ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / চাঁদপুরে করোনাজয়ী ১৫৩ পুলিশ সদস্যকে সংবর্ধনা

চাঁদপুরে করোনাজয়ী ১৫৩ পুলিশ সদস্যকে সংবর্ধনা

বিশেষ প্রতিনিধি : চাঁদপুরে করোনাজয়ী ১৫৩ পুলিশ সদস্যকে সংবর্ধনা দিয়েছে জেলা পুলিশ। গত ছয় মাসে জেলায় দায়িত্বরত অবস্থায় ১৫৪ পুলিশ সদস্য করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর ১৫৩ জনই সুস্থ হয়েছেন। বাকি একজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আক্রান্ত পুলিশ সদস্যরা করোনামুক্ত হয়ে আবার ডিউটিতে যোগদান করায় শোকরানা দোয়ার আয়োজন ও তাদের সংবর্ধনা দিয়েছেন পুলিশ সুপার। বুধবার চাঁদপুর পুলিশ লাইনসে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

চাঁদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয় সূত্র জানায়, গত ৮ মার্চ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর ছয় মাসে জেলা পুলিশের ৩৯১ জন সদস্যের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয় ১৫৪ জনের। তারা হলেন- পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান, ইন্সপেক্টর ৯ জন, ৩২ জন এসআই, এএসআই ২৫ জন, নায়েব ৫ জন, কনস্টেবল ৮০ জন এবং একজন সিভিল স্টাফ। তাদের মধ্যে ১১ জন ডিএসবিতে, ৫ জন ডিবিতে, ৮ জন সদর থানায়, ১২ জন হাইমচর থানায়, ৬ জন হাজীগঞ্জ থানায়, ৬ জন শাহরাস্তি থানায়, ৩ জন কচুয়া থানায়, ১২ জন মতলব উত্তর থানায়, দু’জন ফরিদগঞ্জ থানায়, ৬ জন ট্রাফিক পুলিশে এবং ৬৪ জন পুলিশ লাইনসে কর্মরত।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ সদস্যদের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর তারা চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সুস্থ হওয়ার পর প্রত্যেক পুলিশ সদস্য আরও ১০ দিনের ছুটিতে ছিলেন। এরপর তারা পর্যায়ক্রমে কাজে যোগদান করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আক্রান্তরা সুস্থ হয়ে ফেরায় তাদের জন্য দোয়ার আয়োজন করেছি। সেই সঙ্গে তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে।’

Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জে ভাতিজার হাতে চাচী ধর্ষণ,  ধর্ষণের ভিডিও পাঠিয়ে টাকা দাবী

এস.এম ইকবাল: চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার চরদু:খিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের বিষকাঁটালী গ্রামে ভাতিজা কর্তৃক চাচীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে, সেই ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারন করে সৌদিপ্রবাসী স্বামীর কাছে পাঠিয়ে অর্থ দাবী করার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করেছে ভূক্তভোগী। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত রিয়াদ নামে এক যুবককে আটক করে আদালতে প্রেরণ করেছে। থানায় দায়েরকৃত মামলা অনুযায়ী জানাযায়, ওই ইউনিয়নের চৌকিদার বাড়ির সৌদি আরব প্রবাসী মোস্তফা কামালের স্ত্রী শারমিন আক্তারকে একই বাড়ির শফিকুর রহমানের প্রবাস ফেরত ছেলে রিয়াদ হোসেন ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষন করে, অবৈধ শারিরিক সর্ম্পকের একটি ভিডিও মুঠো ফোনে ধারণ করে রিয়াদ নিজেই। পরে সে নিজেই শারমিনের স্বামীর কাছে সেই ভিডিও চিত্র ও ছবি পাঠিয়ে অর্থ দাবী করে। পরে শারমিন বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় সোমবার লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করে অভিযুক্ত রিয়াদকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই কাজী মো: জাকারিয়া জানান, মামলার অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা ও আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। Facebook Comments

vv