ব্রেকিং নিউজঃ
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / চাঁদপুরে ১৭ মাস পর শিক্ষাপ্রাঙ্গণে ফিরে এসেছে প্রাণের স্পন্দন

চাঁদপুরে ১৭ মাস পর শিক্ষাপ্রাঙ্গণে ফিরে এসেছে প্রাণের স্পন্দন

মাসুদ হোসেন : সারা দেশের মত চাঁদপুরের প্রায় দুই হাজারের মত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৪৬ দিন পর উৎসবমুখর পরিবেশে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় দেড় বছর আগে বন্ধ করে দেওয়া হয় দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। রোববার থেকে খুলে দেওয়া হল স্কুল-কলেজ আর মাদ্রাসাগুলো। এর মধ্য দিয়ে চাঁদপুরে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা সশরীরে শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত হয়ে ক্লাস করার সুযোগ তৈরি হল।
রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে চাঁদপুর সদর উপজেলার কয়েকটি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় দেড় বছর পর শিক্ষাপ্রাঙ্গণে ফিরে এসেছে প্রাণের স্পন্দন। প্রতিষ্ঠানগুলোয় কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীরা শিক্ষার্থীদের বরন করে নিয়েছেন এক অন্য ভঙ্গিতে। বেশিরভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রবেশমুখে শিক্ষার্থীদের থার্মাল দিয়ে মাপা হয়েছে তাপমাত্রা। একটু ভিতরে যেতে না যেতে শিক্ষার্থীদের ফুল, বাদ্যযন্ত্রের মাধ্যমে সুস্বাগতম জানিয়েছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। ক্লাসরুমে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেছে পাঠদান। এক বেঞ্চে দুইজন করে শিক্ষার্থী বসিয়ে ক্লাস নিয়েছেন শিক্ষকরা। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। চাঁদপুর সদর উপজেলার মহামায়া হানাফিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল সোয়া ১০ টায় গিয়ে দেখা যায়, তিনটি কক্ষে চলছে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের পাঠদান। বিদ্যালয় খোলার প্রথম দিনেই ১১৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১৩ জনই উপস্থিত। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খোরশেদ আলম মোল্লা জানান, স্বাস্থ্য সুরক্ষা বজায় রেখে ক্লাস নেয়া হচ্ছে। অন্যান্য ক্লাশের শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কম থাকলেও পর্যায়ক্রমে আরও উপস্থিতি বাড়বে। বলতে গেলে দেড় বছর পর বিদ্যালয়গুলোতে উৎসবমুখর পরিবেশের আমেজে পরিণত হয়েছে। আমাদের সকল শিক্ষার্থীদেরকে পড়াশোনার পাশাপাশি করোনার ভয়াবহতা ও সকল স্বাস্থ্যবিধি মানতে সচেতনতামূলক দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়।
সেই সাথে মহামায়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়েও এমনই চিত্র লক্ষ্য করা যায়। বিদ্যালয়ে চলছে তৃতীয় ও পঞ্চম শ্রেণীর পাঠদান। প্রথম দিন হওয়ায় হয়তো শতভাগ শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়নি। তৃতীয় শ্রেণীর ৬৭ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩টি কক্ষে রয়েছে ৩২ জন। আর পঞ্চম শ্রেণীতে ৪৮ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩৫ জন এসেছে প্রিয় শিক্ষাঙ্গনে। প্রধান শিক্ষক শাহিনা আক্তার বলেন, আজ আমরা উচ্ছ্বসিত, আমাদের শিক্ষার্থীরা উচ্ছ্বসিত। শিক্ষার্থী ছাড়া আমাদের জীবন অর্থহীন। আজ তারা এসেছে, ক্যাম্পাস প্রাণচঞ্চল ফিরে পেয়েছে। শিক্ষার্থীরা ক্লাসরুমে ফিরতে পেরে ভালো লাগছে। এছাড়াও চাঁদপুর সদর উপজেলার ছোট সুন্দর আমজাদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়, ভাষাবীর এম এ ওয়াদুদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কৃষ্ণপুর জোহরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মান্দারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ কয়েকটি প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও মাদ্রাসায় গিয়েও একই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে।
এদিকে টানা ১৭ মাস ২৬ দিন পর ইউনিফর্ম পড়ে, কাঁধে বই-খাতার ব্যাগ ঝুলিয়ে সারি সারি শিক্ষার্থীরা আবারো ফিরেছে তাদের প্রিয় ক্যাম্পাসে। শিক্ষার্থীদের কলরবে মুখরিত হয়ে উঠেছে প্রিয় শিক্ষাপ্রাঙ্গন। করোনার ভয়াল থাবার মধ্যেই চিরচেনা রূপে ফিরেছে স্কুল- কলেজ আর মাদ্রাসা। প্রিয় ক্যাম্পাসে ফিরতে পেরে খুশি শিক্ষার্থীরা। প্রিয় শিক্ষক-প্রিয় বন্ধু-সহপাঠীদের পেয়ে কিছুতেই থামছে না আনন্দের উচ্ছ্বাস।
এদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিনে জেলার প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাশ করানো হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করেছেন চাঁদপুর জেলা-উপজেলা প্রশাসন, শিক্ষা কর্মকর্তাবৃন্দ, সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয় মূখী করতে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। তবে স্কুল-কলেজ খুললেও দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ দেখা দিলে আবারো সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি।
চাঁদপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গিয়াসউদ্দিন পাটোয়ারী জানান, জেলায় মাধ্যমিক-কলেজ ও মাদ্রাসা মিলিয়ে ৪ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সরকারি নির্দেশনার পর থেকেই কঠোর মনিটরিং করে শিক্ষার্থীদের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করা হয়েছে।
জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাহাবউদ্দিন জানান, করোনার কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে সরাসরি পাঠদান না হলেও প্রধান শিক্ষক এবং অন্যদের উপস্থিতি ছিল। তারপরও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয় কোথাও কোনো ঘাটতি রাখা হয়নি। সুতরাং সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে রবিবার থেকে শ্রেণি কক্ষে পাঠদান নেওয়া শুরু হয়েছে।
Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুরে শুক্রবার নতুন করে ১০ জনের করোনা পজেটিভ

মাসুদ হোসেন : চাঁদপুরে নতুন করে ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সনাক্তের হার ৮.৭০%। শুক্রবার …

Shares
vv