ব্রেকিং নিউজঃ
Home / দেশজুড়ে / চাঁদপুরে পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি

চাঁদপুরে পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি

স্টাফ রিপোটার : প্রবাসী ফেরত আপন ছোট বোনের জামাইয়ের পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির এবং এ বিষয়ে কাউকে জানালে আপন ছোট বোন ও তার স্বামী কে হত্যার হুমকি দেওয়ায় চাঁদপুর সদর মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, চাঁদপুর শহরের কোড়ালিয়া রোডের অধিবাসী মরহুম শফিকুর রহমান ছেলে মজিবুর রহমান ওরফে টিটি মুজিব তারই আপন ছোট বোনের জামাই প্রবাসী ফেরত দীনুল ইসলাম থেকে শহরের রেলওয়ে হকার্স মার্কেটে প্লট নং বি -১ (এ) যে টি চাঁদপুর ক্লথ স্টোর নামক দোকান দিবে বলে তার কাছ থেকে ৩০ লক্ষ টাকা নেয়। যা পরবর্তীতে তিনি দেশে আসলে তাকে বুজিয়ে দেওয়া হবে।

কিন্তু গত দুই বছর যাবত তিনি দেশে আসার পরও দোকানটি বুজিয়ে দেওয়া হয়নি। এমতাবস্থায় পারিবারিকভাবে বেশ কয়েকবার বসেও এই বিষয়ে কোনো সুরাহা হয়নি।এক পর্যায়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সালিশি করা হলে তিনি অর্ধেক দোকান দিবেন বলে তাদেরকে আশ্বস্ত করেন। এরপরও বছর কেটে গেল এটি সুরাহা করেননি দোকান বুঝিয়ে দিতে টালবাহানা করেন। এই অবস্থায় তার বোনের রেল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে দেখেন সকল কাগজপত্র মুজিবুর রহমান ওরফে টিটি মজিব তাঁর নামে সকল কাগজপত্র করেন এবং পৌরসভা থেকে তার দোকানের ট্রেড লাইসেন্সও তাঁর নামে করেন।

এই অবস্থায় উপায়ন্তর না পেয়ে তিনি এবং স্ত্রী স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তির সহযোগিতা নিয়ে ও প্রকাশ্য দিবালোকে শহরের উপকণ্ঠে তিনি দোকান দুটি ভাগ করে একটি অংশে নিজে ব্যবসা শুরু করেন। অথচ উক্ত মুজিবুর রহমান ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য তার বোনের জামাই ও বোনের বিরুদ্ধে চারটি মামলা মিথ্যা মামলা দায়ের করেন মামলা দিয়ে তিনি বোনের জামাইকে হয়রানি করেন এবং এই ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি করা হলে উভয়কে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেন।

তিনি চাঁদপুর মডেল থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে আরো উল্লেখ করেন যে, তার শশুর জীবিত থাকা অবস্থায় মুজিবুর রহমান ওরফে টিটি মুজিব চাঁদপুর শহরে বিভিন্ন অপকর্মের কারণে একপর্যায়ে তার সম্মানহানী ঘটে। পরবতীতে নিরুপায় হয়ে আইনি প্রক্রিয়ায় তেজ্য পূত্র ঘোষণা করে, যা স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম ও শহরবাসী জানা রয়েছে। পরবর্তীতে তার শশুরের মৃত্যুর পর তিন বোন তাদের একমাত্র ভাইকে মানবিক কারণে পারিবারিকভাবে স্বীকৃত দিয়ে বাড়িতে বসবাসের স্থান দেয়। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চুন থেকে পান খসলেই তিন বোনকে বিভিন্ন অত্যাচার নির্যাতন করতো। বোনেরা একমাত্র ভাই হিসেবে তার এই সকল অপকর্ম ও অত্যাচার নিরবে সহ্য করে যেতো।

এ অত্যাচার নিযাতন নিজ পরিবারে নয়, এলাকার অনেক সাধারণ মানুষের সাথে এবং এই শহরে তার বিভিন্ন অপকর্মের রেকর্ড রয়েছে যা অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসবে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

অনতিবিলম্বে এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ ও ভুক্তভোগী পরিবারকে রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জে সামাজিক দূরত্ব মানার বালাই নেই, চলছে চোর-পুলিশ খেলা

এস.এম ইকবাল : চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন গত ১০ মে থেকে জেলার সব শপিংমল দোকানপাট বন্ধ রাখার …

vv