ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস রোপণ থামছে না!

ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস রোপণ থামছে না!

চাঁদপুরের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কৃষকরা না বুঝেই জমির আইল, আবাদি ও ভিটা জমির পাশে দ্রুত বর্ধনশীল ইউক্যালিপটাস গাছ রোপণ করে চলেছে। যার প্রভাব পড়ছে পরিবেশসহ ফসলি জমির ওপর।

বিভিন্ন সমীক্ষায় দেখা যায়, ইউক্যালিপটাস গাছ আমাদের মাটি ও পরিবেশের জন্য একেবারেই উপযোগী নয় বরং ফসলসহ অন্য প্রতিবেশী গাছের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। এ গাছটি বাংলাদেশের তালিকাভুক্ত উদ্ভিদ নয়। গাছের আদিবাস অস্ট্রেলিয়ায়।

সরেজমিন মতলব উত্তর উপজেলার পৌরসভাসহ ফতেপুর পূর্ব, ফতেপুর পশ্চিম, দূর্গাপুর, বাহগানবাড়ি, সাদুল্লাপুরসহ অন্যান্য ইউনিয়নের শত শত কৃষক অধিক মুনাফার লোভে পরিবেশ নষ্টকারী জমির নীরব ঘাতক ইউক্যালিপটাস গাছ রোপণ করছে। এ গাছের ক্ষতিকর দিকগুলো মাটি থেকে বেশি রস ও খাদ্য শোষণ করে থাকে। ফলে যে এলাকায় ইউক্যালিপটাস গাছ বেশি আছে, সেই এলাকায় পানির স্তর ক্রমেই নিচে নেমে যায়। এতে পার্শ্ববর্তী জমির কমে যায় উর্বরতা শক্তি। ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস গাছের পাতা সহজে পচে না, যেখানে ওই গাছের পাতা মাটিতে পড়ে সে স্থানে অন্য কোনো প্রকার ফসল জন্মায় না বরং আশপাশের ফসল বৃদ্ধিকে বাধাগ্রস্থ করে। মানুষ বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজন ও অপরিহার্য সহায়ক গাছ।

তাই মাটি ও মানুষের ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস গাছ রোপণ বন্ধে স্থানীয় প্রশাসন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, এনজিও, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ-মন্দির ও প্রত্যন্ত গ্রাম-গঞ্জের সর্বসাধারণকে সচেতনতামূলক প্রচার প্রচারণা আবশ্যক। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. সালাউদ্দিন জানান, ইউক্যালিপটাস গাছ প্রচুর পরিমাণে পানি শোষণ করে, এতে পরিবেশের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ে, ফলে এ প্রজাতির গাছ রোপণ না করাই ভালো।

প্রতিবেদন: মনিরুল ইসলাম মনির

Facebook Comments

Check Also

শাহরাস্তিতে ড্রাম্পট্রাকের ধাক্কায় ইলেকট্রিশিয়ানের মৃত্যু

মো.মাসুদ রানা : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে ইটা বোঝাই একটি ড্রাম্পট্রাকের ধাক্কায় মহিউদ্দিন (৫৫) নামে এক ব্যবসায়ীর …

vv