ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / কচুয়ায় ২০ টাকা লেন-দেন নিয়ে হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন
প্রতীকী ছবি

কচুয়ায় ২০ টাকা লেন-দেন নিয়ে হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলায় ২০ টাকা লেনদেনকে কেন্দ্র করে এনামুল হক (২৪) নামে এক যুবককে হত্যার দায়ে যুবককে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) দুপুর দেড়টায় চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ এ রায় দেন।

কারাদন্ডপ্রাপ্ত মোহাম্মদ উল্লাহ (২৪) উপজেলার সিংআড্ডা গ্রামের মজুমদার বাড়ির মৃত আবদুল জলিল মজুমদারের ছেলে। হত্যার শিকার এনামুল হক একই গ্রামের আলী আহম্মদের ছেলে।

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, ২০১২ সালের ৬ আগস্ট রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিংআড্ডা বাজারের আলী আকবরের চায়ের দোকানের সামনে এনামুলের কাছে ২০ টাকা দাবি করেন মোহাম্মদ উল্লাহ। এনামুল টাকা দিতে রাজি না হলে তাদের মধ্যে ঝগড়া বেধে যায়। একপর্যায়ে মোহাম্মদ উল্লাহ সঙ্গে থাকা ছুরি দিয়ে এনামুলকে এলোপাতাড়ি কোপান।

এসময় স্থানীয়রা ছুটে এসে এনামুলকে উদ্ধার করে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। একই সময় স্থানীয়রা মোহাম্মদ উল্লাহকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় রাতেই কচুয়া থানায় এনামুল হকের বাবা আলী আহম্মদ বাদী হয়ে মোহাম্মদ উল্লাহ’র বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কচুয়া থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম ৩০ সেপ্টেম্বর আদালতে আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন।

সরকার পক্ষের আইনজীবী (পিপি) আমান উল্লাহ বলেন, ‘দীর্ঘ পাঁচ বছর মামলাটি চলমান অবস্থায় ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এতে আসামি মোহাম্মদ উল্লাহ’র অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় মঙ্গলবার তার উপস্থিতিতে আদালত এ রায় দেন।’

সরকার পক্ষের সহকারী আইনজীবী (এপিপি) ছিলেন মুক্তার হোসেন অভি। আসামিপক্ষে ছিলেন মো. জসিম উদ্দিন (২)।

Facebook Comments

Check Also

ফরিদগঞ্জে ভাতিজার হাতে চাচী ধর্ষণ,  ধর্ষণের ভিডিও পাঠিয়ে টাকা দাবী

এস.এম ইকবাল: চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার চরদু:খিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের বিষকাঁটালী গ্রামে ভাতিজা কর্তৃক চাচীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে, সেই ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারন করে সৌদিপ্রবাসী স্বামীর কাছে পাঠিয়ে অর্থ দাবী করার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করেছে ভূক্তভোগী। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত রিয়াদ নামে এক যুবককে আটক করে আদালতে প্রেরণ করেছে। থানায় দায়েরকৃত মামলা অনুযায়ী জানাযায়, ওই ইউনিয়নের চৌকিদার বাড়ির সৌদি আরব প্রবাসী মোস্তফা কামালের স্ত্রী শারমিন আক্তারকে একই বাড়ির শফিকুর রহমানের প্রবাস ফেরত ছেলে রিয়াদ হোসেন ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষন করে, অবৈধ শারিরিক সর্ম্পকের একটি ভিডিও মুঠো ফোনে ধারণ করে রিয়াদ নিজেই। পরে সে নিজেই শারমিনের স্বামীর কাছে সেই ভিডিও চিত্র ও ছবি পাঠিয়ে অর্থ দাবী করে। পরে শারমিন বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় সোমবার লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করে অভিযুক্ত রিয়াদকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই কাজী মো: জাকারিয়া জানান, মামলার অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা ও আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। Facebook Comments

vv