ব্রেকিং নিউজঃ
Home / অপরাধ / চাঁদপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন, আদালতে মামলা

চাঁদপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন, আদালতে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরে নারীলোভী ৩ বিয়ে করা প্রতারক শাহাবুদ্দিন খান কলেজ পড়ুয়া তৃতীয় স্ত্রীকে যৌতুকের দাবিতে ব্যাপক নির্যাতন ও হামলা করেছে।

নির্যাতন ও হামলার শিকার হয়ে অবশেষে স্ত্রী ফারজানা বাদী হয়ে চাঁদপুর নারী ও শিশু ট্রাইবুনাল আদালত ৫ জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন।

চাঁদপুর সদর উপজেলার ২ নং আশিকাটি ইউনিয়নের দক্ষিণ আশিকাটি গ্রামের মৃত আবুল বাশারের ছেলে প্রতারক শাহাবুদ্দিন খান পারিবারিক বহু বিবাহের প্রচলন রক্ষা করতে একের পর এক বিয়ে করে স্ত্রীদের নির্যাতন করে ছেড়ে দেয়। প্রতারক শাহাবুদ্দিন খান ঢাকায় চতুর্থ শ্রেণীর সরকারি কর্মচারী হিসেবে চাকরি করে নিজেকে ক্ষমতাবান ব্যক্তি পরিচয় দিয়ে এ সকল অপকর্ম দিনের-পর-দিন চালিয়ে যাচ্ছে।

শাহাবুদ্দিন খানের বড় ভাই শাহাদাত খান তার মত একই কায়দায় তিনটি বিয়ে করেছে তার মায়ের একাধিক বিয়ে হয়েছে। তাদের পুরো পরিবার বংশগতভাবে বিয়ে করার ধারাবাহিকতা রক্ষা করেছে। একের পর এক সংসার ভেঙে অন্যের মেয়ের জীবন নষ্ট করে দিনের পর দিন শাহাবুদ্দিন খান নারীঘটিত অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, দক্ষিণ আশিকাটি গ্রামের শাহাবুদ্দিন খান দুটি মেয়েকে বিয়ে করার পর তাদের নির্যাতন করে তাড়িয়ে দিয়ে বিয়ের কথা গোপন রেখে মতলব দক্ষিণ দিঘলদী গ্রামের প্রবাসীর মেয়ে চাঁদপুর সরকারি কলেজের অনার্সের ছাত্রী ফারজানাকে ২০১৮ সালের ২৬ অক্টোবরে ৫ লক্ষ টাকা রেজিস্ট্রি কাবিন মুলে সামাজিকভাবে ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক বিবাহ করে।

বিয়ের পর থেকেই তার তৃতীয় স্ত্রীকে যৌতুকের দাবিতে একই কায়দায় নির্যাতন শুরু করে। এছাড়া তার বড় ভাই শাহাদাত খান ছোট ভাই শাহাবুদ্দিনের স্ত্রীর উপর কু নজর পরে তাকে কুপ্রস্তাব দেয়। এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে ফারজানাকে তার শাশুড়ি ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন ব্যাপক নির্যাতন করে। অবশেষে তাকে বেদম মারধর করে হত্যার উদ্দেশ্যে তার স্বামী ফারজানার গলায় রশি পেচিয়ে ফাঁস দেওয়ার চেষ্টা করে। বহুকষ্টে শশুর বাড়ি থেকে পালিয়ে এসে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেয়।

এই ঘটনা সমঝোতার লক্ষ্যে ফারজানার এক আত্মীয়ের বাসায় সালিশি বৈঠকে বসেন। গত রবিবার সালিশি বৈঠকে শাহাবুদ্দিন তার ভাই শাহাদাৎ সহ বেশ কয়েকজন অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে ফারজানাকে আহত করেন। তার কোলে থাকা শিশু কন্যাকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। ঘটনার পরে ফারজানা বাদী হয়ে নারী ও শিশু ট্রাইবুনাল আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

এ বিষয়ে স্বামীর হামলায় আহত ফারজানা জানান, স্বামী প্রতারণা করে পূর্বের বিয়ে গোপন রেখে তৃতীয় বিয়ে করেছে। এছাড়া তার চারিত্রিক সমস্যাও রয়েছে অনেক মেয়ের জীবন নষ্ট করেছে। যৌতুকের জন্য শাহাবুদ্দিন ও তার পরিবারের লোকজন বেশ কয়েকবার নির্যাতন ও হামলা করেছে । তাদের নির্যাতনের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলছে।

এই প্রতারক নির্যাতনকারী স্বামীর হাত থেকে মুক্তি পেতে চাই ও তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাই।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত শাহাবুদ্দিন খান জানান, দুটি বিয়ে করার বিষয়টি তারা জানতেন। পারিবারিকভাবে উভয়ের মধ্যে মনোমালিন্য হাওয়ায় ঝগড়া বিবাদ সৃষ্টি হয়। তারা আমার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারবেনা আমার অনেক উর্দ্ধতন লোকজন রয়েছে। যদি তারা সমাধান করতে চায় তাহলে ঢাকায় আসুক আমি তাদের দেখে নেব।

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে দিনশেষে সিএনজি চালক ইমরানের বাড়ি ফেরা হলোনা

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দিনভর সিএনজি থ্রি হুইলার চালিয়ে চালক ইমরানের আর বাড়ি …

Shares
vv