ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বাংলাদেশ / জাতীয় / বিশ্ব মানবাধিকার দিবস আজ

বিশ্ব মানবাধিকার দিবস আজ

প্রিয় চাঁদপুর রিপোর্ট : বিশ্ব মানবাধিকার দিবস আজ। জাতিসংঘের নির্দেশনায় বিশ্বের সকল দেশে প্রতিবছর ১০ ডিসেম্বর দিবসটি পালিত হয়। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ কর্তৃক ১৯৪৮ সালে ‘সর্বজনীন মানব অধিকার সংক্রান্ত ঘোষণাকে’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এ তারিখটি নির্ধারণ করা হয়।

বিশ্বের দেশে দেশে নানাভাবে আজ মানবাধিকার ভূলুণ্ঠিত হচ্ছে। অত্যাচার-নির্যাতনে নিজভূমি ছেড়ে অন্যত্র পাড়ি জমাতে হচ্ছে। বিশেষ করে নারী ও শিশুদের প্রতি চরম অবিচার চলছে। বিপন্ন হচ্ছে মানবিকতা। বিশ্বব্যাপী মানবাধিকার হরণে যে তান্ডব চলছে, তা নিরসনে যথাযথ পদক্ষেপ জরুরি।

অন্য দেশের মতো আজ বাংলাদেশে সভা, সেমিনারসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে সরকারি-বেসরকারিভাবে দিবসটি পালন করা হচ্ছে । দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘এসো সবাই ঐক্য গড়ি, সবার অধিকার রক্ষা করি’।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। দিবসটি উপলক্ষে আজ শনিবার জাতীয় মানবাধিকার কমিশন র‌্যালি, আলোচনা সভা ও সেমিনারের আয়োজন করেছে। এতে কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হকসহ অন্যরা অংশ নেবেন। এ ছাড়া বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবাধিকারের সর্বজনীন ঘোষণা অনুযায়ী বিশ্বের সকল মানুষের মানবাধিকার ও মৌলিক স্বাধীনতা সমুন্নত রাখতে বাংলাদেশের দ্বার্থহীন অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছেন। দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের সংবিধান ও নির্বাচনী অঙ্গীকার অনুযায়ী তার সরকার প্রতিটি নাগরিকের মানবাধিকার ও মৌলিক স্বাধীনতা সমুন্নত রাখতে গত সাড়ে সাত বছর নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের ভিশন ২০২১ ও ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে আমরা দারিদ্র্য, ক্ষুধা, রোগ-ব্যাধি ও নিরক্ষরতা দূরীকরণে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এসব সমস্যার কারণেই মানবাধিকার ও মর্যাদা লঙ্ঘিত হয় এবং কতিপয় লোক মানবাধিকার ও সামাজিক ন্যায়বিচারের পরিপূর্ণ উপভোগে বাধা সৃষ্টি করতে পারে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘তার সরকার নারী ও শিশুর বিরুদ্ধে যেকোনো ধরনের সহিংসতা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রদান এবং এ ধরনের সহিংসতাকারী অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার বিষয় নিশ্চিত করেছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের নিরঙ্কুশ সমর্থন নিয়ে তার সরকার ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালে সংঘটিত মানবতার বিরুদ্ধে নৃশংস অপরাধ ও গণহত্যার বিচার নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে।

তিনি আরো বলেন, ‘অনুরূপ চেতনা নিয়ে আমরা এই মানবাধিকার দিবসে বিশ্বের যেকোনো স্থানের জনগণের শান্তি, ন্যায়বিচার, স্বাধীনতা ও মানবাধিকারের যথার্থ সংগ্রামের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখার আমাদের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করছি।’

Facebook Comments

Check Also

আজ নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞের ভয়াল দিন

প্রিয় চাঁদপুর ডেস্ক : বাংলাদেশের ইতিহাসে ২১ আগস্ট একটি নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞের ভয়াল দিন। ২০০৪ সালের …

vv