ব্রেকিং নিউজঃ
Home / ইলিশের বাড়ি চাঁদপুর / চাঁদপুরে গরুর গোস্তসহ আপন’র ঈদ উপহার পেল শতাধিক নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার

চাঁদপুরে গরুর গোস্তসহ আপন’র ঈদ উপহার পেল শতাধিক নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক : চাঁদপুরে পবিত্র ঈদুল আযহা ও করোনার দুঃসময়ে দরিদ্র এবং নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারকে খাদ্য উপহার দিয়েছে সামাজিক সংগঠন ‘আপন’। ‘আমরা পর নই’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে পথচলা আপন এর আয়োজনে ২০ জুলাই বুধবার বিকেলে চাঁদপুর মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স মিলনায়তনে আয়েজিত অনুষ্ঠানে শহরের বিভিন্ন এলাকার দরিদ্র এবং নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারকে গরুর গোস্ত, ঈদ বাজার এই খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়।

উপরহারের প্রতিটি প্যাকেটে ছিলো গরুর গোস্ত, চাউল, ডাল, আলু, পেয়াজ, রসুন, আঁদা, সেমাই, চিনি ইত্যাদি। এই আয়োজনের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিলো শহিদউল্লাহ স্মৃতি সংসদ ও ফেমাস ডেন্টাল কেয়ার, চাঁদপুর।

প্রধান অতিথি হিসেবে এই মানবিক আয়োজনের খাদ্য সহায়তা তুলে দেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল। আপন এর প্রতিষ্ঠাতা ও আহ্বায়ক রোটারিয়ান ডাক্তার রাশেদা আক্তারের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব আশিক বিন রহিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক চাঁদপুর প্রবাহের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রহিম বাদশা, আপন সংগঠনের উপদেষ্টা ডা. মো. মাসুদ হাসান।

অমন্ত্রিত অতিথি এবং উপহারপ্রাপ্ত সকলকে শুভেচ্ছা জানান আপন এর যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাহিত্য মঞ্চের সভাপতি কবি মাইনুল ইসলাম মানিক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল বলেন, ঠিক ঈদের আগের দিন নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারকে গরুর গোস্ত, ঈদ প্রদান করেছে আপন। আমি এই মাহতি উদ্যোগকে সাদুবাদ জানাই। সামিজিক সংগঠন আপন তাদের নিজস্ব সামর্থের মধ্যমে এই কাজটি করেছে। এর আগেও তারা অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছিলো। আপন এর আয়োজনগুলো সত্যিকারের মানবিক কাজ। এই ধরনের আয়োজনগুলোকে যদি উৎসাহ দেয়া যায়, তবে অন্যরাও উৎসাহ নিয়ে এগিয়ে আসবে। আমাদের যার যার অবস্থান থেকে দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত।

তিনি আরো বলেন, করোনার পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে। এর থেকে উত্তরণে আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। একটা মাস যদি আমরা লকডাউন মেনে চলি তবে, করোনার প্রার্দুভাব নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। আর আমরা যদি সচেতন না হই, তবে এর দুঃসময় দীর্ঘ হবে। তাই আমরা সবাই সবার জন্যে মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করবো। যার যার ধর্ম মতো স্রষ্টার কাছে প্রার্থনা করবো। যাতে করে আমরা সবাই ভালো থাকতে পারি এবং এই সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারি। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে ঈদ উদযাপন করার অনুরোধ করেন তিনি।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক চাঁদপুর প্রবাহের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রহিম বাদশা বলেন, এই দুর্যোগে বিত্তবানদের উচিত মানুষের পাশে দাঁড়ানো। পাশাপাশি করোনার সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোন বিকল্প নেই। আমি এই মানবিক কাজের জন্যে আপনের সাথে জড়িত সকলকে ধন্যবাদ জানাই।

আপন এর উপদেষ্টা ডা. মো. মাসুদ হাসান বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাসের এই দুঃসময়ে সবচেয়ে বেশি বিপদগ্রস্ত নিম্নমধ্যবিত্ত মানুষেরা। তারা লোকলজ্জায় কারো কাছে চাইতে পারছে না। আপন সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশাপাশি নিম্নমধ্যবিত্তদের উপহার হিসেবে খাদ্য সহায়তা করছে। যা সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে।

আপন এর প্রতিষ্ঠাতা ও আহ্বায়ক রোটারিয়ান ডাক্তার রাশেদা আক্তার বলেন, আমরা আপনের মাধ্যমে দেশ, মানুষ ও মানবতার কল্যানে কাজ করতে চাই। সেই লক্ষ্য নিয়েই প্রতিষ্ঠার পর থেকে আমরা আপনের আয়োজনে বিভিন্ন কাজ করে যাচ্ছি। বর্তমানে করোনার এই দুর্যোগে আমরা কেউ ভালো নেই। কিন্তু তার পরেও আমরা যারা কিছুটা ভালো আছি তার কিছু অংশ যদি একেবারেই ভালো না থাকা ভাগ্যহত মানুষদের ভাগ করে দিতে পারি, তবে আমরা সবাই ভালো থাকতে পারবো। যেহুতু এটি কোরবানির ঈদ। এই ঈদে অনেকের সামর্থ নেই গরুরু গোস্ত কিনে বা কোরবানি দিয়ে খাওয়ার। তাই আমরা এবছর ঈদ উপহারের সাথে গরুর গোস্ত দিয়েছি। যাতে ঈদের দিন সকালেআ তারা পরিবারকে নিয়ে এই খাবারগুলো রান্না করে খেতে পারে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, আপনের সুহৃদ কবির হোসেন পাটোয়ারি, হারুনুর রশীদ, সাংবাদিক শরীফুল ইসলাম, আপনের সদস্য রোটারেক্ট আল আমিন, ইন্টারেক্ট ক্লাবেরট্রেজারার সামিউল তাইফ প্রমুখ।

উল্লেখ্য : আপনের উদ্যোগে পবিত্র মাহে রমজানে রোজাদার পথচারির মাঝে ইফতার বিতরণ করা এবং ঈদুল ফিতরে শতাধিক পরিবারকে ১ সপ্তাহের খাদ্যসামগ্রী দেয়া হয়।

Facebook Comments

Check Also

মৃত্যুর আগে সেলিম ফিরতে চান চাঁদপুরের আপনজনদের কাছে

নিজস্ব প্রতিনিধি : ৪০ বছর আগে যখন বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান সেলিম মিয়া, তখন সবেমাত্র ম্যাট্রিক …

Shares
vv