ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / চাঁদপুর পৌর এলাকায় রয়েছে ৬০ হাজার বিদ্যুতের গ্রাহক

চাঁদপুর পৌর এলাকায় রয়েছে ৬০ হাজার বিদ্যুতের গ্রাহক

অমরেশ দত্ত জয় : বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড চাঁদপুরের আওতায় শুধুমাত্র পৌর এলাকায় ৬০ হাজারোধিক বিদ্যুৎের গ্রাহকের রয়েছে। যাদেরকে শতভাগভাবে লোডশেডিং মুক্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে।
২১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানালেন বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড চাঁদপুরের বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম ইকবাল। তার থেকে ২০১৯ এর অক্টোবর পর্যন্ত সময়ের প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, চাঁদপুর পৌর এলাকায়(ওয়ারল্যাছ হতে বাবুরহাটের কিছু অংশ বাদে) মোট ৬০ হাজার ৬’শ ২৬ জন বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী গ্রাহক রয়েছেন।যাদের মধ্যে আবাসিক ৫২ হাজার ৬’শ ২৮ জন এবং বাণিজ্যিক ৬ হাজার ৬’শ ১৮ জন গ্রাহক রয়েছে।এছাড়াও সেচ গ্রাহক ৮,বৃহৎ শিল্পে ৮,দাতব্য প্রতিষ্ঠান ৫’শ ৪৭ এবং অস্থায়ী ১’শ ৬৪ জন গ্রাহক রয়েছে।তিনি জানান,এসব গ্রাহকের মোটের ওপর ৮ হাজার ১’শ ৭৬ জন বাদে বাকি সবাই প্রি-প্রেইড গ্রাহক। অর্থাৎ প্রায় ৮৬% গ্রাহকই প্রি-প্রেইড গ্রাহক।যাদেরকে শতভাগ নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা দিচ্ছে ২ টি সব-স্টেশনের মোট ২’শ ৫০টি ট্রান্সফরমার।
তিনি জানান, বর্তমানের ৩৩/১১ এর সাব-স্টেশনগুলোর ১টি নতুন বাজার ও অন্যটি পুরাণবাজারে রয়েছে। যা সংস্কার কাজ চলছে এবং এগুলো করা হচ্ছে ঢাকা মন্ত্রণালয়ের অধীনে। সেই সাথে শহরের অদূরে গাছ তলায় নতুন আরো ১টি সাব-স্টেশন তৈরি হওয়ার প্রস্তাবনা রয়েছে।
তিনি আরো জানান, এই সাব-স্টেশনের সাথে নতুন প্রায় শতাধিক ট্রান্সফরমার বসানো ও লাইন রিনোভেশনেরও কাজ করা হবে। আর এই প্রকল্পটির নাম হচ্ছে’ বিদ্যুৎ বিতরন ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প’। চাঁদপুরে এই প্রকল্পটি কুমিল্লা জোনের ১৭টি বিভাগের সমন্বয়ে করা হবে। এতে করে চাঁদপুরে লোডশেডিং বলতে আর কিছু থাকবে না। তবে আগের ২ সাব-স্টেশন সংস্করণের ব্যায় এবং নতুন এই প্রকল্পের সাব-স্টেশন নির্মাণ ও ট্রান্সফরমারের সংখ্যা ও লাইন রিনোভেশনে মোট বরাদ্দের কথা তিনি জানেন না বলে মন্তব্য করেন।
এ সময় তিনি তাদের আওতায় কত বৈদ্যুতিক পোল(খুঁটি) রয়েছে সে তথ্যও আপডেট নেই বলে দিতে পারেননি। এত কিছুর পরও তাহলে লোডশেডিং কেন হচ্ছে? এমন প্রশ্নের উত্তর জানাতে গিয়ে তিনি বলেন,বৈদ্যুতিক লাইন সচল রাখতে প্রায়ই রাস্তার পাশের গাছ কাটতে হয়। তাছাড়াও ট্রান্সফরমার বা লাইন রিপেয়ারিং এর কোন কোন সময় বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ রাখতে হয়।তবে আমরা গ্রাহকের বিদ্যুৎ সেবার লোডশেডিং এর ভোগান্তি শূণ্যের কোটায় নামিয়ে আনতে কাজ করছি।
নতুন সংযোগ পেতে করনীয় প্রসঙ্গে তিনি জানান, যে কোন গ্রাহক অনলাইনে আবেদন করেও নতুন সংযোগ পেতে পারবেন।তবে সেক্ষেত্রে আবাসিক গ্রাহক ৭দিন এবং শিল্পের গ্রাহক ২৮ দিনের মধ্যে সংযোগ পাওয়ার নিয়ম রয়েছে।
Facebook Comments

Check Also

তরুনদের অহংকার চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিউদ্দিন রিপন

স্টাফ রিপোর্টার : আসছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা গাঁ ঝাড়া দিয়ে উঠছে। সম্ভাব্য …

vv