ব্রেকিং নিউজঃ
Home / তথ্যপ্রযুক্তি / মতলব উত্তরে নারীর ক্ষমতায়নে তৃৃনমূলে কাজ করছে “তথ্য আপা”

মতলব উত্তরে নারীর ক্ষমতায়নে তৃৃনমূলে কাজ করছে “তথ্য আপা”

মনিরুল ইসলাম মনির : সরকার কর্তৃক গৃহীত রূপকল্প ২০২১ ও সপ্তম পঞ্চ বার্ষিকী পরিকল্পনা ২০১৬-২০২০ এবং এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রায় নারীর ক্ষমতায়নের বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। দেশের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী নারী।

অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে নারীর অংশগ্রহণ ও ক্ষমতায়ন দেশের সার্বিক অগ্রগতির অন্যতম শর্ত। নারীর ক্ষমতায়নে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। গ্রামের অসহায়, দরিদ্র, সুবিধা বিঞ্চিত কিংবা কম সুবিধা প্রাপ্ত নারীর তথ্যে প্রবেশাধিকার এবং তাদেরকে তথ্য প্রযুক্তির সেবা প্রদান নিঃসন্দেহে নারীর ক্ষমতায়নকে তরান্বিত করবে।
এ লক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয় কর্তৃক “তথ্য আপা” ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে মহিলাদের ক্ষমতায়ন শীর্ষক প্রকল্পটি গৃহীত হয়।

মতলব উত্তর উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকর্তা তাসলিমা আক্তার বলেন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কৃষি, যৌতুক ও নারী নির্যাতন, বাল্য বিবাহ, জেন্ডার সমতা, ইন্টারনেট ভিত্তিক যেকোন সেবা, চাকরীর খবর ও আবেদন সহ যেকোন বিষয়ে সঠিক পরামর্শ পেতে উপজেলা তথ্যসেবা কেন্দ্র থেকে ফ্রি সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করা হয়। মাত্র কয়েক বছর আগেও প্রত্যন্ত গ্রাম গেলে ইন্টারনেট, কম্পিউটার ই-মেইল কিংবা ভিডিও কনফারেন্সের মতো সেবা গুলোর সঙ্গে এলাকার যেসব নারীদের পরিচয় ছিলনা তারাই এখন যোগাযোগের এই ডিজিটাল সেবা গুলো গ্রহন করেছেন।

এ কেন্দ্র থেকে ডিসেম্বর-২০১৮ থেকে আগষ্ট-২০২০ পর্যন্ত মোট সেবা গ্রহণ করেছেন ৯ হাজার ৫২১জন। তথ্য কেন্দ্র থেকে সেবা গ্রহন করেছেন ১ হাজার ৮১৩জন, ডোর টু ডোর মোট সেবা গ্রহিতা ৬ হাজার ৩০৮জন, উঠান বৈঠক থেকে সেবা নিয়েছে ১ হাজার ৩শ জন, প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা গ্রহন করেচেন ১হাজার ৭১৩জন। জেলার মধ্যে সেবা দিয়ে মতলব উত্তর তথ্য সেবা কর্তকর্তা তাসলিমা আক্তার প্রথম স্থানে রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে নারীদের পরিচয় করিয়ে প্রযুক্তিকে তাদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের হাতিয়ার রূপে ব্যবহার করে তাদের জীবনমান আরও সহজ, সুন্দর, উন্নত ও সমৃদ্ধ করেছে সরকারের এ তথ্য আপা প্রকল্প। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের উদ্যোগে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে।

মতলব উত্তর উপজেলায একজন অভিজ্ঞ ও দক্ষ তথ্য সেবা কর্মকর্তা ও দু’জন তথ্যসেবা সহকারী কর্মরত রয়েছেন।
তথ্য সেবা কর্মকর্তা তথা তথ্য আপা তাসলিমা আক্তার কেন্দ্রে বসেই নারীদের বিভিন্ন তথ্য সহায়তা দেন। বাকী দু’জন তথ্যসেবা সহকারী ল্যাপটপ নিয়ে বাড়ী বাড়ী যান। তথ্য আপা প্রকল্পের অন্যতম প্রধান সুবিধা হল আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার।

শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, ব্যবসা, জেন্ডার ও আইন এই ছয়টি বিষয়ে সেবা দেয়া হয়। আধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে সেবাগ্রহীতাদের নিয়ে প্রতিমাসে দু’টি করে উঠান বৈঠক করা হয়। এ উঠান বৈঠকে ইউএনও, উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের সরকারী কর্মকর্তা, আইটি বিশেষজ্ঞ, সমাজসেবী, সাংবাদিক, নারী উদ্যোক্তা, নারী আইনজ্ঞ, সমাজের নেতৃত্বদানকারী নারী, ইমাম ও চিকিৎসক’সহ অনেকেই অংশ নেন।

সচেতনতামূলক এ উঠান বৈঠকে অংশ নিয়ে নারীরা তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যপারে অভিজ্ঞ হয়ে উঠছে। এছাড়াও কোন সমস্যা কিংবা প্রশ্ন থাকলে তা ইন্টারনেটের মাধ্যমে সেই তথ্যসেবা দেয়া হয়। তৃণমূলের নারীদের দোরগোড়ায় তথ্যসেবা পৌঁছে দেয়াই মূলত “তথ্য আপা” প্রকল্পের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। দেশের ৪৯০টি উপজেলায় তথ্যসেবা কেন্দ্র চালু রয়েছে।

Facebook Comments

Check Also

ফেসবুক-ইউটিউবে অপপ্রচার : একাধিক ফেক আইডির বিরুদ্ধে সেলিম খানের জিডি

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের …

vv