ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় মতলব উত্তর / পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে মতলব উত্তর ষাটনল পর্যটন কেন্দ্রে

পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে মতলব উত্তর ষাটনল পর্যটন কেন্দ্রে

মনিরুল ইসলাম মনির,
প্রধান প্রতিবেদক :

মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল পর্যটন কেন্দ্রে পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে। তবে এই ভিড় বেশি লক্ষ্য করা যায় বিশেষ করে শুক্রবার ও সরকারি ছুটির দিন। বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বড় বড় লঞ্চ নিয়ে আসে এই ষাটনল পর্যটনে। ঢাকার নিকটবর্তী ও লঞ্চযোগে যাতায়াত সুবিধার কারণেই এই ষাটনল পর্যটন কেন্দ্রে ভিড় করছেন। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কারণেই এই শীতে পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে এ পর্যটন কেন্দ্রে।

নদীর ভাঙনমুক্ত সবুজে ঘেরা দীর্ঘ মাঠ, সৌন্দর্যমন্ডিত সারি সারি গাছ আর সন্ধ্যায় পশ্চিম আকাশের সূর্য ধীরে ধীরে নদীর বুকে সূর্যাস্তের দৃশ্য পর্যটকদের আকৃষ্ট করে। মতলব উত্তর উপজেলার পদ্মা ও মেঘনা নদীর মিলনস্থলে মেঘনা নদীর পাড়ে ষাটনল পর্যটন কেন্দ্র দিন দিন খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। তাছাড়া ষাটনলের এ স্পটটি ভৌগোলিক দিক থেকে নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ ও ঢাকার খুবই কাছে।

চাঁদপুর জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে ২০০০ সালের ২৩ এপ্রিল মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনলে তিন মন্ত্রীর উপস্থিতিতে পর্যটন কেন্দ্রের ভিত্তিপ্রস্তরের ফলক উন্মোচন করা হয়। ষাটনলের মেঘনা নদীর পাড়ে প্রায় একশ’ একর ভূমির ওপর পিকনিক স্পট নির্মাণ করার জন্য চাঁদপুর জেলা পরিষদের ওপর দায়িত্ব দেয়া হয়। জেলা পরিষদ বিশ্রামাগার, রন্ধনশালা, ড্রেসিং ভবন ও ডাইনিং ভবন নির্মাণ করে।

 

এছাড়া স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ও নলকূপ স্থাপন করা হলেও এখনো আরো অনেক কিছু প্রয়োজন। জেলা পরিষদের একজন কর্তা জানান, প্রয়োজনীয় বরাদ্দ না পাওয়ায় আনুষঙ্গিক অনেক কাজ এখনো বাকি আছে। তবে বরাদ্দ পাওয়া গেলে ষাটনলকে আধুনিক পর্যটন কেন্দ্রে রূপান্তর করা সম্ভব। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে নৌ ও সড়কপথে এ পর্যটন কেন্দ্রে আসা সম্ভব।

ষাটনল থেকে চাঁদপুর লঞ্চঘাট পর্যন্ত নদীর পাড় ও চরগুলো পিকনিক স্পট হিসেবে পর্যটকরা ব্যবহার করতে পারেন। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ, খরচ কম আর মনোমুগ্ধকর স্থান বলেই এ পর্যটন কেন্দ্র আকৃষ্ট করছে পর্যটকদের।

এ পর্যটন কেন্দ্রটি ক্রমেই জমে উঠছে।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে পুকুরে ডুবে বাক্ প্রতিবন্ধী শিশুর মৃত্যু

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে পুকুরের ডুবে ফাহিম (৬) নামে এক শিশুর করুণ মৃত্যু …

vv