ব্রেকিং নিউজঃ
Home / অপরাধ / চাঁদপুরের মৈশাদীতে শ্মশান ভাংচুর ও জমি দখল, আতংকে হিন্দু পরিবার

চাঁদপুরের মৈশাদীতে শ্মশান ভাংচুর ও জমি দখল, আতংকে হিন্দু পরিবার

গাজী মোঃ মহসিন : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৬নং মৈশাদী ইউনিয়নে হিন্দুদের শ্মশানে হামলা ভাংচুর ও জোরপূবর্ক সম্পত্তি দখল এবং হিন্দু পরিবারকে হুমকি প্রদান করায় এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। পাশ্ববর্তী বাড়ীর মৃতঃ মরহুম রুহুল আমিন মোল্লার ছেলে এ্যাডঃ বাবরুল আমিন নামের জৈনিক ব্যাক্তি সন্ত্রাসী দিয়ে হিন্দু সম্প্রাদায়ের সম্পত্তি জোড় পূর্বক ভোগদখল করা সহ নানাবিধ ষড়যন্ত্র ও হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী হিন্দু সম্পাদায়ের লোকরা প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছেন।

ঘটনার বিবরনে সরেজমিনে গিয়ে জানাযায় মৈশাদী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের পূর্ব হামানকর্দি গ্রামের শ্রী রতন স্বর্নকারের বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। স্বর্নকার বাড়ীর শ্রী লিটন বনিক বলেন আমার বাব স্বগীয় শ্রী গৌরাঙ্গ বনিক সহ আত্মীয়রা তাদের বসতবাড়ীর সাথে ১৯৮৬ সালে পাশ্ববর্তী দীঘিরপাড়ের সিরাজ গাজীর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা মূল্যে ১৮ শতাংশ জমি ক্রয় করে ৩৫ বৎসর যাবৎ শান্তিতে বসবাস করে আসছে।

বিগত ২৫ বছর যাবৎ আমরা ১৮ শতাংশ জমির উপর সীমানা নির্ধারন করে আমাদের ধর্মীয় শ্মশান খোলা হিসাবে ব্যবহার করে আসছি।শ্মশানে ৪জন কে সমাহিত করা হয়েছে।

গত (০৬) জুন শনিবার সকালে আমি আমার ব্যবসায়ীক কাজে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে যাই। আমার স্ত্রী তার বাপের বাড়ীতে যায়। সেই সুযোগে আমাদের পাশ্ববর্তী বাড়ীর এ্যাডভোকেট বাবরুল আমিন ও তার ভাই সাঈদ কাউছার গং আমাদের অনউপস্থিতে দুপুর ১২ টার সময় বাবুরহাট থেকে ভাড়া করে ১৫ থেকে ২০ জন সন্ত্রাসীদের এনে আমাদের ক্রয়কৃত সম্পত্তিত্বে হামলা করে ফলজ, ফুলসহ বিভিন্ন গাছ কেটে ফেলে এবং আমাদের ধর্মীয় শ্মশানে হামলা ও ভাংচুর করে।

সন্ত্রাসী লোক দিয়ে আমাদের সম্পত্তিতে জোড় পূর্বক কাটাতারের বেড়া দিয়ে দখল করে এবং সেখানে তারা পৈত্রিক সুত্রে এই সম্পত্তির মালিক বলে সাইনবোর্ড । আমাদের বসত বাড়ীতে আমরা ৫টি পরিবার বসবাস করে আসছি। আজকে তাদের কর্মকান্ড দেখে অমরা সবাই আতঙ্কে আছি। আমরা সবাই আইনের আশ্রয় নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এই ব্যাপরে পাশ্ববর্তী বাড়ীর (প্রাক্তন ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক) মোঃ সোহাগ শেখ হিন্দু সম্পাদায়ের সম্পত্তিতে হামলার সময় বাধা প্রদান করলে এ্যাডভোকেট বাবরুল আমিন ও তার ভাই সাঈদ কাউছার তাকে অকথ্যে ভাষায় গালিগালজ করে প্রাননাশের হুমকি দেয়।
স্থানীয় প্রনব শীল বলেন আমাদের সামনে এ্যাডভোকেট বাবরুল আমিন ও তার ভাইরা ভাড়াটে সন্ত্রাসী এনে তাদের সম্পত্তি ও তাদের শ্মশান খোলায় লাটি শোটা দিয়ে হামলা ও ভাংচুর চালায় এবং কাটা তারের বেড়া দেয়।

আমরা স্থানীয়রা বাধা প্রদান করলে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে প্রাননাশের হুমকি ধুমকি দেয়।

স্থানীয় পাশ্বর্বর্তী বাড়ীর আরেক বাসিন্দা মৈশাদী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান বলেন আমাদের এলাকায় আমরা মুসলমান ও হিন্দু সম্পাদায়ের লোকদের সাথে নিয়েই শান্তিতেই বসবাস করে আসছি।

কিন্তু এ্যাডভোকেট বাবরুল আমিন আজকে হঠাৎ করে দুপুরে কয়েকজন বাবুহাট থেকে ভাড়া করা লোক এনে হিন্দুদের ক্রয়কৃত সম্পত্তির উপর হামলা করে এবং তাদের র্ধর্মীয় শ্মশানে হামলা ভাংচুর ও জোড় পূর্বক ভোগদখল করার জন্য কাটা তারের বেড়া দেয়।যা নিতান্তই দুঃখজনক ঘটনা। এটার সুষ্ট বিচার হওয়া দরকার।

এই ব্যাপারে এ্যাডঃ বাবরুল আমিন নামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি দৈনিক চাঁদপুর প্রবাহের প্রতিনিধিকে তার বাড়ীর সামনে আসতে বলে এবং বাড়ির সামনে আসলে তিনি আগামীকাল সকালে তার সাক্ষাত করতে বলে। এই বিষয়ে তিনি আজকে কিছুই বলবেন না।

মৈশাদী ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মানিকের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান আজকে হিন্দু সম্পাদায়ের সম্পত্তি উপর ও তাদের র্ধর্মীয় শ্মশানে হামলা ভাংচুর ঘটনা খুবই দুঃখজনক। এই ধরনে ঘটনা অথিতে কখনই ঘটেনি। আমাকে ভুক্তভোগী হিন্দু সম্পাদায়ের লোকরা তাকে বিষয়টি জানিয়েছে।আমি তাদেরকে পরিষদে এসে লিখিত অভিযোগ করতে বলেছি। লিখিত অভিযোগ ফেলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।

Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী বাবা-ছেলে আটক

এস.এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ পুলিশের পৃথক পৃথক অভিযান পরিচালনা করে বাবা-ছেলেসহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে ২১শ’৪৫ পিস …

vv