ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / চাঁদপুর মেঘনা নদীতে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

চাঁদপুর মেঘনা নদীতে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

স্টাফ রিপোর্টার : মহামারী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকার ১৪ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা ও সকল ধরনের কর্মযজ্ঞ বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করেন সরকার।

সরকারি নিষেধাজ্ঞার তোয়াক্কা না করে অবৈধভাবে চাঁদপুর মেঘনা নদীতে লোড ড্রেজার লাগিয়ে বালু উত্তোলন করছেন।
বাংলাদেশের সকল জায়গায় নদী থেকে বালু উত্তোলন বন্ধ থাকলেও শুধুমাত্র চাঁদপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম খান মেঘনা নদীতে আটটি ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করছেন।

ক্ষমতার প্রভাব ও পেশিশক্তি ব্যবহার করে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে হরিনা মৌজা, লক্ষ্মীপুর মৌজায় নদী থেকে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা এই অবৈধ বালু উত্তোলন করছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় বিভিন্ন এলাকা থেকে বালুর বলগেট হরিনা ও লক্ষ্মীপুর সংলগ্ন মেঘনা নদী মাঝখানে এসে বালু লোড করছে। মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের বিষয় জাতীয় পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ফলাও ভাবে সংবাদ প্রকাশ করা সত্ত্বেও এভাবে বালু উত্তোলন করায় জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় প্রতিবছরই নদীর দুই পাড় ভাঙ্গন দেখা দেয়।
এই বালু উত্তোলনের কারণে চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধ ও চাঁদপুর হাইমচর মেঘনা নদীর বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

প্রতিবছরই শহররক্ষা বাঁধের পুরান বাজার হরিসভা এলাকা ভাঙ্গন দেখা দেয়।
নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে প্রতি বছরই কোনো না কোনো জায়গায় দিয়ে ভাঙ্গন দেখা দিবে।
কিছুদিন পূর্বে চাঁদপুর কোস্টগার্ড অভিযান চালিয়ে প্রায় ১৭ জন সন্ত্রাসীকে অস্ত্রসহ বালু মহল থেকে আটক করে নিয়ে আসে।
বালু উত্তোলনকারীরা এই সন্ত্রাসীদের নদীতে পাহারায় রেখে দিনের পর দিন অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

হরিনা ও লক্ষ্মীপুর এলাকার বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী জানান, মেঘনা নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে কোন অবস্থাতেই এলাকার মানুষ নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পাবে না। তাই চাঁদপুর কোস্টগার্ড, বিআইডব্লিউটি ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। তারা যেন অভিযান চালিয়ে মেঘনা নদী থেকে বালু উত্তোলন বন্ধ করেন। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় সরকার কোটি কোটি টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সরকার যেভাবে বঞ্চিত তেমনি জনগণের ব্যাপক ক্ষতি, তাই এই অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোর দাবি জানান।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বালু উত্তোলনকারী চেয়ারম্যান সেলিম খানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তার মুঠোফোন বন্ধ থাকায় ও তাকে এলাকায় না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Facebook Comments

Check Also

হাজীগঞ্জে আরো তিন জনের রিপোর্ট পজেটিভ, মোট আক্রান্ত ১০

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সিভিল সার্জনের তথ্যমতে আজ বৃহস্পতিবার জেলায় ১২ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। …

vv