ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় ফরিদগঞ্জ / ফরিদগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক প্রার্থী বেলায়েত হোসেন সুমন

ফরিদগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক প্রার্থী বেলায়েত হোসেন সুমন

এস.এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ উপজেলার কৃতি সন্তান বিশিষ্ট সমাজ সেবক, জিয়া-এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের নির্যাতিত ছাত্রনেতা মো. বেলায়েত হোসেন সুমন। যিনি কিশোর বয়স থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে শতাব্দির বৃহৎ রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।

এক সময়ের তুখড় এ ছাত্রনেতা তৎ কালীন ক্ষমতাসীনদের নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে কিছুদিন প্রবাস জীবন অতিবাহিত করেন। সৌদি আরব থাকাকালীন সময়েও দেশের তথা ফরিদগঞ্জের রাজনৈতিক কর্মসুচিতে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছেন।

দেশে এসেও বসে থাকতে দেখা যায়নি এ বর্ষীয়ান নেতাকে। গেল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাংবাদিক মুহম্মদ শফিকুর রহমান এমপি’র নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির উপজেলার সদস্য, ২ নং বালিথুবা ইউনিয়নের উপদেষ্টা ও নিজ কেন্দ্র পরিচালনা কমিটির আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন।

তিনি মূলত চিন্তা-ভাবনা, ধ্যান-ধারনা এবং দৃষ্টিভঙ্গি মহান মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা, গনমানুষের প্রানপ্রিয় জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গড়ে উঠা উন্নত বাংলাদেশের রুপকার, যার সু-চিন্তিত পরিকল্পনা এবং ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়নের কথা শুনে তিনি আসন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাধারন সম্পাদক পদে লড়তে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

মো. বেলায়েত হোসেন সুমন, ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২ নং বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়নের দেইচর সর্দার বাড়ীর মৃত- আবুল খায়ের ভেন্ডারের ছেলে। তার বাবা ১৯৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রত্যক্ষ ভাবে সহযোগীতা করেছিলেন। তিনি ১৯৭৮-৭৯ সালে ঢাকা কলেজ নর্থ হল ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক, ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠাতা যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আবাহনী ক্লাব সমর্থক গোষ্টি, ১৯৮১ সালে প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বালিথুবা বঙ্গবন্ধু ক্লাব, ১৯৮২ সালে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি, ২নং বালিথুবা ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ- কমিটির সহ- সম্পাদক হিসেবে সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেছেন। জিয়া- এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে ঢাকার রাজপথে ছাত্রনেতা হিসাবে নেতৃত্বে দিয়ে নির্যাতনের স্বীকার এবং মামলা হুলিয়ার কারনে প্রবাসে যেতে বাধ্য হন।

এছাড়াও ২০০১ সালের নির্বাচনের পর বিএনপি-জামায়াতের তান্ডবে উনার স্ত্রী কামরুন্নাহার ( প্রাইমারী স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা) চাকুরী ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। ততকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরীর হাত ধরে আওয়ামী লীগকে গতিশীল করার লক্ষে কাজ করেন। সে সময়ে ২নং বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বেলায়েত হোসেন সুমন।

এক সময় মামলা, হামলা ও হুলিয়ার কারনে সৌদি আরবে পাড়ি জমান। সেখানেও আওয়ামীলীগের রাজনৈতিতে নিজেকে শামিল করে রেখেছেন। উপজেলা ও নিজ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মসুচিতে সার্বিক সহযোগীতা করেন। বর্তমানে ব্যক্তি জীবনে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় প্র্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সমাজের সেবক হিসেবে সেবাদানে নিয়োজিত। তিনি ত্যাগী নেতাদের সম্মানের জায়গা অটুট এবং আওয়ামী লীগের উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে শামিল রাখতে চান।

আসন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে তৃনমূল নেতাকর্মীদের আগ্রহ ও নৈতিক সমর্থন প্রত্যাশা করেন। তিনি তৃনমূল আওয়ামী লীগ পরিবারের কাছে দোয়া ও সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জে মহিলা মাদক ব্যাবসায়ী আটক

এস.এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৫০ গ্রাম গাঁজা সহ এক মহিলা মাদক ব্যাবসায়িকে …

vv