ব্রেকিং নিউজঃ
Home / ধর্ম / মতলব উত্তরে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত শিল্পীরা

মতলব উত্তরে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত শিল্পীরা

মনিরুল ইসলাম মনির : নীল আকাশে সাদা মেঘের ভেলা বলে দেয় দেবী দুর্গার আগমনী বার্তা। আর এ জন্য প্রস্তুতি চলছে সর্বত্র। চাঁদপুরের মতলব উত্তরে এবার ২৯টি মণ্ডপে প্রতিমা তৈরির ব্যস্ততা বেড়েছে। বছরের অন্য সময় খুব একটা চাহিদা না থাকলেও পূজার সময়টুকু প্রতিমা কারিগরদের কর্মব্যস্ততা বাড়ে কয়েকগুণ।

দরজায় কড়া নাড়ছে দেবী দুর্গা। ভক্তদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে দেবীর আগমনে শষ্য উৎপাদন হবে, হবে শান্তি প্রতিষ্ঠা।
উৎসবের কেন্দ্রবিন্দু প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা। বিচালি ও কাদামাটি দিয়ে দেবীর প্রতিমা তৈরিতে এখন ব্যস্ত তারা। পরম যত্নে তৈরি করছেন দেবী দুর্গা, সরস্বতি, কার্তিক, গনেশসহ বিভিন্ন প্রতিমা। ছোট মণ্ডপের প্রতিমার দাম পড়বে পঁচিশ থেকে তিরিশ হাজার টাকা। আর বড় মণ্ডপের প্রতিমার দাম পড়বে পঞ্চাশ হাজার থেকে ষাট হাজার টাকা। বছরের অন্যান্য সময় তেমন একটা প্রতিমা তৈরির কাজ না থাকলেও এ সময়টা কাজ করে তা পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন কারিগররা।

মায়ের আগমনে বিশ্ব মঙ্গলময় হোক এমনটাই প্রত্যাশা করছেন পুরোহিত বলরাম গোস্বামী। সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন বলে জানালেন পূজা উদযাপন কমিটির প্রভাত চন্দ্র ভৈৗমিক।

মতলব উত্তর উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক শ্যামল কুমার বাড়ৈ জানান, পূজামণ্ডপে নিরাপত্তার জন্য স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করা হয়েছে। এবারের শারদীয় দুর্গাপূজা সবার কাছে আনন্দময় ও সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। কোনো প্রকার জঙ্গি হামলা ছাড়াই যেন পূজা শেষ করতে পারে এমনটাই প্রত্যাশা সবার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের।

২১ অক্টোবর শ্রী শ্রী শারদীয়া দুর্গাদেবীর পঞ্চমী পূজা ও বোধন, ২২ অক্টোবর দেবীর ষষ্ঠী পূজা ও আমন্ত্রণ অধিবাস, ২৩ অক্টোবর সপ্তমী পূজা, ২৪ অক্টোবর দেবীর মহাষ্টমী পূজা, ২৫ অক্টোবর মহানবমী ও ২৬ অক্টোবর দেবীর দশমী পূজা ও বিসর্জন। এ বছর দেবী দোলায় আগমন করবেন এবং গজে গমন করবেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাশ জানান, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ বছর পূজা উদযাপন করা হবে।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নেহাশীষ দাশ জানান, করোনা কালিন সমছের সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে এ ধর্মীয় উৎসব পালনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

মতলব উত্তর থানার থানার ওসি মো. নাসির উদ্দিন মৃধা জানান, মণ্ডপগুলোতে সার্বক্ষণিক পুলিশের সঙ্গে আনসার ভিডিপি’সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত থাকবে। পুলিশ ও আনসারের চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া সব পূজা কমিটির সঙ্গে পুলিশের সার্বক্ষণিক যোগাযোগও থাকবে।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে দিনশেষে সিএনজি চালক ইমরানের বাড়ি ফেরা হলোনা

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দিনভর সিএনজি থ্রি হুইলার চালিয়ে চালক ইমরানের আর বাড়ি …

Shares
vv