ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় মতলব উত্তর / মতলব উত্তরে গবাদী পশুর টিকা ও কৃমির ট্যাবলেট প্রদান

মতলব উত্তরে গবাদী পশুর টিকা ও কৃমির ট্যাবলেট প্রদান

এনএটিপি প্রকল্পের আওতায় মতলব উত্তরের ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের গাভী পালন সিআইজি গ্রুপের টিকাদান ও কৃমিমুক্তকরণ কর্মসূচির গবাদি পশুকে টিকা প্রদান ও কৃমিনাশক ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়।

গতকাল বৃধবার সকালে ছোট চরকালিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন- উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ ফারুক হোসেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ভেটেরিনারী সার্জন ডা. মো. রফিকুল ইসলাম, ভিএফএ মো. বিল্লাল হোসেন, এফএ (এআই) মো. ওয়ালী উল্লাহ সরকার, ভেটেরিনারী কম্পাউন্ডার পলাশ কুমার দাস প্রমুখ। ২শ’৫০টি গরুকে টিকা ও ২শ’ গরুকে কৃমিমুক্ত ট্যাবলেট প্রদান করা হয়।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ ফারুক হোসেন বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে গবাদিপশু পালন লাভজনক ও বেকার সমস্যা সমাধানের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হওয়ার ক্ষমতা রাখে।

কিন্তু আমাদের খামারিরা গবাদিপশু পালন করতে গিয়ে একটি সমস্যার সম্মুখীন হয়, তা হলো পরজীবী বা কৃমি। কৃমি এক ধরনের পরজীবী যা পশুর ওপর নির্ভর করে জীবন ধারণ করে। তারা পশুর অন্ত্রে, ফুসফুসে, লিভারে, চোখে, চামড়ায় বাস করে ও পশুর হজমকৃত খাবারে ভাগ বসিয়ে পশুর ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে। অনেক কৃমি পশুর রক্ত চুষে ও আমিষ খেয়ে পশুকে দুর্বল ও স্বাস্থ্যহীন করে ফেলে।

তিনি আরো বলেন, একটি পরিসংখ্যানে দেখা যায়, দেশের প্রাণিসম্পদ হাসপাতালগুলোতে গত বছর (২০১০) বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত গবাদিপশুর (গরু, ছাগল, ভেড়া) মধ্যে ৫১.৩৬ ভাগ কৃমি বা পরজীবী দ্বারা আক্রান্ত।

এর মধ্যে আক্রান্ত গরুর মধ্যে ৬৮.৯২ ভাগ, আক্রান্ত গাভীর মধ্যে ৪৫.১৬ ভাগ, বাছুরের মধ্যে ৫০.০৭ ভাগ, ভেড়ার মধ্যে ৬১.৬৬ ভাগ এবং আক্রান্ত ছাগলের মধ্যে ৩৪.৭৯ ভাগ বিভিন্ন কৃমি বা পরজীবী দ্বারা আক্রান্ত হয়। সুতরাং কৃমি বা পরজীবী আমাদের গবাদিপশু পালনের প্রধান শত্রু। কৃমি বা পরজীবীগুলো হচ্ছে কলিজাকৃমি, পাতাকৃমি, গোলকৃমি, রক্তকৃমি, ফিতাকৃমি, প্রটোজয়া ও বিভিন্ন ধরনের বহিঃপরজীবী উকুন, আঠালী, মাইট ইত্যাদি গবাদিপশুকে আক্রান্ত করে। কৃমির কারণে গাভীর দুগ্ধ উৎপাদন ক্ষমতা কমে যায় অস্বাভাবিকভাবে এবং বাছুরগুলো পেট ফুলে গিয়ে স্বাস্থ্যহীন হয়ে পড়ে।

ফলে দুগ্ধ ও মাংস উৎপাদন ক্ষমতা মারাক্তকভাবে ব্যাহত হয়। এর কারণে বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, ফাঙ্গাস গবাদিপশুকে আক্রান্ত করার পরিবেশ তৈরি করে। তাই গবাদি পশুকে কৃমিমুক্ত রাখতে খামারীদের আহ্বান জানান।

প্রতিবেদন: মনিরুল ইসলাম মনির, মতলব উত্তর

 

Facebook Comments

Check Also

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদ পরিদর্শন

মনিরুল ইসলাম মনির : মতলব উত্তর উপজেলাধীন কলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদ পরিদর্শন করেন উপজেলার নবাগত উপজেলা …

vv