ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় বইছে চাঁদপুর সদরে ইউপি নির্বাচনের আগাম হাওয়া

প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় বইছে চাঁদপুর সদরে ইউপি নির্বাচনের আগাম হাওয়া

মাসুদ হোসেন : প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মহামারির শেষ কবে-বিশ্ব জুড়ে এ প্রশ্নের উত্তর এখনো অজানা হলেও এর মধ্যেই দেশে সময় ঘনিয়ে আসছে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের।

আইন অনুযায়ী আগামী বছরের মার্চের তৃতীয় সপ্তাহের আগে ইউপি নির্বাচন শুরু করতে হবে, আর শেষ করতে হবে জুনের আগেই। এরই প্রেক্ষিতে চাঁদপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে ইতোমধ্যে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে। সরকার দলীয় আওয়ামী লীগের প্রার্থীসহ অন্যান্য দলগুলোর প্রার্থীরা রাজনৈতিক মহলে ইতোমধ্যে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে।

উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন জুড়ে আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বইছে আগাম নির্বাচনী হাওয়া। মফস্বল এলাকার চায়ের দোকান, রাস্তার পাশের মিনি মার্কেট এবং বিভিন্ন হাট বাজারে বইছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে বিশ্লেষণ। নড়েচড়ে উঠেছে চেয়ারম্যান ও সদস্য পদের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। অনেকেই আগাম প্রচার-প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। কুশল বিনিময়ও করছেন অনেকেই।

প্রচার-প্রচারণায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেক প্রার্থীর সাক্ষাৎকার, ব্যানার, পেস্টুন ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে প্রান্তর থেকে প্রান্তরে। গাছে গাছে ঝুলছে রং বেরঙ্গের ব্যানার-পেস্টুন। ইউনিয়নের উন্নয়ন নিয়ে নিজের ভাবনা, নিজের নির্দিষ্ট লোক দিয়ে প্রচার-প্রচারণা সমান তালে চালাচ্ছে। সরেজমিনে কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে, নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীদের কেউ কেউ এলাকার ভোটারদের মাঝে দিচ্ছেন আগাম প্রতিশ্রুতি। এছাড়াও নানারকম কৌশল অবলম্বন করে ভোটের মাঠ নিজেদের অনুকূলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন অনেকেই। দলীয় সমর্থন পেতে একই আসনে একাধিক প্রার্থীর পক্ষ থেকে চলছে নানারকম তদবির।

জানা যায়, উপজেলার ১নং বিষ্ণপুর, ২নং আশিকাটি, ৩নং কল্যাণপুর, ৪নং শাহমাহমুদপুর, ৫নং রামপুর, ৬নং মৈশাদী, ৭নং তরপুরচন্ডী, ৮নং বাগাদী, ৯নং বালিয়া, ১০নং লক্ষীপুর, ১১নং ইব্রাহিমপুর, ১২নং চান্দ্রা, ১৩নং হানারচর ও ১৪নং রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে দলীয় সমর্থন পাওয়ার জন্যে তৎপর হয়ে উঠেছে ওইসব ইউনিয়নের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯-এর ২৯ (৩) ধারা অনুযায়ী, পরিষদ গঠনের জন্য কোন সাধারণ নির্বাচন ঐ পরিষদের জন্য অনুষ্ঠিত পূর্ববর্তী সাধারণ নির্বাচনের তারিখ হইতে ৫ (পাঁচ) বৎসর পূর্ণ হইবার ১৮০ (এক শত আশি) দিনের মধ্যে অনুষ্ঠিত হইবে।

উল্লেখ্য, আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিলে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এবারও দেশব্যাপী ধাপে ধাপে ভোট করার চিন্তা আছে সাংবিধানিক এই প্রতিষ্ঠানটির। এক্ষেত্রে ভোট গ্রহণের জন্য ৪০ থেকে ৩৭ দিন হাতে রেখেই র্নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। প্রথম ধাপের ভোট মার্চের মাঝামাঝি হতে পারে।

দ্বিতীয় ধাপের ভোট মার্চের শেষে এবং এপ্রিলে তৃতীয় ধাপের ভোট হতে পারে। এ জন্য ফেব্রুয়ারির শুরুতে তফসিল ঘোষণা করবে কমিশন। এবার দলীয় প্রতীকে ব্যালট পেপারের পাশাপাশি উপজেলা সদরের ইউপিগুলোতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের পরিকল্পনাও রয়েছে। আইন অনুযায়ী আগামী বছরের ২১ মার্চের মধ্যে প্রথম ধাপের নির্বাচন করতে হবে কমিশনকে।

Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের পূর্ণ সুস্থতা কামনায় দোয়া অনুষ্ঠান

এস.এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমানের দ্রুত পূর্ণ সুস্থতা কামনায় গতকাল …

Shares
vv