ব্রেকিং নিউজঃ
Home / টকশো / নির্বাচিত হলে পৌরসভার আদলে তরপুরচন্ডীকে গড়ে তুলবো : চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাড. মঞ্জু

নির্বাচিত হলে পৌরসভার আদলে তরপুরচন্ডীকে গড়ে তুলবো : চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাড. মঞ্জু

এইচ.এম নিজাম : চাঁদপুরে বইছে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ এর নির্বাচনী হাওয়া। শুরু হয়েছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ। ভোটারদের দরজায় কড়া নাড়তে শুরু করেছে ইউনিয়ন পরিষদের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ছোট পরিসরে হলেও চলছে উঠান বৈঠক, মতবিনিময় সভা ও সামাজিক যোগাযোগ রক্ষা।
ভোটারদের মাঝে নির্বাচনী হাওয়া পুরোপুরি না বইলেও ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থীরা। চলছে ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ। দলীয় মনোনয়ন পেতে শুরু হয়েছে ব্যাপকভাবে দৌড়ঝাঁপ। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন ও দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ার পর, এখন ভোটার ও প্রার্থীরা দলীয় মনোনয়নের দিকেই নজর রাখছেন। তাই এবারও দলীয় সমর্থন নিয়েই প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশ নিবেন এমন কথাই শোনা যাচ্ছে গ্রামগঞ্জ এর ভোটারদের কাছে।
এদিকে গত দুই-তিন মাস আগ থেকেই সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজ নিজ এলাকায় ব্যানার ফেস্টুন দিয়ে জানান দিচ্ছেন নিজেদের অবস্থান। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রেও যোগাযোগ রাখছেন দলের নীতিনির্ধারকদের সাথে।
এলাকার সাধারণ ভোটাররা কোশ্চেন হিসাব-নিকাশ। চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। যিনি আছেন তিনি থাকবেন, নাকি প্রয়োজন পরিবর্তন। এ ধরনের আলোচনায়ই চলছে চায়ের স্টল ও বিভিন্ন মহল্লার আড্ডায়।
একজন ভোটারের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমরা এমন জনপ্রতিনিধি চাই, যার দ্বারা আমাদের নাগরিক সেবা নিশ্চিত হবে। আমরা ন্যায়বিচার পাব। দুর্নীতিমুক্ত ইউনিয়ন পরিষদ হবে।
জনগণের এমন আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন এর কথা বললেন চাঁদপুর সদর উপজেলার ৭ নং তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন এর সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাড. মোহাম্মদ আলম খান (মঞ্জু)।
তিনি তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ডের খান বাড়ির বাসিন্দা। চাঁদপুর ৩ আসনের সাবেক এমপি জি এম ফজলুল হক এর বড় ভায়রা ও বিএনপি নেতা শাহাদাত কাজীর বড় বোনের ছেলে। অ্যাড. আলম খান মঞ্জু পেশায় একজন আইনজীবী। তিনি চাঁদপুর দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালতে দক্ষতার সাথে দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে আসছেন। কুষ্টিয়া ইসলামী ইউনিভার্সিটি তে এমফিল গবেষক হিসেবে অধ্যায়নরত রয়েছেন।
এডভোকেট আলম খান মঞ্জু ২০০১ সালে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের টেকনিকেল হাই স্কুল শাখার সভাপতি ও তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন ছাত্র দলের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক  হিসেবে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে সক্রিয়ভাবে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত রয়েছেন। পরবর্তীতে চাঁদপুর সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ন আহবায়ক ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আইন বিষয় সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করে বর্তমানে সদর উপজেলা বিএনপির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের দপ্তর সম্পাদক।
৭নং তরপুরচন্ডী ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাড. আলম খান মঞ্জুর সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি দৈনিক চাঁদপুর প্রতিদিনকে জানান, আমি দীর্ঘদিন যাবত ছাত্রদল থেকে শুরু করে বিএনপির রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত। তাই আমি আসন্ন তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। তবে দল আমাকে মনোনয়ন দেখবা না দেখ আমি আজীবন দলীয় নেতা-কর্মীদেরকে সাথে নিয়ে দলের পক্ষে মাঠে থেকে কাজ করব।
জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত করলে শহরতলী এই তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন কে পৌরসভার আদলে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবো। আমার স্লোগান হবে, গ্রাম হবে শহর। এই স্লোগান বাস্তবায়নে আমি আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাবো।  ইউনিয়ন বাসীর মতামতের ভিত্তিতে ইউনিয়নের মধ্যে নতুন ইউনিয়ন পরিষদ ভবন তৈরির কাজ করব। দল-মত নির্বিশেষে সকল শ্রেণি পেশার জনসাধারণকে নিয়ে ইউনিয়ন উন্নয়ন নাগরিক কমিটি গঠন করা হবে।
বাল্যবিবাহ, মাদকমুক্ত ইউনিয়ন গঠন ও ইভটিজিং বন্ধ সহ অন্যান্য সকল সমাজকল্যাণমূলক কাজ সরকারি সংস্থার সাথে সমন্বয় করে সামাজিক সেবা নিশ্চিত করবো। তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের নাগরিক সুযোগ-সুবিধা দ্রুত সময় জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়া হবে। আমি নির্বাচিত হলে যেকোনো আইনগত সেবা বিনামূল্যে প্রদান করা হবে।
Facebook Comments

Check Also

তেলে আগুন, স্বস্তি কাঁচা বাজারে!

এস.এম ইকবাল : বাঙালি মানেই খাদ্যরসিক। আর খাবারের প্রতি ভালোবাসা যেখানে, সেখানে বাজারে যাওয়ার প্রতি টান …

Shares
vv