ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / তরুনদের অহংকার চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিউদ্দিন রিপন

তরুনদের অহংকার চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিউদ্দিন রিপন

স্টাফ রিপোর্টার : আসছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা গাঁ ঝাড়া দিয়ে উঠছে। সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতোমধ্য নিজ ইউনিয়নের মসজিদ ও ধর্মীয় উপাশনালয় সহ বিভিন্ন সামাজিক কাজে অংশ গ্রহন করে জনগনের সঙ্গে মনের খায়েশ জানান দিচ্ছে। সামাজিক কাজের পাশাপাশি সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা তাদের রাজনৈতিক পরিচয় এবং দলের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা ‘তুলে ধরে নিজের পরিচয় তুলে ধরছেন। পুরান সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের চেয়ে নতুন মুখ এবং যুবক প্রার্থীদের পদচারণা এণাকায় পরিলক্ষিত হচ্ছে।

নির্বাচনী এলাকায় যুবসমাজের প্রভাব একটু বেশি বলে প্রতিয়মান। এলাকায় প্রচার রয়ছে এবার পারিবারিক রাজনীতি আর পারিবারিক চেয়ারম্যান হওয়ার বলয় থেকে বাহির হওয়ার জন্য জনগন ও ভোটাররা মাঠে কাজ করবে। ওই সুবাধে এই ইউনিয়নে বর্তমান যুব সমাজের অহংকার আর ২০০১ সাল বিএনপি’র জোট সরকার আমলে মামলা হামলার শিকার মোঃ মহিউদ্দিন রিপন পাটওয়ারী সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে স্থানীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন বলে তার অনুসারীরা প্রিয় চাঁদপুরকে জানান।

জানা যায়, ১৩নং সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের হাড়াইরপাড়া গ্রামের ঐতিহ্যবাহি পাটওয়ারী বাড়ির সম্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন মহিউদ্দিন রিপন। সমাজে তার আলাদা একটা পরিচয় রয়েছে। তিনি সমাজের ব্যক্তিত্বসম্পন্ন মৃত হাজী মোঃ আব্দুল হামিদ পাটওয়ারী’র নাতি এবং প্রাক্তন সরকারি কর্মকর্তা মৃত মোঃ আব্দুল ছাত্তার পাটওয়ারীর পুত্র। তিনি সংসারে ভাই-বোনদের মধ্য সবাইর ছোট। তিনি একজন সফল ব্যাবসায়ী, তিনি দাম্পত্য জীবনে স্ত্রী, ১পুত্র ও ১ কন্যা সন্তানের জনক।

তার রাজনৈতিক সতিত্বরা জানান, মহিউদ্দিন রিপন ১৯৯৪ সালে দক্ষিন এশিয়ার বৃহত্তম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজপথে এসে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ৯৬’র অসহযোগ আন্দলন এবং মানণীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চাঁদপুর ৫ আসনে নৌকা প্রতীক মনোনীত প্রার্থী শ্রদ্ধেয় মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমকে বিজয়ী করতে আপন মনে কাজ করেন। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এবং আমাদের অভিভাবক সংসদ সদস্যর অনুমতিক্রমে ১৯৯৮ সালে বন্যাপীড়িত অসহায়, হতদরিদ্র ও দুস্ত মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন এবং ইউনিয়ন এলাকার ঘরে ঘরে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছার ব্যাবস্থা করেন। ২০০১ সালে বিএনপি -জামায়াত জোট সরকার আমলে বহু হামলা মামলার শিকার হয়ে জীবন রক্ষার্থে তার সকল সহযোগী নেতা -কর্মীদের নিয়ে ঢাকায় চলে যায়। এতো নির্যাতনের শিকার হয়েও এলাকায় দলের স্বার্থে দলীয় সকল কর্মকান্ডে অংশ গ্রহনসহ সার্বিক সহযোগীতা করে আসছে।

এছাড়া তিনি দল ও সামাজিক সংগঠনের ডোনার। আত্মীয়-স্বজন ও এলাকর জনসাধারনের ভাষ্য মতে তিনি নিজ ইউনিয়নের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ,মাদ্রাসা,এতিমখানা ও অসহায় গরীব মানুষদের দান অনুদান দিয়ে আসছেন।

তিনি সম্প্রতি এলাকায় দুস্ত মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করে তাদের নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্তা করেন।
১৩নং সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নবাসীর ভাগ্যে নির্মানে, গ্রামকে শহরে রুপান্তর করার আরো একধাপ এগিয়ে নিতে আর জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করতে ও চাঁদপুর -৫, (হাজিগঞ্জ -শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য আপময় জনতার অভিভাবক মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের হাতকে শক্তিশালি করতে পরিশ্রমী তরুণ ছাত্রনেতা ও কর্মীবান্ধব মো.মহিউদ্দিন পাটওয়ারী রিপনের বিকল্প নেই। স্থানীয়দের প্রত্যাশা ছাত্রনেতা মহিউদ্দিন রিপনকে দলীয় মনোনয়ন নৌকা প্রতীক দিয়ে এলাকায় পাঠালে বিজয়ী নিশ্চিত।

অপরদিকে পৌরসভা নির্বাচনের পরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হওয়ার কথা। এখনই এলাকায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে চলছে কঠিন সমীকরণ। পুরাণ আর নতুন সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে চলছে ছুল ছেড়া বিশ্লেষণ। এই ইউনিয়নে সাধারণ ভোটার ও সুবিদা বঞ্চিতরা প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও অন্তর জ্বালায় পুড়ে মরছে। সামনের নির্বাচনে সাধারণ ভোটার ও দলীয় কর্মীদের মূল্যায়ন না করা হলে বেস্তে যেতে পারে বিজয়ের ধারবাহিকতা এমন মন্তব্য করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে দিনশেষে সিএনজি চালক ইমরানের বাড়ি ফেরা হলোনা

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দিনভর সিএনজি থ্রি হুইলার চালিয়ে চালক ইমরানের আর বাড়ি …

Shares
vv