ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় অনুসন্ধান / চাঁদপুরে কোটি টাকা নিয়ে মাস্টার্স প্রিন্টার্সের মালিক শাহজাহান উধাও

চাঁদপুরে কোটি টাকা নিয়ে মাস্টার্স প্রিন্টার্সের মালিক শাহজাহান উধাও

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর শহরের পুরান বাজার ম্যারকাটিস রোড মাস্টার্স প্রিন্টার্সের এক অংশের মালিক মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান ভূঁইয়া ব্যাংক ও সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ধার নেওয়া প্রায় কোটি টাকা নিয়ে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে উধাও হয়ে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে মাস্টার্স প্রিন্টার্স এর সামনে গিয়ে দেখা যায় পাওনাদাররা টাকার জন্য এসে ভিড় জমায়।
এছাড়া চাঁদপুর-রায়পুর থেকে বিভিন্ন পাটিরা অগ্রিম টাকা দিয়ে মাল তৈরি করে নিয়ে যাওয়ার জন্য মাস্টার্স প্রিন্টার্স প্রতিষ্ঠান বন্ধ দেখে হাই হুতাশ করতে থাকে।
মাস্টার্স প্রিন্টার্স প্রতিষ্ঠানের মালিক সাবেক পোস্ট মাস্টার মৃত হাকিম ভূইয়ার চার ছেলের মধ্যে বড় ছিল মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান ভূঁইয়া(৬৫)। এই প্রতিষ্ঠানটি তারা চার ভাইয়ের মধ্যে শাহজাহান ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া পরিচালনা করতো।
কিন্তু বড় ভাই শাহজাহান ভূঁইয়া বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে প্রতিষ্ঠান দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা এনে নিজে আত্মসাৎ করেন।
এছাড়া তার চার ভাইদের সম্পত্তি উপর দোতালায় একটি বাড়ি মরগেজ রেখে ব্যাংক এশিয়া চাঁদপুর শাখা থেকে ৪৫ লক্ষ টাকা ঋণ গ্রহণ করে। সেই ঋণের টাকা পরিশোধ না করে শাহজাহান ভুঁইয়া ও তার বড় ছেলে আব্দুল্লাহ আল মামুন শুভ আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ করেন তাদের পরিবারের লোকজন।
এ বিষয়ে পুরানবাজার ভাই ভাই স্পোটিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদল খান জানান, চারজনের প্রতিষ্ঠান দখল করে শাহজাহান ভূঁইয়া নিজেই এ ব্যবসা পরিচালনা করেন। এই প্রতিষ্ঠান প্লাস্টিক তৈরি করার পিপি দানা বস্তা ক্রয় করে প্রতিষ্ঠানটি চালানোর কথা বলে এই এলাকার বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
এর মধ্যে মাহবুবুর রহমান মানিকের কাছ থেকে ৬লক্ষ,মুক্তার আহমেদ মৃথার ৫ লাখ ,হাজী মোঃ ইলিয়াস খানের ১০ লাখ,মজিদ খানের ৩ লক্ষ টাকা,রাজিব পাটোয়ারী ৩ লক্ষ, শ্রমিক ও কর্মচারীদের ২ লক্ষ ২৫ হাজার ব্যাংক এশিয়া থেকে ঋণ ৪৫লাখ সহ মোট এক কোটি টাকা নিয়ে প্রতিষ্টান বন্ধ করে দেয়। ব্যাংকের নিকট ৪ শতাংশে একটি বাড়ি দুতলা বাড়ি জামানত রাখে যার বর্তমান মূল্য ৫০ লক্ষ টাকা।
শাহজাহান ভূঁইয়া সবার টাকা আত্মসাৎ করে বর্তমানে চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার ২নং বাকিলা ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামের বেপারী বাড়িতে তার শ্বশুরবাড়িতে ছেলে সন্তান নিয়ে পালিয়ে রয়েছে।
মাস্টার্স প্রিন্টার্সে মাল তৈরি করতে আসা নজরুল ইসলাম জানান, এই প্রতিষ্ঠানের প্লাস্টিক পলি ও অন্যান্য মাল তৈরি করার জন্য অগ্রিম ১০ হাজার টাকা মালিকপক্ষ মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান ভূঁইয়াকে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি মাল তো দূরের কথা ফোন রিসিভ না করে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়ে পালিয়ে রয়েছে। মালের টাকা ফেরত পেতে প্রতিষ্ঠানে এসে তাকে পাওয়া যায়নি। সে আমাদের মধ্যে অনেক পার্টির সাথে প্রতারণা করে টাকা  আত্মসাৎ করেছে।
মানুষের টাকা আত্মসাৎ ও প্রতারণার করায় আমরা এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত শাহজাহান ভূইয়া জানায়, মানুষের কাছ থেকে যে টাকা নেওয়া হয়েছে তার বিষয়ে বড় ছেলে শুভ  জানে। প্রতিষ্ঠানের কিছু সমস্যার কারণে বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ রয়েছে। তবে যারা টাকা পাবে তাদের টাকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শাহজাহান ভূঁইয়া।
Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জে শিক্ষার্থী মৃত্যুর ৮ দিন পর পরিবারের দাবি ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু

এস.এম ইকবাল : গত ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা মিডফোর্ড হাসপাতালে নেওয়ার সময় প্রাণ হারায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী …

vv