ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় অনুসন্ধান / চাঁদপুরে চেয়ারম্যান কালুর বিরুদ্ধে ‘জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে’ ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

চাঁদপুরে চেয়ারম্যান কালুর বিরুদ্ধে ‘জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে’ ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নের জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে অনিয়ম ও ইউপি চেয়ারম্যানের খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারীর বিরুদ্ধে ঘুষ বাণিজ্যেসহ ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে ।

বিগত ৩৪ বছর যাবৎ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ দখল করে রেখে অনিয়ম-দুর্নীতি ও নীরব চাঁদাবাজির অভিযোগে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারী।
ইউপি চেয়ারম্যান হয়ে ঠিকাদারি কাজে নিযুক্ত থেকে অনিয়মের মধ্য দিয়ে এই ইউনিয়নে বেশ কয়েকটি রাস্তা, কালভার্ট ও গুচ্ছগ্রামের কাজ করে অনেক সমালোচনা পাত্র হয়েছেন তিনি।

বাখরপুর দফাদার দোকান হতে গাজী স্কুল সংলগ্ন রাস্তায় কাজে দেড় কোটি টাকা বরাদ্দ আসলেও সেই কাজে নিম্নমানের ইট ব্যবহার করায় স্থানীয় এলাকাবাসী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের বরাবর কয়েকটি অভিযোগ প্রদান করেন। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত টিম ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত করেন ও এর সততা প্রমাণ মিলে।
শুক্রবার ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নে গিয়ে ভুক্তভোগীদের সাথে আলাপকালে তারা বলেন,জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে এই ইউনিয়নে মোট ২৩ টি ঘর বরাদ্দ এসেছে।

ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারী ও তার বড় ছেলে মেহেদী হাসান পাটোয়ারী গরীব ও অসহায় লোকদের কাছ থেকে ঘর প্রতি ২০ থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা উত্তোলন করেছে। যাদের নামে ঘর বরাদ্দ হয়েছে এদের মধ্যে যারা টাকা দিতে অস্বীকার করেছে তাদের ঘর না দিয়ে অন্যের নামে সেই বরাদ্দকৃত ঘর দেওয়া হয়।

শুধু তাই নয় ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারী ভিজিডি ও জেলেদের চাল বিতরণের সময় সরকারি নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ৬ থেকে ১০ কেজি চাল কম দিয়ে বাকি চাল বিক্রি করে টাকা আত্মসাৎ করেছে। এছাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ পদবী ব্যবহার করে চাকরি দেওয়ার নামে অনেক যুবকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

এই ইউনিয়নে যত ধরনের মামলা হয়েছে ও নারী সংক্রান্ত ঘটনা ঘটেছে সে সকল বিষয়ে পক্ষ-বিপক্ষের কাছ থেকে কন্টাক করে টাকা নিয়ে নিজের বাড়িতে উভয়পক্ষকে ডেকে এনে রমরমা সালিসি বাণিজ্য করছে। এলজিএসপি এক লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়ার নামে ৩ নং ওয়ার্ডের জব্বর রাঢ়ি ও তার ছেলের কাছ থেকে অগ্রিম ২২ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগী জব্বর রাঢ়ি জানায়, এলজিএসপি ১লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়ে ঘর নির্মাণের কথা বলে কাজের পূর্বেই ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারী তার ছেলে মেহেদী হাসানের মাধ্যমে ২২ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
জমি আছে ঘর নাই প্রকল্প থেকে একটি ঘর দেওয়ার কথা বললেও চেয়ারম্যানকে তার চাহিদামতো টাকা না দিতে পারায় তিনি ঘর দেয়নি।

দুর্যোগ সহনীয় ঘর বাবদ ২লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা বরাদ্দে চেয়ারম্যানের বাড়ির রাস্তার প্রবেশমুখে ইউসুফ পাটোয়ারী নামে এক ব্যক্তির নামে ঘর দেওয়া হয়। ইউসুফ পাটোয়ারী কাছ থেকে ৭০ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে এই ঘরটি তার নামে বরাদ্দ দিয়ে নিম্নমানের ইট ও নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে তৈরি করেন।

চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারী মোটা অংকের চাঁদা উত্তোলন করেন তার ছেলে মেহেদী হাসান পাটোয়ারীর মাধ্যমে। বাপ ও ছেলে মিলে এই ইউনিয়নে রাম রাজত্ব কায়েম করেছেন। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এর আঘাতে চান্দ্রা ইউনিয়নে অনেক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিপূরণের জন্য ক্ষতিগ্রস্তদের নামের তালিকা সদর উপজেলা পরিষদের পাঠান। ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের টাকা আসলেও সেই টাকা ক্ষতিগ্রস্তদের না দিয়ে চেয়ারম্যান নিজেই সেই অনুদান আত্মসাৎ করার পাঁয়তারা করছে। চান্দ্রা ইউনিয়ন এখন টেকনাপে পরিণত হয়েছে, চলছে রমরমা মাদকের ব্যবসা।

এই ইউনিয়নে অনেক বড় বড় মাদকের ডিলার রয়েছে যারা চেয়ারম্যানকে ম্যানেজ করেই তাদের ব্যবসা পরিচালনা করছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। চেয়ারম্যানের এত অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের বিষয় মুখ খুলতে শুরু করেছেন স্থানীয় তৃণমূলের আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের পূর্বে দলের ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে টাকার বিনিময়ে বিএনপি ও অন্যান্য দলের লোকজনদের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে মনোনীত করেছেন।

এই ঘটনায় ইউনিয়নের তৃণমূল নেতৃবৃন্দের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করতে দেখা যায়। এতো অভিযোগ অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত খান জাহান আলী কাল পাটোয়ারীকে যেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ না দেওয়া হয় এজন্য আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন ইউনিয়নের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী পাটোয়ারীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ৩৪ বছর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদে একাই আছি। তবে দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়টি মিথ্যা। রাস্তা কাজে অনিয়মের বিষয়ে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছে তা সত্য ।

এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত টিম তদন্ত করেছে। সবকিছুই মিটমাট হয়ে গেছে।

Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুরে মাদক সম্রাট জসীমের তাণ্ডব, মৎস্য ব্যবসায়ীর মাছ ছিনতাই

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরে মাদক সম্রাট জসিম জেল গেটে বেরিয়ে এসে আবারও তাণ্ডব শুরু করেছে। সদর …

vv