ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / পল্লী বিদ্যুৎ বিলে হয়রানির শিকার হচ্ছেন সাধারন গ্রাহকগণ

পল্লী বিদ্যুৎ বিলে হয়রানির শিকার হচ্ছেন সাধারন গ্রাহকগণ

মাসুদ হোসেন : গত দুই তিন মাসে বিদ্যুৎ বিলের কপি হাতে পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর গ্রাহকরা। বিগত দুই তিন মাস আগের তুলনায় গত দুই তিন মাসে হঠাৎ করে বিলের পরিমান বেড়ে যাওয়ায় গ্রাহকের মাঝে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর আওতাধীন ৪টি জোনাল অফিসের গ্রাহকগণ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, আমরা গত দুই মাসের বিদ্যুৎ বিল প্রদান করেও এ মাসে ঐ বিল গুলোর টাকা যুক্ত করে দিয়েছে। এমনকি অনেকেই আগের বিলসহ নতুন বিলের সাথে যুক্ত হওয়া পুরনো টাকা দিয়ে দিয়েছেন। এর কারন জানতে চাইলে তারা গ্রাহকদের জানান, আপনাদের বাকী বিল গুলো জমা দেওয়ার আগেই বর্তমান বিল প্রস্তুত করা হয়েছে। আর এর সমাধান করতে গ্রাহকগণ ছুটে আসেন তাদের নিজস্ব জোনাল অফিসে। এতে হয়রানির শিকার হচ্ছেন হাজারও সাধারন গ্রাহক।

চাঁদপুর জোনাল অফিসের বিল প্রস্তুতকারী লাভলীর কাছ থেকে এর কারন জানতে চাইলে তিনি দৈনিক চাঁদপুর খবরকে জানান, গ্রাহকদের কাছ থেকে পুরনো বিল গুলো আদায়ের লক্ষে নতুন করে এ নিয়ম চালু করা হয়েছে। কিন্তু কারো কারো ক্ষেত্রে পুরনো বিল পরিশোধ করার পরও ঐ সমপরিমান টাকা নতুন বিলের সাথে পূণরায় যোগ করা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিল প্রস্তুতের তারিখের মধ্যে গ্রাহকরা যে ব্যাংকে বিল পরিশোধ করেন সেখান থেকে আমাদের কাছে ঐ কপি গুলো আসতে সময় লাগে, তাই পুরনো বিলের সমপরিমান টাকা নতুন বিলে যোগ করে দেওয়া হয়।

মঙ্গলবার (৩ এপ্রিল) চাঁদপুর জেনাল অফিসে গিয়ে দেখা যায় দুর দূরান্ত থেকে আগত অসংখ্য বিদ্যুৎ গ্রাহক অত্যন্ত ক্ষোভ নিয়ে ছুটে আসেন তাদের সমস্যাগুলো সমাধান করার জন্য। এ বিষয়ে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের লোধেরগাঁও গ্রামের জাকির হাজী এই প্রতিবেদককে জানান, আমার বাড়ীর বিলটি গত ৬ মার্চ রুপালী ব্যাংক, মহামায়া শাখায় প্রদান করি। কিন্তু ঐ বিলের টাকা নতুন বিলের সাথে যোগ করে দেয়া হয়েছে। অথচ নতুন বিলটি ১৮ মার্চ প্রস্তুত করা হয়েছে।

এই ১২ দিনে কি আমার বিলের কপি অত্র অফিসে পৌছে নাই? একই অভিযোগ করেন ঐ গ্রামের বিল্লাল হোসেনও তিনি বলেন, আমার বাকী দুইটি বিল ব্যাংকে দেওয়ার ৬-৭দিন পরে নতুন বিলটি প্রস্তুত করা হয়েছে। আর এমন সমস্যার সমাধান করতে নিজের কাজ কর্ম পেলে রেখে মহামায়া থেকে ছুটে আসতে হয় চাঁদপুর জোনাল অফিসে। এতে তাদের অনেক হয়রানি ও ক্ষতি হয় বলে জানান।

এর সত্যতা জানার জন্য জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনরেল ম্যানেজার (কারিগরী) মো. মনিরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি সত্য তবে এর সম্পূর্ণ বিস্তারিত জানার জন্য সহকারী জেনরেল ম্যানেজার (অর্থ-হিসাব) এবং বিল প্রস্তুতকারীদের সাথে কথা বলার জন্য অনুরোধ করেন। এমন ভুক্তভোগী বিদ্যুৎ গ্রাহকগণ পূর্বের মতো নিয়ম রেখে আর এ সমস্যাগুলো দ্রুত সমাধান করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট অনুরোধ জানান।

Facebook Comments

Check Also

সকল জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন শতভাগ করতে হবে : আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান

সজীব খান : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদের এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের মাস্ক, সাবান, ব্লিচিং, …

vv