ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / চাঁদপুরে বুলবুলে কেড়ে নিল সাড়ে ৭ হাজার মুরগি, গাছ ও বসতঘর : ব্যাপক ক্ষতি

চাঁদপুরে বুলবুলে কেড়ে নিল সাড়ে ৭ হাজার মুরগি, গাছ ও বসতঘর : ব্যাপক ক্ষতি

ফাহিম শাহরিন কৌশিক : ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র প্রভাবে বাতাসের গতি বৃদ্ধি পেয়ে চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলায় প্রায় দুই হাজার গাছ ভেঙে উপড়ে পড়েছে। ঘুর্ণিঝড় বুলবুল তান্ডবে বাগাদি ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড কড়েগো দোকান এলাকায় গাছ ভেঙ্গে প্রাণ গেল সাড়ে ৭ হাজার মুরগির। এতে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়ছে।
ঝড়ো হাওয়ায় চরাঞ্চলে ও সদর উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে বহু বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ঘরগুলোর টিন ও বেড়া বাতাসে উড়ে গিয়ে অনেক মানুষ আহত হয়েছে।
রোববার (১০ নভেম্বর) বিকাল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এই তান্ডব চালায়। বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চাঁদপুর শহরসহ জেলার ৮উপজেলায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
সোমবার দুপুরে সদর উপজেলার ৮নং বাগাদি, ১২ নং চান্দ্রা,১৩ হানারচর ইউনিয়ন গিয়ে দেখা যায়, ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডবে  গাছ পড়ে ঘর ভেঙে পড়েছে এবং ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের মুড়গি খামারি ব্যাবসায়ী নায়িম জানান, চাঁদপুর বিকেলে ঘুর্ণিঝড় বুলবুল তান্ডবে বড় গাছ পড়ে দোতলা মুরগির ফার্ম ভেঙ্গে তছনছ হয়ে যায়, টিনের চাপায় প্রাণ গেল সাড়ে ৭ হাজার মুরগি। এতে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়ছে। সরকারের সহযোগিতা না পেলে আর কোন ভাবেই ঘুরে দাঁড়াতে পাড়বো না।
চান্দা ইউনিয়ন দক্ষিণ বালিয়া গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত সেরাজল খান জানান, বিকেলে গাছ ভেঙে দুটি বসত ঘরের উপরে পড়ে।
ঘরগুলো দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এই ঘটনায় ঘরের ভিতরে থাকা ৫ বছরের শিশু নাদিয়া আক্তার, মোহাম্মদ হোসেন খান, আনোয়ার হোসেন খান, আলামিন খান সহ ৬ জন গুরুতর আহত হয়েছে।
সদর উপজেলার চান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খান জাহান আলী কালু পাটোয়ারী বলেন, সকাল থেকে ঝড়ো হাওয়া থাকলেও বিকেল ৩টার পরে  ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র প্রভাবে বাতাসের গতি বৃদ্ধি পেয়ে গাছ ভেঙে উপড়ে পড়েছে। ঘর ভেঙে পড়েছে এবং ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। যাদের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তাদের সরকারি ভাবে কিছুটা ক্ষতি পূরণের ব্যাবস্থা করা হবে।
চাঁদপুর বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এস.এম.ইকবাল বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের পড়ে বহু গাছপালা বিদ্যুতের তারের উপর পড়েছে। এসব গাছপালা কেটে অপসারণ করা হচ্ছে। এছাড়াও আমাদের জাতীয় গ্রীডে মেরামতের কাজ করার কারণে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে। লাইনগুলো সচল হলেই বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা হবে।
চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রমহান খান বলেন, হাইমচর উপজেলায় ক্ষয়ক্ষতির খবর পেয়েছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বলা হয়েছে সরেজমিন দেখে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করার জন্য।
Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জ গৃদকালিন্দিয়া বাজারে অগ্নিকাণ্ডে প্রায় অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি

এস.এম ইকবাল : ফরিদঞ্জ দক্ষিন ইউনিয়নের ১৬নং রুপসা গৃদকালিন্দিয়া বাজারে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে থেকে আগুনে লেগে বাজারের …

vv