ব্রেকিং নিউজঃ
Home / দেশজুড়ে / চাঁদপুরে বাড়ছে বৃষ্টির প্রকোপ, সীমিত হয়ে আসছে যান চলাচল
ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় মানুষকে নিরাপদে সরে যেতে বলছেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান।

চাঁদপুরে বাড়ছে বৃষ্টির প্রকোপ, সীমিত হয়ে আসছে যান চলাচল

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল কে কেন্দ্র করে বৃষ্টির প্রকোপ বাড়ায় সীমিত হয়ে আসছে যান চলাচল।

চাঁদপুর আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ওয়ারলেচ সুপার ভাইজার (ভারপ্রাপ্ত) শাহ মাহমুদ শোয়েব জানান, গতকাল বিকাল ৩ টা থেকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সময়ে প্রায় ২০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরের ঝড়ের সতর্ক বার্তা হিসেবে চাঁদপুরে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে। যেজন্য বুলবুল এখানে ১’শ থেকে ১’শ ২০ কি.মি. বেগে আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে। যা চরাঞ্চল এলাকায় নদীর পানি ৫-৭ মিলিমিটার উচ্চতায় বৃদ্ধি পেয়ে ক্ষতির মাত্রা বাড়িয়ে তুলতে পারে।

এদিকে ঘূর্নিঝড় বুলবুল আঘাত হানার সময় যতই ঘনিয়ে আসছে। চাঁদপুরের উপকূলের পরিবেশ ততই খারাপের দিকে যাচ্ছে।তাই জেলার অনেক মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নিচ্ছে। এদিকে ৯ নভেম্বর শনিবার মানুষকে সচেতন করতে এবং নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে সকালেই বেরিয়ে পরেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান।

তিনি সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়ে নদী তীরবর্তী মানুষদের আশ্রয়নে যেতে উৎসাহিত করছেন। অপর দিকে জেলার সার্বিক ক্ষয়ক্ষতির পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গতকাল এক জরুরি সভাও তিনি করেছেন। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় আমাদের প্রত্যেকের প্রস্তুত থাকতে হবে। যে সমস্ত সরকারি কর্মকর্তা ছুটিতে আছেন তাদেরকে অবিলম্বে স্ব স্ব কর্মস্থলে যোগদিতে বলা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, দুর্যোগ মোকাবেলায় জেলায় ৫৮টি মেডিকেল টিম, স্থানীয় স্কাউট, রেড ক্রিসেন্ট, বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়াও নৌ-পুলিশ,কোস্ট গার্ড, ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরাতো প্রস্তুত রয়েছেনই।সেই সাথে সকল মাছ ধরার নৌকা,ট্রলার ও বলগেট এবং ড্রেজার সহ ইত্যাদি ছোট নৌযানগুলোকে নিরাপদে সরিয়ে আনা হয়েছে। বিভিন্ন চরাঞ্চলে মাইকিং করে প্রচারণা চালানো অব্যাহত রাখা হয়েছে।

তিনি আরো জানান,বুলবুলে জরুরি অবস্থা মোকাবেলা করার জন্য আমরা ১’শ ৮৪ মেট্রিক টন চাল, নগদ ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা, ৭’শ ৩৬ ব্যান্ডেল টিন ও ব্যান্ডেল প্রতি টিনের সাথে আরো নগদ ৩ হাজার টাকা করে মজুদ রাখেছি।বৃষ্টি উপেক্ষা করে এখনো মাইকিং চালানো হচ্ছে।সেই সাথে জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগ করতে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

এদিকে সকাল হতে থেমে থেমে বৃষ্টি পরলেও ক্রমান্বয়ে বাড়ছে বৃষ্টির মাত্রা।যেজন্য অভ্যান্তরীন রুটে সকালে কিছু বাস ছেড়ে গেলেও অধিকাংশ বাস টার্মিনালেই থেকে গেছে। শহরে চলমান ক্ষুদ্র যানবাহগুলো চলাচল করছে অত্যান্ত সীমিত।তেমনভাবে রিকশা চলাচলও করছে না এবং বন্ধ রয়েছে লঞ্চগুলোও। শুধুমাত্র ব্যক্তিগত গাড়ি,অটো,সিএনজি ও কিছু সরকারি গাড়ি চলাচল করতে দেখা গেছে। তবে ভাড়া পূর্ব নির্ধারিত মূল্যেই রাখা হচ্ছে।

Facebook Comments

Check Also

বুলবুলের আঘাতে লন্ডভন্ড ভোলা, আহত ২০ : উদ্ধার চলছে

প্রিয় চাঁদপুর : ভোলার লালমোহনে ‘ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের’ আঘাতে গাছ উপড়ে ৩০টি বসতঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় …

vv