ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় চাঁদপুর / প্রিয় কচুয়া / কচুয়ায় হেযবুত তওহীদের সংবাদ সম্মেলন
হেযবুত তওহীদের সংবাদ সম্মেলন লিখিত বক্তব্য পাঠ করছেন চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি মো. মহিউদ্দিন।

কচুয়ায় হেযবুত তওহীদের সংবাদ সম্মেলন

মো: রাছেল, কচুয়া : ২০১৬ ইং সনের ১৪ মার্চ নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে মিথ্যা গুজব রটিয়ে ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টি করে হেযবুত তওহীদের ২ সদস্যকে নৃশংসভাবে হত্যা, বাড়িঘর লুটপাট ও ধ্বংসযজ্ঞের সাথে জড়িতদের বিচারের দাবীতে এবং হেযবুত তওহীদের বিভিন্ন কৃষিভিত্তিক, শিল্পভিত্তিক ও শিক্ষামূলক উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন হেযবুত তওহীদ।

রবিবার বিকালে শহীদ সোলেমান ফাউন্ডেশন কার্যালয় কচুয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সাথে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

শহীদ সোলেমান খোকনের বড় বোন ও হেযবুত তওহীদের চট্টগ্রাম বিভাগীয় নারী সম্পাদক ইলা ইয়াছমিনের সভাপতিত্বে ও হেযবুত তওহীদ কচুয়া শাখার সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম বাবুলের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, হেযবুত তওহীদ চাঁদপুর জেলা সভাপতি মো. মহিউদ্দিন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ২৬ বছরে একটি ধর্ম ব্যবস্যায়ী উগ্রবাদী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হেযবুত তওহীদের সদস্যদের উপর ৪শ বারেরও বেশি হামলা চালিয়েছে। তন্মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ পৈশাচিক হামলাটি হয় ২০১৬ সালের ১৪ই মার্চ। সেদিন হেযবুত তওহীদের এমামের বাড়িতে নির্মানাধীন মসজিদকে গির্জা বলে গুজব রটিয়ে ধর্ম ব্যবসায়ী একটি শ্রেণি ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টি করে। দিনভর চলে হামলা, জ্বালাও-পোড়াও, রক্তপাত ও হত্যাকাণ্ড। হেযবুত তওহীদের দুইজন সদস্যকে গলা কেটে হত্যা করে চোখ ওপড়ে পেট্টোল ঢেলে লাশ পুড়িয়ে দেওয়া হয়। উল্লেখিত হামলার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার জন্য দাবী জানানো হয়।

এছাড়াও বর্তমানে যারা হেযবুত তওহীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা হ্যান্ডবিল বিতরণ করছে, হেযবুত তওহীদের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে ওয়াজ মাহফিল গুলোতে যারা অপ-প্রচার, মিথ্যাচার চালাচ্ছে ও হেযবুত তওহীদের বিরুদ্ধে অনলাইনে হত্যার হুমকি দিচ্ছে, ছবি বিকৃতিসহ নানাবিধ সাইবার ক্রাইম করছে তাদেরকেও আইনের আওতায় এনে বিচার নিশ্চিত করার দাবী জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে শহীদ সোলেমান খোকনের পিতা শামসুদ্দিন পাটওয়ারী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, দেশের সকল অপরাধের দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয়। কিন্তু আমার ছেলেকে হত্যা ৫ বছর পেরিয়ে যাচ্ছে আজও বিচার পাইনি। আমি সরকারের কাছে আমার পুত্র হত্যার বিচারের জন্য আকুল আবেদন জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য যে, ২০১৬ সালের ১৪ মার্চ হেযবুত তওহীদের এমামের বাড়ির সামনে মসজিদ নির্মাণকে কেন্দ্র করে উগ্রবাদীরা হামলা চালিয়ে যে দু’জনকে হত্যা করে এদের একজন হচ্ছে কচুয়া উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামের শামসুদ্দিন পাটওয়ারীর ছেলে সোলেমান খোকন।

Facebook Comments

Check Also

কচুয়া সড়কে বোনের নাতির ঈদের কাপড় দিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন দাদি

মোঃ রাছেল, কচুয়া : বোনের নাতির জন্যে ঈদ উপহার দিয়ে বাড়ি অন্য বোনের বাড়িতে যেতে রওনা …

Shares
vv