ব্রেকিং নিউজঃ
Home / আঞ্চলিক খবর / পুরানবাজারে সাইয়ান চৌধুরীকে অহেতুক মারধরের অভিযোগ

পুরানবাজারে সাইয়ান চৌধুরীকে অহেতুক মারধরের অভিযোগ

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুর পৌর ৪নং ওয়ার্ডের পুরানবাজারে ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক সাইয়ান চৌধুরীকে অহেতুক মারধর করা হয়েছে জানিয়ে থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।
২০শে অক্টোবর মঙ্গলবার সকালে এ মারধর করা হয়েছে বলে থানার এজাহারে উল্লেখ করা হয়।
থানার একাজার এবং স্থানীয় জসিম খান, আজিজ ডালি, মাহবুবুর রহমানসহ একাধিক লোক গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, সকালে চৌধুরীর এলাকার বাড়িতে এক মহিলা মারা যাওয়ায় তার দাফনের আয়োজন চলছিলো। এ সময় সাইয়ান চৌধুরী কে ভোরে জরুরী কথা আছে জানিয়ে ডেকে নেয় স্থানীয় মনু মিয়া। আর এরপরই পূর্ব পরিকল্পিতভাবে সাইয়ান চৌধুরীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মেরে ফেলতে অতর্কিত হামলা চালানো হয়েছে। যদিও স্থানীয় সচেতনমহল সাইয়ান চৌধুরীকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পরে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ভর্তি করে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং প্রশাসনের নিকট দোষীদের কঠোর শাস্তি দাবী করছি।
এদিকে থানায় দায়েরকৃত এজাহার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সাইয়ান চৌধুরী গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, সকাল বেলা আমান উল্লাহ রাজু চৌধুরী তার কেয়ারটেকার মনু মিয়াকে দিয়ে আমাকে জরুরী কথা শুনতে ডেকে পাঠায়। পরে আমি মনু মিয়ার কথা মতো হাজির হই। তখন রাজু চৌধুরী আমাকে বলে এ জায়গায় ইট রাখছে কে? এগুলো এখোনি সরা নইলে বিপদ হবে।এরপর আমাকে এ কথার আর উত্তর দেওয়ার সুযোগ না দিয়ে নানা অকথ্য ভাষায় পাশে থেকে কয়েকজন গালাগাল দিতে থাকে।
সাইয়ান চৌধুরী গণমাধ্যমকর্মীদের আরো বলেন, আমি ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে চাইলে খোরশেদ আলম বাদল চৌধুরী, সৌরভ হোসেন মামুন চৌধুরী, খলিল চৌধুরী বাবলু, মনির চৌধুরী, সেলিম চৌধুরীসহ অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জন আমাকে ইট, লাঠিসোটাসহ কিল-ঘুষি-লাথি মারতে থাকে। একপর্যায়ে আমার মাথায় মারের আঘাত লাগলে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। পরে স্থানীয় সচেতনমহল আমাকে ধরাধরি করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সুযোগে হামলাকারীরা আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙ্গচুর করে। আমি প্রশাসনের কাছে বিচার চাইতে থানায় এজাহার দায়ের করি।
এদিকে সাইয়ান চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা প্রসঙ্গে চাঁদপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, সাইয়ান চৌধুরীর রক্তক্ষরণ এখন নিয়ন্ত্রণে। আমরা তাকে সুস্থ করতে সাধ্যমতো চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।
এদিকে হামলার প্রসঙ্গে খোরশেদ আলম বাদল চৌধুরী, সৌরভ হোসেন মামুন চৌধুরী, খলিল চৌধুরী বাবলু, মনির চৌধুরী ও সেলিম চৌধুরীর কাউকেই তাৎক্ষণিকভাবে না পাওয়া যাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
এদিকে এ বিষয়টি চাঁদপুর পৌর ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মামুনুর রহমান দোলনকে মুুঠোফোনে অবহিত করা হলে তিনি গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, এ ঘটনাটি দুঃখজনক। তবে এটি আমাকে কেউ জানায়নি। আমি ভালোভাবে জেনে নেই। পরে জেনে পুরো ঘটনার আলোকে সুন্দরভাবে বক্তব্য দিবো।
এদিকে থানার এজাহার দায়েরের সূত্র ধরে ঘটনাস্থলে তদন্তে গিয়েছেন বলে গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন পুরান বাজার ফাঁড়ির এস আই নিলুপুর রহমান। তিনি হামলার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, ইট রাখা এবং তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি দুঃখজনক এবং নিছক তুচ্ছ ঘটনা। আমরা আরো ভালোভাবে ঘটনাটি পর্যবেক্ষণ করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে দিনশেষে সিএনজি চালক ইমরানের বাড়ি ফেরা হলোনা

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দিনভর সিএনজি থ্রি হুইলার চালিয়ে চালক ইমরানের আর বাড়ি …

Shares
vv