ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / চাঁদপুরে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুরো শরীর পুড়ে যাওয়া ব্যবসায়ী ইকবালের মৃত্যু

চাঁদপুরে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুরো শরীর পুড়ে যাওয়া ব্যবসায়ী ইকবালের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি : সম্পত্তিগত বিরোধে দূর্বৃত্তদের পেট্টোলের আগুনে পুরো শরীর পুড়ে যাওয়া চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের পশ্চিম সকদী গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেন খোকন ৯ দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকার পর ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালড়ে ব্যবসায়ীর মৃত্যুবরন করেছে।

এই ধরণের লোমহর্ষক ঘটনা ঘটলেও সংঘবদ্ধ দুষ্টুচক্র প্রভাবশালী হওয়ার কারণে ঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমকে কেহ জানায়নি এবং এখন পর্যন্ত ভয়ে আইনের আওতায় আসেনি। তারা এলাকায় দীর্ঘ বছর মাদক ব্যবসা, অন্যের জায়গা দখলসহ নানা অপরাধের স্বর্গরাজ্য গড়ে তুলেছে। তাদের ভয়ে জনপ্রনিধিরাও এগিয়ে আসছে না বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ।

সোমবার (০৭ জুন) সন্ধ্যার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিন)।

ঘটনা সূত্রে জানাগেছে, গত ২৯ মে চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের পশ্চিম সকদী গ্রামে মুদি দোকানদার ইকবাল হোসেন খোকনকে (৫৬) দোকানের ভেতরে রেখে পেট্রোল দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয় একদল পাষন্ড দূর্বৃত্তরা। এর পর একই স্থানে ৩ জুন রাত আনুমানিক ১০টার দিকে একই বাড়ীর রোকেয়া বেগমদের ভিটা বাড়ীতে লাগানো বেশ কয়েকটি ফলদ গাছ কর্তণের ঘটনা ঘটায় দূর্বৃত্তরা

ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেন খোকনের স্বজনরা জানান, খোকনের চাচাতো বোন রোকেয়া বেগমের খরিদ সম্পত্তি একই বাড়ীর রশিদগং জোরপূর্বক দখল করে ঘর নির্মাণ করে। সে ঘরটি তারা ভেঙে ফেলে। এ ঘর ইকবাল হোসেন খোকনের নেতৃত্বে ভাঙা হয়েছে বলে রশিদ খান, শহীদুল্লা খান, দেলু খানও মোরশালিনসহ একদল দূর্বৃত্তরা ক্ষিপ্ত হয়ে খোকানকে মেরে ফেলার জন্য দা, চেনী নিয়ে তেড়ে যায়। তখন কিছু নাকরতে পারলেও পরে তারা খোকনের দোকানের ভেতরে খোকনকে রেখে পেট্রোল দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। এতে ইকবাল হোসেন খোকানের পুরো শরীর ঝলসে যায়। স্থানীয় লোকজন ও তার আত্মীয়-স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। আহত ইকবাল হোসেন খোকন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সোমবার সন্ধ্যার পর মৃত্যুবরণ করেন।

ইকবালকে আগুন দিয়ে দোকানসহ পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনার সংবাদ পেয়ে গত ২৯মে রাতে চাঁদপুর মডেল থানার এএসআই কাউছার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছিলেন। এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন ধরণের মামলা হয়নি। আগুনে পুড়ে যাওয়া ইকবাল খান বাড়ীর মৃত রুস্তম খানের ছেলে। তার শরীরের অধিকাংশই আগুনে পুড়ে যাওয়ায় সে আজ মারা গেছে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার এএসআই কাউছার এর সাথে মুঠো ফোনে কথা বললে তিনি জানান,চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আব্দুর রশিদের নির্দেশে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তখন আমার ডিউটি থাকায় গিয়েছিলাম। যে ঘটনা ঘটেছে,তা’সত্য। তবে এঘটনায় কেহ মামলা না করায় চাঁদপুর মডেল থানার পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি। এখন যদি কেহ মামলা দেয় তা’হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কোন প্রকার ছাড় দেওয়া হবেনা।

উল্লেখ্য, আগুনের ঘটনায় জড়িত দেলু খান একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। সে মাদক মামলায় বহুবার জেল হাজত খাটে। কিছু দিন সে গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর পুনরায় এলাকায় চলে আসে এবং জমি দখল করে। এমনকি জমি দখলকে কেন্দ্র করে দূর্বৃত্ত চক্র ইকবাল হোসেন খোকন জড়িত সন্দেহে তার দোকানের ভেতরে তাকে রেখে পেট্রোল দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।

এ ঘটনা খবর পেয়ে এলাকায় গিয়ে অভিযুক্তদের পাওয়া যায়নি। তাদের বিরুদ্বে কেহ কথা বলার সাহস পর্যন্ত পায়নি। তাদের পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসীর কাছ থেকে তাদের কোন মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করতে না পারায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্বব হয়নি। এ সংক্রান্ত একটি রিপোট গতকাল রোববার দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকায় অনলাইনে স্বচিত্র প্রতিবেদন ছাপা হয়েছিল। যার শিরোনাম ছিল, চাঁদপুরে ব্যবসায়ীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা।

Facebook Comments

Check Also

আওয়ামী লীগই যেকোনো দুর্যোগ সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছে : রুহুল এমপি

মনিরুল ইসলাম মনির : এডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল বলেছেন, আওয়ামী লীগ শুধু ক্ষমতায় থেকে মানুষের …

Shares
vv