ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রবাস / প্রবাসীদের সাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে রিয়াদ ঢাকা মেডিকেল সেন্টার

প্রবাসীদের সাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে রিয়াদ ঢাকা মেডিকেল সেন্টার

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়, সৌদি আরব : প্রবাসী বাংলাদেশিদের বলছি – করোনায় সাস্থ্য ঝুঁকি থেকে বাঁচি, দ্রুত সাস্থ্যসেবা নিতে ঢাকা মেডিকেল সেন্টারে আসি-এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে রিয়াদ বাথা একমাত্র বাংলাদেশি সাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ঢাকা মেডিকেল সেন্টারের পক্ষ থেকে প্রবাসীদের যেকোনো ধরনের অনলাইন সেবা দেয়ার লক্ষে হ্যালো ডাক্তার নামে সেবা চালু করা হয়েছে।

এখন থেকে আপনি ঘরে বসেই ৯৯৭ নাম্বারে কল করে ডাক্তারের পরামর্শ ও হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার আগে এপয়েন্টমেন্ট নিতে পারবেন – ঢাকা মেডিকেল সেন্টারের পেসেন্ট ও পাবলিক রিলেশন অফিসার সাংবাদিক ও নাট্যকার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় এর গ্রন্থনা, পরিকল্পনা ও উপস্থাপনায় ফেইসবুক লাইভে প্রবাসী বাংলাদেশিরা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারবেন, হ্যালো ডাক্তার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ডাক্তারদের সাস্থ্যসেবা নিয়ে প্রশ্ন করতে পারবেন অথবা যে কোন সময় -০৫৩৭০৪৪৪৪৬ হোটসফ নাম্বারে মেসেজ করতে পারেন। আপনাদের পাঠানো প্রশ্ন গুলির উত্তর আমাদের ডাক্তাররা দিবেন।

স্থানীয় ডাক্তারা বলেন সর্দি, কাশি এটি আবহাওয়া পরিবর্তন হলেও হয় এতে আতংকিত হবার কিছু নেই,তবে যদি এই গুলির মাত্রা বেড়ে যায় বা আপনি শারীরিক ভাবে অসস্থিবোধ করছেন তাহলে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল সেন্টার অথবা নিকটস্থ হাসপাতালে গিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহন করবেন। করোনায় আতংকিত না হয়ে সবাই সচেতন হই।

হ্যালো ডাক্তার অনুষ্ঠানের বিষয়ে ঢাকা মেডিকেল সেন্টারের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন – স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরে মানবিক চিন্তা থেকে কিছু সংখ্যক প্রবাসীদের আন্তরিকতার কারনেই সৌদি আরব রিয়াদ বাথায় বাংলাদেশিদের জন্য ঢাকা মেডিকেল সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে। আল্লাহ পাক সবাইকে সুস্থ রাখুন সেই দোয়া করি।

হাসপাতালের ব্যাস্থাপনা পরিচালক -মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন – বলেন আমি শুরুতেই ঢাকা মেডিকেল সেন্টারের পক্ষ থেকে সবাইকে জানাচ্ছি আন্তরিক শুভেচ্ছা। দোয়া করি মহান আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন এবং সুস্থ ও নেক হায়াত দান করুন।

আপনারা জানেন স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪৯ বছর পরে প্রবাসের মাটিতে দেশীয় একমাত্র সাস্থ্যসেবা কেন্দ্র রিয়াদ বাথা ঢাকা মেডিকেল সেন্টার, গত ২০১৬ সালের ১৬ জুন এই সেবা কেন্দ্র চালু হয়। ২০১৬ সালে ৯৮৮০ জন,২০১৭ সালে -৪৯.৯৯৪ জন, ২০১৮ সালে – ৫৪.৭৫২ জন, ২০১৯ সালে -৭৪.৩৭৯ জন এবং ২০২০ সালের ২২ মার্চ পর্যন্ত ২১.০৩৬ জন কে সেবা দেয়া হয়েছে।

২০১৬ থেকে ২০২০ সালের ২২ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল সেন্টারের পক্ষ থেকে প্রায় দুই লক্ষ দশ হাজার জন প্রবাসীদের সাস্থ্যসেবা দিতে সক্ষম হয়েছে।

এই প্রাপ্তি আমাদের একার নয়, এ প্রাপ্তি সমস্থ প্রবাসীদের, সকলের, আন্তরিকতা, সহযোগিতা ছিলো বলেই তা সম্ভব হয়েছে। আগামীতেও বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ঢাকা মেডিকেল সেন্টারকে এগিয়ে নিতে আপনাদের আন্তরিক পরামর্শ ও সহযোগিতা কামনা করছি। প্রবাসীদের সাস্থ্যসেবা দেয়ার লক্ষে কতৃপক্ষ, কর্মকর্তা, কর্মচারীরা সদা প্রস্তূত রয়েছে। পাশাপাশি যে কোন প্রয়োজনে যখনি ঢাকা মেডিকেল সেন্টার পরিবারকে স্বরণ করবেন আমরা সবসময়, সকল ভালো কাজে প্রবাসীদের কল্যাণে থাকার প্রত্যয় ব্যাক্ত করছি।

বিশ্ব জুড়ে করোনা আতংকে থাকা মহান আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন।

অর্থ পরিচালক মাওলানা সফিউল্লাহ বলেন -প্রবাসীদের সেবা দিতে আমরা তৈরি আছি, বর্তমান বিশ্ব জুড়ে করোনা ভাইরাস আতংকে পৃথিবীর সবাই আতংকিত, আমি বলবো আতংকিত না হয়ে মহান আল্লাহর রহমতের জন্য দোয়া চান, আল্লাহ পাক অবশ্যই তার বান্দাদের হেফাজত করবেন। আর প্রবাসী বাংলাদেশি ভাইদের বলবো আতংকিত না হয়ে সচেতন হন, মুখে মাক্স, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যাবহার করুন। পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন, আপনাদের যেকোনো সাস্থ্যসেবার জন্য ৯৯৭ কল করুন ইনশাআল্লাহ আমরা চেস্টা করবো আপনাদের সেবা দিতে। মহান আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন এবং সুস্থ ও নেক হায়াত দান করুন – আমিন।

সৌদি আরব রিয়াদ প্রবাসের মাটিতে বাংলাদেশি সাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানটি যাদের আন্তরিকতারা কারনে রাত – দিন সেবা দিতে সক্ষম হচ্ছে – তারা হলেন –

1)Munirul Islam -Charman
2)Fazle Rabbi. -vice chairmen
3)Abdullah al mamun -Managing Director
4)Sakwat Hossain Arman -D.M.D
5)Sofiullah. -Finance Director
6)Sofiq saimum- Director of admin
7)Akhter Hossain -Director of marketing

8)Jakir Hossain -Marketing
9)Hasan Sekh – public relation
10)Abdul Wahid – Director of inter communication
11)Saiful Islam – international relations director

যাদের আন্তরিকতার কারনেই রাতে – বা দিনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের যে কোন সাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে ঢাকা মেডিকেল সেন্টার। একটি কাজ করতে গেলে ভালো খারাপ উভয় থাকে বলেও কতৃপক্ষ জানান।

প্রবাসের মাঝে প্রবাসী বেশির ভাগ শ্রমিক ঝুকিপূর্ণ কাজ করে থাকে, অনেক সময় তাদের হাত, পা কেটে যায় বা অনেকেই বিল্ডিং এ কাজ করতে গিয়ে পড়ে যায় তারা অন্য বেসরকারি হাসপাতালে যে সেবা গুলি পায়না, সে সকল সেবা গুলি আমরা দিয়ে থাকি – অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকের কোন কিছুই নেই তার জরুরি সাস্থ্যসেবা দরকার শুধু কেবল বাংলাদেশি বলেই তাকে প্রাথমিক সেবা দিয়ে থাকি, কারন ঢাকা মেডিকেল সেন্টার বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান।

রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাস সহ প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটির রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সাংবাদিকদের আন্তরিক সহযোগিতা নিয়েই আমাদের পথচলা, স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪৯ বছর পরে হলেও প্রবাসের বুকে একমাত্র বাংলাদেশি সাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ঢাকা মেডিকেল সেন্টার যাত্রা শুরু করেছে।
যা অতিতে ছিলো না।

আজ বিশ্ব জুড়ে করোনা ভাইরাস এর মধ্যেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের আতংকিত না হয়ে সচেতনতার সাথে যেকোনো সাস্থ্যসেবা দেয়া হচ্ছে, সৌদি আরব সরকারের আইন মেনেই চলছে সেবা। আসুন সবাই সচেতন হই, ঘরে থাকি, নিরাপদে থাকি, বিনা প্রয়োজনে যেনো কেউ বাহিরে না যাই। মহান আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন এবং সুস্থ ও নেক হায়াত দান করুক – আমিন।

Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুরে আইসোলেশনে ১ জনের মৃত্যু, করোনা উপসর্গ আরো ৬জনের

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সরকারি জেনারেল (সদর) হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনায় আক্রান্ত এক …

Shares
vv