ নেই।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় মহামায়া বাজারের প্রতিটি গলি ফুতপাতের দখলে রয়েছে। মহামায়া বাজার জামে মসজিদটি সম্মুখে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা কাঁচা মালের দোকানগুলোর পথচারিদের মরন ফাঁধে পরিনত হয়েছে। পাশা-পাশি বাজারের একমাত্র মসজিদটিতে নামাজের সময় মুসল্লীদের যাতায়েত করতে সীমাহীন সমস্যার সমুখীন হতে হচ্ছে। মাছ বাজারে কাঁচা বাজারের জন্য পর্যাপ্ত পরিমার জায়গা থাকলে মহামায়ায় মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি মিনি কাঁচা বাজার গড়ে উঠেছে। কিছু ব্যাক্তির কারনে বাজারের বিভিন্ন স্থানে ফুতপাত দখল করা হয়েছে।

বাজার ব্যবসায়ীরা জানান, মহামায়া জামে মসজিদের নামাজের অজুর স্থান ছিল চাঁদপুর কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের মসজিদের পাশে। পথচারীদের যাতায়েতের জন্য মসজিদের অজুর স্থানটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কিছু দিন যেতে না যেতেই উক্তস্থানটি দখলে চলে যায় কাঁচা বাজার ব্যবসায়ীদের। সে থেকে এখন পর্যন্ত সেখানে কাঁচা বাজারের মিনি মার্কেট।

কাঁচা বাজারের এ মিনি মার্কেটের জন্য মহামায়া বাজারে আগতক্রেতা, দর্শনার্থীদের যাতায়েত করতে মারাত্ম সমস্যার সমুখিন হতে হচ্ছে। নামাজের সময় মুসল্লীদের মসজিদে প্রবেশের জন্য মহা সড়কের উপর দিয়ে যাতায়েত করতে হচ্ছে।

এখানেই শেষ নয়, কালের আবর্তনে মহামায়া বাজার এখন ফুতপাতসহ বিভিন্ন স্থান দখলদারদের দখলে চলে যাচ্ছে। বাজারের সীমানার মহাসড়কের পুরটাই এখন ফুতপাতের দখলে রয়েছে। কে দেখবে বিষয়টি এমনটাই সাধারন মানুষসহ বাজারে আগতক্রেতা সাধারন সংবাদ প্রতিনিধিকে জানিয়েছে। চাঁদপুর শহড়তলীর এ বাজারটি সুন্দর্য ও ক্রেতাসাধারনের নিরাপদে যাতায়েতের জন্য ফুতপাত থেকে অবৈধ দোকানগুলো উত্তোলন জরুরী বলে বাজারের স্থায়ী ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে।

মহামায়া বাজারের মিনি কবিরাজের প্রতিযোগীতায় অতিষ্ঠ হয়েছে উঠেছে সকলে। বাজারের অধিকাংশ সেলুনে মালিক বিভিন্ন ভাবে মানুষের সাথে প্রতারনা করে বাজারের সুনাম নষ্ট করছে। কোন প্রকার সার্টিফিকেট ছাড়াই তারা মানুষের সাথে প্রতারনা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এদের থেকে ও সাধারন মানুষ পরিত্রান চায়।

নিয়মনুসারে বাজারের ইজারাদার বাজার পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করার কথা থাকলে ও ইজারাদার বিষয়টি গুরত্ব না দিয়ে নিজের খামখেয়ালী মত বাজার পরিচালনা করছে। এ কারনে ও বাজার পরিচালনা কমিটি, বাজারের স্থায়ী ব্যবসায়ীসহ বাজারে আগতক্রেতা সাধারন চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক শাহ জালাল বেপারী বলেন মহামায়া বাজারে থেকে ফুতপাতগুলো সরানোর আমাদের চেষ্টা কমতি নেই। তবে মহামায়া বাজানে নিদিষ্ট সিএনজি, অটোরিক্্রা স্ট্রেন না থাকার কারনে ও পথচারীদের যাতায়েত করতে কষ্ট হচ্ছে। নিদিষ্ট একটি স্থান সিএনজি স্ট্রেন করে দিলে মহামায়া বাজারের সুন্দর্য দ্রুত ফিরে আসবে।

বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন মাহমুদ বলেন, চাঁদপুর কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কটি অতিগুরত্বপূর্ণ। তাই মহাসড়ক থেকে ফুতপাতগুলো উঠানোর জন্য অনেক বার চেষ্টা করেছি। মাছ বাজারে তাদেরকে ব্যবসা করার স্থান করে ও দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু কোন প্রকার লাভ হয়নি। তারা কার ও কথা না শুনে নিজের ইচ্ছে মত মহাসড়কের পাশে ব্যবসা করে চলছে। অনেক চেষ্টা করা হয়েছে। বাজার কমিটির পক্ষ থেকে।

মহামায়া বাজার থেকে ফুতপাত উচ্ছেদের জন্য জেলা প্রশাসনসহ সদর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছে বাজারে আগতক্রেতাসহ পথচারীগন।

Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুর জেলা কারাগারকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে : জেলার আবু মুছা

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুর জেলা কারাগারকেও সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলার …

vv