ব্রেকিং নিউজঃ
Home / টকশো / চাঁদপুরে আলাউদ্দিনের দোপাট্রা চায়ের কোনও তুলনাই হয় না

চাঁদপুরে আলাউদ্দিনের দোপাট্রা চায়ের কোনও তুলনাই হয় না

অমরেশ দত্ত জয় : চাঁদপুর শহরের স্টেডিয়াম রোডস্থ মামা স্টোরে চুমুকেই প্রশান্তি দিচ্ছে মো. আলাউদ্দিনের দোপাট্রা চা। সাদা ও লাল রংয়ের এই চায়ে মিশ্রিত থাকে ঝাঁঝালো আদা ও লেবুর রস। যার স্বাদ মাত্র ২০ টাকাতেই গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে।
২১শে নভেম্বর শনিবার প্রান কৃষ্ণ দাস, সজল চন্দ্র দাস, রোমিও চৌধুরী, সামিউল প্রধান, নাজমূল, ইয়াসিন নামের চা পানকারীগণ জানান, মামা স্টোরে তারা সুযোগ পেলেই এক গ্লাস দোপাট্রা চা পান করতে চলে আসেন। মাঝে মধ্যে বন্ধু ও সহকর্মীদেরকেও সাথে নিয়ে আসেন। মূলত এক গ্লাস দোপাট্রা চা মনে প্রশান্তি নিয়ে আসে। তাই এই চা পান করতেই এখানটায় ছুটে আসি। সবার পক্ষ থেকে এই দোপাট্রা চা তৈরি করা আলাউদ্দিন মামার জন্য রইলো অফুরন্ত শুভকামনা।
জানা যায়, এই মামা স্টোরে দোপাট্রা চায়ের স্বাদ ছাড়াও ভিন্ন স্বাদের চা পান করার ব্যবস্থা রয়েছে। তার মধ্যে ১০ টাকায় রং চা, ২০ টাকায় সাদা লেবু চা, ১০ টাকায় নরমাল চা এবং ২০ টাকায় দুধ চা পাওয়া যায়। এরসাথে বিস্কিটসহ হরেক রকমের মুদী সামগ্রীও পাওয়া যাচ্ছে। যা সকাল ৯ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত দোকান খোলা অবস্থায় যে কেউ উন্মুক্তভাবে নির্দিষ্ট দামে গ্রহণ করতে পারবে।
এ ব্যপারে মামা স্টোরের প্রোপাইটার মোঃ আলাউদ্দিনের সাথে আলাপ হলে তিনি জানিয়েছেন, আমি দীর্ঘ ২৩ বছর যাবৎ চাঁদপুর শহরে এই দোপাট্রা চা বিক্রি করছি। পূর্বে আমি অন্য একটি ব্যবসা করে খুব বেশি সুবিধা করতে না পেরে এই চা বিক্রিতে মনযোগ দিয়েছি। এর সামান্য আয় দিয়েই নিজের স্ত্রী ও ২ সন্তানকে নিয়ে সাংসারিক খরছ বহন করছি। আমি অন্য একটি জেলার বাসিন্দা হলেও এখন চাঁদপুরেই বাসা ভাড়া নিয়ে নিজের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছি।
মামা স্টোরের প্রোপাইটার মোঃ আলাউদ্দিন আরো জানান, এখানে বেশিরভাগ মানুষই আসে ২ রংয়ের লেবু ও আদা মিশ্রিত দোপাট্রা চা পান করতে। সবাই যখন চা পান করে বলে যে মামা চা খুব ভালো হয়েছে। তখন যেন মনটা আনন্দে ভরে যায়।আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন। যাতে আমি সুন্দরভাবে সুস্থ থেকে ঐতিহ্যবাহী এই মুখোরোচক দোপাট্রা চা মানুষকে বানিয়ে পান করার ব্যবস্থা করে দিতে পারি।
Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে দিনশেষে সিএনজি চালক ইমরানের বাড়ি ফেরা হলোনা

মোঃ মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দিনভর সিএনজি থ্রি হুইলার চালিয়ে চালক ইমরানের আর বাড়ি …

Shares
vv