ব্রেকিং নিউজঃ
Home / জনপ্রতিনিধি / চাঁদপুর পৌর ১৩ নং ওয়ার্ডে উন্নয়নের বটবৃক্ষ আলমগীর গাজী

চাঁদপুর পৌর ১৩ নং ওয়ার্ডে উন্নয়নের বটবৃক্ষ আলমগীর গাজী

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুর পৌর ১৩ নং ওয়ার্ডে উন্নয়নের বটবৃক্ষ হিসেবে মানুষের মুখে মুখে খ্যাতি পেয়ে চলেছেন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর মোঃ আলমগীর গাজী। তাই তাকে ঘিরে ওই ওয়ার্ডটির উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারো তাকে পৌর কাউন্সিলর হিসেবে পেতে চায় ওয়ার্ডবাসী।

২১ সেপ্টেম্বর শনিবার ওই ওয়ার্ডের স্থানীয় জনতার সাথে সরজমিনে আলাপ করে জানা যায়, ঐতিহ্যবাহী চাঁদপুর পৌরসভায় ২০১৫ সালের ২১শে মার্চ নতুনকরে নির্বাচনের জন্য অন্তর্ভুক্ত হয় এই পৌর ১৩ নং ওয়ার্ড। সেখানে প্রায় সাড়ে ১০ হাজার ভোটারের এলাকায় মোট ৫ কেন্দ্রে ভোট হয়। এতে আওয়ামীলীগের হয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়ে তীব্র প্রতিদ্বন্দীতাপূর্ণ ভোটে মোঃ আলমগীর গাজী জয়ী হন এবং ২০ শে এপ্রিল শপথ গ্রহনের মাধ্যমে দায়িত্ব পেয়ে জনসেবা শুরু করেন।

স্থানীয় কয়েকজন প্রবিণদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, মোঃ আলমগীর গাজী ভোটারদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে মাত্র ৪ বছর ৫ মাসেই এই ওয়ার্ডের জন্য বরাদ্দ এনেছেন প্রায় ১০ কোটি টাকা। যার মধ্যে ৬ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে এবং বাকি ৪ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। প্রবিণরা জানান,মানুষের দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবীগুলো পূরণে সচেষ্ট ভূমিকায় কাজ করে চলেছেন মোঃ আলমগীর গাজী।

সেজন্যই তিনি ইতিমধ্যে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়ক হতে সুবেদার ফজলুল হকের রাস্তা করেছেন ড্রেনসহ, ওয়ারল্যাছ বাজারের জনদূর্ভোগময় রাস্তাটি নতুনরূপে করেছেন ড্রেনসহ,ওয়ারল্যাছ বাজার হতে ফরিদগঞ্জমুখী রাস্থা করেছেন ড্রেনসহ,মৃধাবাড়ী হতে বঙ্গবন্ধু সড়ক পর্যন্ত ড্রেন নির্মাণ করেছেন,আশ্রয়ন কেন্দ্র হতে ফরিদগঞ্জমুখী পর্যন্ত কাঁচা রাস্তা করেছেন।তারা আরো জানান,তিনি পালকান্দী গোপাল মাস্টার বাড়ী সড়কের ব্রীজ,বাহের খলিশাডুলির নাজিম দেওয়ানের বাড়ী হয়ে যাওয়ার রাস্তা,মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মধ্য তরপুরচন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গাইড ওয়াল নির্মাণ,ঢালী কান্দী টু শেখ বাড়ির জন্য কাঁচা রাস্তা নির্মাণ,সিদ্দিকের বাড়ী হয়ে খলিশাডুলি পর্যন্ত কাঁচা রাস্তা নির্মাণ সহ আরো অনেক রাস্তা নির্মাণ করেছেন।শুধু রাস্তার উন্নয়নই নয় তিনি আলোকিত করেছেন রাতের ওয়ার্ডবাসীকেও।

সেজন্যই তাঁর ওয়ার্ডের বিভিন্ন পারা মহল্লায় প্রায় ২২ টির মতো স্ট্রিট লাইটও তিনি স্থাপন করেছেন।

১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ সুলতান জানান,মোঃ আলমগীর গাজীর মাধ্যমে এখন পর্যন্ত প্রায় ৬০ জন নারী দুদ্ধজাত ভাতা পেয়েছেন। এছাড়াও অনেক নারী পেয়েছেন বিধবা ও বয়ষ্ক ভাতা। অনেক অসচ্ছল পুরুষও বিভিন্নভাবে প্রতিনিয়ত সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে উপকৃত হচ্ছেন। ওই ওয়ার্ডের কয়েকজন সমাজিক সংগঠকের নেতৃবৃন্দের সাথে আলাপ করে জানা যায়,পৌর ১৩ নং ওয়ার্ডটি পৌরসভায় সবচেয়ে বড় ওয়ার্ড।

এখানে প্রায় ৩৩ টি মসজিদ, ৪টি মন্দির, ৪টি সরকারি প্রাথমিক ও ১টি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এই ওয়ার্ডের প্রায় বেশিরভাগ মানুষই মোঃ আলমগীর গাজীর জনসেবা পেয়ে অত্যান্ত আনন্দিত। তিনি এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই তার নিজস্ব অফিসে সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত তার কাছে আসা মানুষের জনদূর্ভোগ ও সমস্যা শুনেন এবং তা বিভিন্নভাবে সমাধানের চেষ্টা করেন। তার ওয়ার্ডের হিন্দু-মুসলমান সহ সবার কাছেই তিনি অসাম্প্রদায়িক মনমানসিকতার জন্যও বেশ পরিচিত ও ক্লিন ইমেজের সজ্জন ব্যক্তিত্ব।

এদিকে মোঃ আলমগীর গাজীর সাথে আলাপ হলে তিনি জানান, চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির আন্তরিকতায় ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদের সহযোগিতায় আমি আল্লাহর দয়ায় এই ওয়ার্ডবাসীর জন্য নানান উন্নয়নমুখী কাজ করে যাচ্ছি। প্রায় ১০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজের মধ্যে এখনো শেখেরহাট টু মঠখোলা মাঝার পর্যন্ত এবং শেখেরহাট মেলেটারি রোড হয়ে ফরিদগঞ্জ সড়ক পর্যন্ত এবং ওয়াপদাগেইট হয়ে আদম খার বাড়ি পর্যন্ত প্রায় ৪ কোটি টাকার রাস্তার কাজ দ্রুত এগিয়ে নিচ্ছি। সকলের ইচ্ছায় ও আল্লাহর ভরসায় আমি এই ওয়ার্ডের উন্নয়নের কাজকে আরো এগিয়ে নিতে এবারো পৌর নির্বাচন হলে নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রার্থীতা করবো। তাই আমি যাতে এই ওয়ার্ডের মানুষকে আল্লাহর দয়ায় সেবা দিতে পারি সেব্যপারে সকলের দোয়া, সমর্থণ ও সহযোগিতা কামনা করছি।

এদিকে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ আলমগীর গাজী সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়া ছাড়াও খলিশাডুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এস এম সি’র সভাপতি, মধ্য তরপুরচন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক কমিটির সভাপতি, বরকন্দাজ বাড়ী জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির কোষাধ্যক্ষ, গাজী কলিমুল্লা রেজিয়া জামে মসজিদ পরিচালনা পর্ষদ কমিটির সভাপতি সহ আরো বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা ও সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে সুনামেরসহিত মানুষের সেবা করে চলেছেন। তাই মোঃ আলমগীর গাজীর মতো এমন একজন সামাজিক মানুষকেই আগামী পৌর নির্বাচনে ভোট দিয়ে এই ১৩নং ওয়ার্ডের মানুষ পুনরায় কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত করবেন বলে গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে।

Facebook Comments

Check Also

মতলব ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়নে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন

মনিরুল ইসলাম মনির : “শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ” এ স্লোগান নিয়ে মতলব উত্তর উপজেলার …

vv