ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শীর্ষ / কচুয়ায় বন্ধ হচ্ছে না ফসলি জমির মাটি বিক্রি

কচুয়ায় বন্ধ হচ্ছে না ফসলি জমির মাটি বিক্রি

কচুয়া প্রতিনিধি : চাঁদপুর জেলার কচুয়া  উপজেলার ফসলি জমিগুলোর মাটি বিক্রি কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছে না। ইট তৈরী করা যায় এমন ফসলি জমির মাটি বিক্রি হচ্ছে বেশী। যার ফলে মাটি বিক্রি যে বছর করা হয়, সে বছর ওই জমিটি পতিত থাকে। একই সাথে পাশের জমিটিরও ফসলের ক্ষতি হয়। এসব কারণে জমির মালিক সাময়িকভাবে লাভবনা হলেও পায়দা লুটছেন ইট ভাটার মালিকরা। কচুয়া উপজেলার  বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এসব দৃশ্য দেখা গেছে।

সম্প্রতি সময়ে চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের যেমনঃ  আশ্রাফুরের মথুরাপুর ও  সাদিপুরা চাঁদপুর, পালাখাল, কাদলা, কালচোঁ ফসলি মাঠে গিয়ে দেখাগেছে বেশ কয়েকটি ফসলি জমির মাটি বিক্রি করেছেন ওই সব জমির মালিকরা। এসব মাটি গুলো ক্রয় করেছেন ইটভাটার মালিক। ট্রাক্টর ভর্তি করে দিনে ও রাতে বিক্রি হয় এসব মাটি।

আশ্রাফুরের মথুরাপুর গ্রামের কৃষক মো. নুরুন্নবী জানান, তাদের মাঠের জমির মালিকের মধ্যে আঃ রহিম ও ইদ্রিস মিয়া দু’জনেই এ বছর ফসলি জমির মাটিগুলো বেশ গর্ত করে বিক্রি করেছেন। তাদের জমির পাশেই রয়েছে একই গ্রামের খলিলুর রহমানের একটি জমি। এই জমিটিও এ বছর বোরো আবাদ ব্যাহত হবে। এভাবে কচুয়া উপজেলার সর্বত্র ফসলি জমিগুলোর মাটি গুরো বিক্রি হয়ে যাচ্ছে।

চাঁদপুর জেলা কৃষি সম্প্রসার অধিদপ্তরের সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান বলেন, চাঁদপুরে এ বছর বহু জমি অনাবাদি পড়ে আছে। ইটভাটা তৈরী করে বিশাল এলাকা দখল করছে। কৃষি জমির মাটি বিক্রি হচ্ছে। কৃষি জমিতে পুকুর খনন করা হচ্ছে। কৃষি জমি ভরাট করা হচ্ছে। এভাবে জমির শ্রেনী পরিবর্তন হচ্ছে। আমরা এসব বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে পারি। কিন্তু আমাদের ব্যবস্থা নেয়ার কোন ক্ষমতা নেই।

Facebook Comments

Check Also

চাঁদপুর জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে ১১৪, মুক্ত ২৩

মনিরুল ইসলাম মনির : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে চাঁদপুর জেলায় বর্তমানে বিদেশফেরত ১১৪জন হোম কোয়ারেন্টাইনে …

vv