ব্রেকিং নিউজঃ
Home / ইলিশের বাড়ি চাঁদপুর / বেকার শিক্ষিত যুবকদের উদাহরণ হতে পারে ব্যবসায়ী আবদুর রশিদ

বেকার শিক্ষিত যুবকদের উদাহরণ হতে পারে ব্যবসায়ী আবদুর রশিদ

নিজস্ব প্রতিনিধি : বেকার শিক্ষিত যুবকদের উদাহরণ হতে পারে ব্যবসায়ী আবদুর রশিদ এক মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান আবদুর রশিদ।
শাহরাস্তি পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের ঘুঘুশাল গ্রামের জন্ম তার। ৭ ভাই ৩ বোনেরর মধ্যে সে সবার ছোট। মধ্যবিত্ত বাবার পক্ষে এত সন্তানের লেখাপড়ার খরচ মিটানো সম্ভব ছিলো না। বাবার অপারগতার কারণে ছোটবেলা থেকে লেখাপড়ার পাশাপাশি সে নিজের লেখাপড়ার খরচ নিজেই আয় করে ব্যয় করে আসছে।
এভাবে সে স্নাতক পর্যন্ত লেখাপড়া করেছে। সদা হাস্যউজ্জল থাকা তার চরিত্রের সাথে মিশে গেছে।এমন কেউ নেই যিনি তার হাসির কারণে মুগ্ধ হয়নি। ব্যবসায়ীক কাজে যে কোন মানুষ তার কাছে এসে মন খারাপ করে যেতে পারেনি। একটাই হচ্ছে ব্যবসায়ী জীবনে তার সফল হওয়ার মূল গল্প। নিজের ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকে দিনের সারাক্ষণ। সকাল ৯ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত সে নিজের শাহরাস্তি উপজেলার দোয়াভাঙ্গায় প্রতিষ্ঠিত সমতা ইলেকক্ট্রোনিক্সের ব্যবসায়িক কাজে ব্যস্ত থাকে। দুই ঈদের  ৪ দিন ছাড়া বছরের ৩৬১ দিন কাটে তার ব্যবসায়িক কাজের ব্যস্ততায়। একজন সফল ব্যবসায়ী হিসাবে ইতিমধ্যে সে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছে।
বাংলা প্রবাদে আছে -‘পরিশ্রমে ধন আনে পূর্ণে আনে সুখ, আলস্যে দারিদ্র্যতা আনে পাপে আনে দুঃখ’ এই প্রবাদটি রশিদের জন্য সমভাবে প্রযোজ্য। রশিদ একজন সুখী ও সম্পদশালী হয়েছে পরিশ্রম করে। একজন সাদা মনের মানুষ হিসাবে সে সর্ব মহলে পরিচিত। বর্তমান সময়ের শিক্ষিত বেকার যুবকদের নিকট একজন রশিদ উদাহরণ হতে পারে।
সে দুই ছেলে এক মেয়ের জনক। তারা সবাই লেখাপড়া করে। সন্তানরা সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক এটা তার স্বপ্ন।
আমরা এই সফল ব্যবসায়ী মানুষটির স্বার্থক ও সফল জীবন কামনা করি। দোয়া করি মহান আল্লাহ তায়ালা তাকে সহ তার পরিবারের সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘ জীবন দিন।
Facebook Comments

Check Also

কচুয়া সড়কে বোনের নাতির ঈদের কাপড় দিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন দাদি

মোঃ রাছেল, কচুয়া : বোনের নাতির জন্যে ঈদ উপহার দিয়ে বাড়ি অন্য বোনের বাড়িতে যেতে রওনা …

Shares
vv